ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৭, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩ সফর ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

৫ মাস ধরে বন্ধ রেলওয়ের উচ্ছেদ অভিযান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৬ ঘণ্টা, আগস্ট ৮, ২০২০
৫ মাস ধরে বন্ধ রেলওয়ের উচ্ছেদ অভিযান ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম: প্রায় পাঁচ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের ভূ-সম্পত্তি বিভাগের উচ্ছেদ অভিযান। সর্বশেষ চলতি বছরের ১১ মার্চ দখলে থাকা রেলওয়ের জমি উদ্ধারে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়েছিলো।

এর ফলে রেলওয়ের উচ্ছেদকৃত বিভিন্ন জায়গা ফের দখল করা হচ্ছে।  


সম্প্রতি নগরের খুলশী থানার সেগুনবাগান এলাকায় রেলওয়ের উচ্ছেদকৃত জায়গা দখল করে ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান নির্মাণ করার চেষ্টা করা হয়। এসময় পূর্বাঞ্চলের ভূ-সম্পত্তি বিভাগের কর্মকর্তারা সেখানে গিয়ে বাধা দিলেও নির্মাণ করা ভবন উচ্ছেদ করা হয়নি।


কয়েকদিন আগে সব সরকারি প্রতিষ্ঠানে পুরোদমে কাজ করতে সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এরপরও করোনা ভাইরাসের অজুহাত দিয়ে অভিযান বন্ধ রেখেছে ভূ-সম্পত্তি বিভাগ। ৫ মাস অতিবাহিত হওয়ার পরও কবে আবার অভিযান পরিচালনা করা হবে, সে বিষয়ে কিছু বলতে পারছেন না সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।  


২০১৯ সালের অক্টোবর থেকে চলতি বছর মার্চ পর্যন্ত ৫০টি অভিযানে ৩৫ একর জমি দখলমুক্ত করেছে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চল। এতে প্রায় ১০ হাজার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। তবে রক্ষণাবেক্ষণের অভাব ও সীমানাপ্রাচীর না থাকায় এসব জমি পুনরায় দখল হয়ে যাচ্ছে। এখনও আরও অর্ধেকের বেশি জমি দখলে রেখেছে ভূমি খেকোরা।


এদিকে ৩৫ একর জমি দখলমুক্ত করা হলেও সেগুলো এখনও দেয়াল বা কাঁটা তারের বেড়া দিয়ে সংরক্ষণ করেনি প্রকৌশল বিভাগ। ফলে দখলমুক্ত করার পর যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ না করায় জমির দখল ধরে রাখতে পারছে না রেলওয়ে। সুযোগ বুঝে ফের জায়গাগুলো দখলে নিয়ে নিচ্ছে এলাকাভিত্তিক প্রভাবশালীরা। সেখানে বসতি গড়ে ভাড়া দিয়ে মাসে টাকা নিচ্ছেন তারা।


এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে প্রকৌশল বিভাগের কাউকে পাওয়া যায়নি।


রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা মাহাবুবুল করিম বাংলানিউজকে বলেন, এখনও উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করার জন্য শিডিউল ঠিক করা হয়নি। তবে কোথাও কোথাও রেলওয়ের জায়গা ফের দখল করে ভবন নির্মাণ করার সময় বাধা দিয়েছি।  


বাংলাদেশ সময়: ১২৩৬ ঘণ্টা, আগস্ট ০৮, ২০২০
জেইউ/এমআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa