জিডিপির লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়ে সংশয়ে অর্থমন্ত্রী

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত নিজেই এ বছর দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বা জিডিপির লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে কি না তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন ।

ঢাকা: অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত নিজেই এ বছর দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বা জিডিপির লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে কি না তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন ।

বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে দক্ষিণ এশিয়া নেটওয়ার্ক ফর ইকোনমিক রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (সানি) ১১তম বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল বলেন, ‘গত এক দশক ধরেই দেশে বিনিয়োগের হার ২৪ শতাংশের কাছাকাছি। কোনো দেশ যখন তার জিডিপির হার সাত কিংবা আট শতাংশে উন্নীত করার পরিকল্পনা করে তখন বিনিয়োগের এ হার মোটেও আশাব্যঞ্জক নয়। দেশের জিডিপির হার এখন ছয় দশমিক সাত শতাংশ। কিন্তু বর্তমান অর্থনৈতিক সংকটে, যেখানে মূল্যস্ফীতির হার ঊর্ধ্বমুখী সেখানে এটা (জিডিপি) কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে সে বিষয়ে আমি নিশ্চিত না।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, অনেক সময় বিশ্বমন্দা সরকারের নীতিকে সমস্যায় ফেলে দেয়। যেমনটা এ বছর ঘটেছে। আন্তর্জাতিক মূল্যস্ফীতি দেশে মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে। যার ফলে সরকারকে ব্যাংক থেকে অনেক বেশি ঋণ নিতে হচ্ছে। এটি আবার মূল্যস্ফীতিকে বাড়িয়ে দিচ্ছে।

সরকারি ব্যয় বৃদ্ধির বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘দেশে সরকারি ব্যয় খুবই কম। নেপালের সরকারি ব্যয়ও আমাদের চেয়ে বেশি। বাংলাদেশে সরকারি ব্যয় কখনোই ১৫ শতাংশের বেশি হয়নি। গত ৪০ বছর ধরে এই ব্যয় সাত থেকে ১৫ শতাংশের মধ্যে ছিল।’ তাঁর মতে, বিদেশি সহায়তা ব্যবহারের পরিমাণ এবং অভ্যন্তরীণ সম্পদ বৃদ্ধি করতে পারলে সরকারি ব্যয় বৃদ্ধি করা সম্ভব হবে।

বেশি দামে সরকারের বিদ্যুৎ উত্পাদনের সমালোচনার জবাবে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘মিডিয়াগুলোতে বেশি দামে বিদ্যুৎ উত্পাদনের সমালোচনা করা হচ্ছে। অর্থনীতিবিদেরাও একই কথা বলছেন। কিন্তু আমি এই বিষয়ে চিন্তিত নই। কারণ, বিদ্যুতের উত্পাদন বাড়ার কারণেই গত বছর দেশের রপ্তানি প্রবৃদ্ধি হয়েছিল ৪১ শতাংশ।’

নিত্যপণ্যের দাম যে সারা বছর লাগামহীন ছিল তা স্বীকার করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘নিত্যপণ্যের দাম আমাদের হতাশ করেছে। এটা সারা বছর ধরেই এটা বেড়েছে।’

সানির গবেষণা প্যানেলের চেয়ারম্যান ও যুক্তরাষ্ট্রের ইয়েল ইউনিভার্সিটির অর্থনীতির অধ্যাপক টি এন শ্রীনিবাসনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সানির সমন্বয়ক ও বিআইডিএসের মহাপরিচালক মোস্তফা কে মুজেরি এবং গ্লোভাল ডেভেলপমেন্ট নেটওয়ার্কের কর্মসূচি ব্যবস্থাপক রামোনা মার্গারেটা নাকভি বক্তব্য দেন।

এ সম্মেলনের আয়োজন করে সানি এবং বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ (বিআইডিএস)।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২১, ২০১১

Nagad
অপূর্ব-মেহজাবীনের শুটিং ইউনিটে করোনার হানা
পাকিস্তান দলের জার্সিতে শহীদ আফ্রিদি ফাউন্ডেশনের লোগো
সিইসিকে চিঠি, এরশাদের মৃত্যুদিনে ভোট চায় না জাপা
শেষ কার্যদিবসে বেড়েছে সূচক ও লেনদেন
৩১ জুলাই পর্যন্ত বাতিল বিমানের ম্যানচেস্টারে ফ্লাইট


ধামরাইয়ে স্বর্ণের বারসহ আটক ৫
স্বাস্থ্যবিধি না মানায় কুটুমবাড়ী রেস্তোরাঁকে জরিমানা
স্বাস্থ্যবিধি মেনে ১২ জুলাই থেকে খুলবে হাফিজিয়া মাদ্রাসা
ভূরুঙ্গামারীতে পাট কাটতে গিয়ে বজ্রপাতে যুবকের মৃত্যু
বগুড়ায় কোরবানিযোগ্য গবাদি পশু প্রায় ৪ লাখ