গরিব হওয়ার কষ্ট আমি বুঝি: অর্থমন্ত্রী 

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

অগ্রণী ব্যাংকের বার্ষিক সম্মেলন-২০১৯ এ অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালসহ বিশিষ্টজনেরা

walton

ঢাকা: আমি লজিং থেকে পড়ালেখা করেছি। অনেক সময় কৃষিকাজ করেছি, দারিদ্র্যের কারণে অনেক পেশা বেছে নিয়েছি। গরিব হওয়ার কষ্ট আমি বুঝি। ২০৩০ সালে দেশে গরিব থাকবে না। 

php glass

বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) নগরীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলের গ্র্যান্ড বলরুমে অগ্রণী ব্যাংকের বার্ষিক সম্মেলন-২০১৯ এ অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল একথা বলেন।  

তিনি বলেন, দেশ থেকে দারিদ্র্য তাড়াতে হবে। সবাই প্রধানমন্ত্রীকে সহায়তা করলে আমরা ফেল করবো না। 

ব্যাংকিং খাত প্রসঙ্গে মুস্তফা কামাল বলেন, ব্যাংকিং খাত কিছুটা খারাপ অবস্থায় রয়েছে। এই খাতের গ্ল্যামার ফেরাতে হবে। যারা ভালো কাস্টমার তাদের ব্যাংকিং সুযোগ-সুবিধা বাড়াতে হবে। ঋণ দেওয়ার বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে। খেলাপি ঋণ কিছুতেই বাড়তে দেওয়া যাবে না।

বাজেট প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, কর দেওয়ার ক্ষেত্রে একটা বাজে নিয়ম চালু রয়েছে। যারা কর দেন শুধু তারা দিচ্ছেন। যারা কর দেওয়ার যোগ্য তাদের করের আওতায় আনবো।      

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. ফজলে কবির, অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম, অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. জায়েদ বখত, ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ শামস উল ইসলাম প্রমুখ।    

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৮ ঘণ্টা, মার্চ ১৪, ২০১৯
এমআইএস/এএ

১০ বছর ধরে সিপিডি শুধু দোষই খুঁজেছে: হাছান মাহমুদ
ফোন চুরি যাওয়ায় সাংবাদিকদের আটকে রাখলেন শমী কায়সার!
এখন খান, সারা বছরের জন্য আচার করে রাখুন
শিক্ষাখাতে বরাদ্দ বৃদ্ধিতে কাজ করছে সরকার
গাজীপু‌রে ভবন থে‌কে নারীর গলাকাটা মর‌দেহ উদ্ধার


‘মানবিকতা না থাকলে সেই বিজ্ঞানের প্রয়োজন নেই’
ফুপু হামিদা খানমের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
স্প্যানিশ সুপার কাপের ৬ মৌসুম সৌদি আরবে
মহালছড়িতে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার
প্রথম প্রান্তিকে বেড়েছে গ্রামীণফোনের রাজস্ব ও গ্রাহক