ঢাকা, রবিবার, ৩ মাঘ ১৪২৭, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

‘ভাস্কর্য বিরোধী মৌলবাদীদের বিষদাঁত উপড়ে ফেলতে হবে’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২৫৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৫, ২০২০
‘ভাস্কর্য বিরোধী মৌলবাদীদের বিষদাঁত উপড়ে ফেলতে হবে’

চট্টগ্রাম: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য অপসারণের নামে স্বাধীনতাবিরোধী চক্রের হুমকির প্রতিবাদে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি চট্টগ্রাম জেলার উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।  

বুধবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম বাংলার ইতিহাসের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধুর অবমাননা এবং ভাস্কর্য বিরোধীদের বাংলার মাটিতে স্থান হবে না।  

সংগঠনের জেলা সভাপতি প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদারের সভাপতিত্বে ও কার্যকরি সাধারণ সম্পাদক অলিদ চৌধুরীর সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন মুক্তিযুদ্ধ গবেষণা কেন্দ্র ট্রাস্ট’র চেয়ারম্যান ডা. মাহফুজুর রহমান, মহানগর আওয়ামী লীগ সহ-সভাপতি নইম উদ্দিন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, শ্রমিকলীগ কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি সফর আলী, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও চ্যানেল আই ব্যুরো প্রধান চৌধুরী ফরিদ।  

আরও বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র চট্টগ্রাম সভাপতি তপন দত্ত, সংগঠনের জেলা সহ-সভাপতি দীপংকর চৌধুরী কাজল, মুহাম্মদ নাজিম উদ্দিন চৌধুরী, সহ-সাধারণ সম্পাদক হাবিব উল্লাহ চৌধুরী ভাস্কর, আবু সাদাত মো. সায়েম, আবদুল মান্নান শিমুল, সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল আলম খান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক চৌধুরী, মিথুন মল্লিক, আসাদুজ্জামান জেবিন, মো. সাহাব উদ্দিন, অসিত বরণ বিশ্বাস, রুবা আহসান, সূচিত্রা গুহ টুম্পা, সনেট চক্রবর্ত্তী।

বক্তারা বলেন, পৃথিবীর বিভিন্ন ইসলামী রাষ্ট্র তাদের শ্রেষ্ঠ সন্তানদের স্মরণে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ভাস্কর্য স্থাপন করেছে এবং যা তাদের স্থাপত্যকলা ও সংস্কৃতির উল্লেখযোগ্য অংশ। ২০১৭ সালের ২০ নভেম্বর এক রিটের শুনানিতে উচ্চ আদালত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণের স্থানে মঞ্চ পুনঃনির্মাণ করে সেখানে তার ভাস্কর্য কেন স্থাপন করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করছিল। যেখানে দেশের সর্বোচ্চ আদালত নির্দেশ দিয়েছেন বিভিন্ন স্থানে স্মৃতি স্তম্ভ ও ভাস্কর্য স্থাপনের, সেখানে কিছু মৌলবাদী সংগঠন তার বিরোধিতা করে আদালতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছে। সরকার-উচ্চ আদালতের নির্দেশনা ও রাষ্ট্রের চার মূলনীতির বিরুদ্ধাচরণ দেশদ্রোহিতার সামিল। ভাস্কর্য বিরোধী মৌলবাদীদের বিষদাঁত উপড়ে ফেলতে হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২২৫০ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৫, ২০২০
এসকে/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa