চিটাগাং চেম্বার ও নেদারল্যান্ডসের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য সম্প্রসারণের লক্ষ্যে দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি ও নেদারল্যান্ডস্ দূতাবাসের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

চট্টগ্রাম: দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য সম্প্রসারণের লক্ষ্যে দি চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি ও নেদারল্যান্ডস্ দূতাবাসের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে আনুষ্ঠানিকভাবে চেম্বারের পক্ষে এর সভাপতি মোরশেদ মুরাদ ইব্রাহিম ও নেদারল্যান্ডসের পক্ষে সে দেশের রাষ্ট্রদূত আলফনস্ হেনিকেনস্ চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।
 
চট্টগ্রাম নগরীর আগ্রাবাদের চেম্বার মিলনায়তনে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া।

চুক্তি স্বাক্ষরের দিনটিকে একটি ঐতিহাসিক দিন উল্লেখ করে শিল্পমন্ত্রী বলেন, এ চুক্তির মধ্য দিয়ে চট্টগ্রাম তথা বাংলাদেশের বিনিয়োগ ও বৈদেশিক বাণিজ্য সম্প্রসারণে সম্ভাবনার নতুন দ্বার উন্মোচিত হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের অঙ্গীকার হচ্ছে-ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া। এ লক্ষ্যে ইন্ডাস্ট্রিয়াল পলিসি-২০১০-এ সরকার বেসরকারি খাতকে অগ্রাধিকার দিয়েছে। আমরা চাই বিদেশি বিনিয়োগকারীরা সরাসরি কিংবা যৌথ উদ্যোগে এদেশে বিনিয়োগ করে শিল্প কারখানা গড়ে তুলুক। আমরা সব বিনিয়োগকারীকে নিশ্চয়তা দিচ্ছি, শিগগির বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান হতে যাচ্ছে।’

তিনি ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে বিজনেস পলিসি, লজিস্টিক ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল সাপোর্ট নেওয়ার আহ্বান জানান।

মন্ত্রী সিরামিক, চামড়া, তথ্যপ্রযুক্তি ও জাহাজ নির্মাণ শিল্পে নেদারল্যান্ডসের বিনিয়োগ ফলপ্রসূ হবে বলে মন্তব্য করেন।

এছাড়া পরিবেশবান্ধব সব খাতে বিনিয়োগকে সরকার উৎসাহিত করবে বলে তিনি জানান।

নেদারল্যান্ডসের রাষ্ট্রদূত আলফনস্ হেনিকেনস্ বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে চট্টগ্রাম একটি গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল। এ চুক্তি দুদেশের বাণিজ্য সম্প্রসারণে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। প্রাইভেট সেক্টরে বাংলাদেশ সরকারের স্ট্রং কমিটমেন্ট আছে। যৌথভাবে উৎপাদনশীল খাতে বিনিয়োগ সম্ভব।

তিনি নেদারল্যান্ডস সরকার শিল্প-উপকরণ দিয়ে বিনিয়োগকারীদের সার্বিক সহযোগিতা দেবে বলে জানান।

চেম্বার সভাপতি মোরশেদ মুরাদ ইব্রাহিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম-১০ আসনের সংসদ সদস্য এমএ লতিফ, ইতালির অনারারি কনসাল সালমান ইস্পাহানি, ভারতের সহকারী হাই কমিশনার সোমনাথ বসু, জার্মানির অনারারি কনসাল শাকির ইস্পাহানি, জাপানের অনারারি কনসাল নুরুল ইসলাম, প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন ড. ইফতেখার চৌধুরী ও প্রভাত চন্দ্র বড়ুয়া উপস্থিত ছিলেন।

চেম্বারের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি মাহবুব আলম বলেন, চিটাগাং চেম্বারের নিজস্ব উদ্যোগে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার হচ্ছে। চট্টগ্রাম শুধু ব্যবসা-বাণিজ্যের কেন্দ্র নয়, দিন দিন একটি পরিকল্পিত ও উন্নত শহরে পরিণত হচ্ছে।

তিনি চেম্বার ও নেদারল্যান্ডসের মধ্যকার চুক্তি স্বাক্ষরের ফলে দু’দেশই লাভবান হবে বলে মন্তব্য করেন।

চেম্বার সচিব ওসমান গনি চৌধুরীর সঞ্চালনে অনুষ্ঠানে দৈনিক আজাদী সম্পাদক এম এ মালেকসহ স্থানীয় কূটনৈতিক, ট্রেডবডি নেতৃবৃন্দ, সরকারি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২২, ২০১১

Nagad
শোরুমে ডাকাতি: সুমনের স্বীকারোক্তি, রানা কারাগারে
‘বিএনপি আমলে সাহেদ হাওয়া ভবনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন’
করোনা: ঢাকাসহ চার জেলায় পশুর হাট না বসানোর প্রস্তাব
নোবেলজয়ী কবি পাবলো নেরুদার জন্ম
ঢাকার পথে সাহারা খাতুনের মরদেহ


ভিয়েতনামে মানবপাচারের ঘটনায় আটক তিনজন রিমান্ডে
পল্লবীতে ভুয়া চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানে অভিযান, আটক ৩
রাজশাহীতে বাসচাপায় অটোরিকশার চালকসহ নিহত ২
‘আদিম’ মুক্তির আগেই নির্মিত হচ্ছে সিক্যুয়েল
লকডাউনে ভিডিওচিত্র বানিয়ে খুদে শিক্ষার্থী প্রিয়তির রোবট জয়