রমজানে পণ্যের দাম বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: মান্নান

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বক্তব্য দেন বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান

walton

চট্টগ্রাম: গত ১০ বছরে নিত্যপণ্যের দাম নাগালের বাইরে যায়নি মন্তব্য করে বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান বলেছেন, রমজানকে কেন্দ্র করে কোনো অসাধু চক্র নিত্যপণ্য মজুদ রেখে দাম বাড়ালে তা সহ্য করা হবে না। কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

php glass

সোমবার (১৫ এপ্রিল) চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে বিভাগীয় কমিশনার অফিস আয়োজিত সভায় বিভাগীয় কমিশনার এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, কাঁচা মরিচের দাম হঠাৎ করে ২০০ টাকা, বেগুনের দামে আগুন, এসব হতে দেবো না। বাজার মনিটরিং কার্যক্রম আরও জোরদার করা হবে। সাধারণ জনগণকে জিম্মি করে রমজানে নিত্য পণ্যের দাম বাড়ালে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীকে আইনের আওতায় আনা হবে।

নতুন করে রোহিঙ্গা যেনো প্রবেশ না করে

মো. আবদুল মান্নান বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে রাখাইনের কিছু কিছু গ্রামে রোহিঙ্গাদের নতুন করে অত্যাচার, নির্যাতন শুরু করেছে মিয়ানমার সরকার। সেখানকার নির্যাতিত রোহিঙ্গা ও রাখাইনের অধিবাসীরা এখানে অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে। সুযোগ পেলেই তারা কক্সবাজার, বান্দরবান ও অন্যান্য এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়বে।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাসহ মিয়ানমারের কোনো নাগরিক যাতে নতুন করে এ দেশে অনুপ্রবেশ করতে না পারে সেজন্য বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড- বিজিবিসহ সংশ্লিষ্ট আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে কঠোর অবস্থানে থাকতে হবে।

অর্পিত দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করুন

বিভাগীয় কমিশনার বলেন, সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে অবৈধভাবে আসা মাদক, অস্ত্রের চোরাচালান ও তেল পাচার রোধে সড়ক পথের পাশাপাশি নৌপথে টহল অব্যাহত রাখতে হবে। এ জন্য সীমান্তবর্তী এলাকায় বিজিবি, কোস্টগার্ড ও অন্যান্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে নজরদারী বাড়াতে হবে। প্রজাতন্ত্রের কর্মচারি হিসেবে অর্পিত দায়িত্ব ঠিকভাবে পালন করতে হবে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টানা তৃতীয়বার ক্ষমতায় এসে দেশের উন্নয়ন অব্যাহত রাখার পাশাপাশি দুর্নীতি, সন্ত্রাস, মাদক, জঙ্গিবাদ, চোরাচালানসহ অন্যান্য অপরাধ নিয়ন্ত্রণে গুরুত্ব দিয়ে যাচ্ছেন। এসব অপরাধ রোধে প্রশাসনকে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করতে হবে। মাদক ব্যবসায়ীদের আত্মসমর্পণ করানোর জন্য সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসককে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।

খুন-ছিনতাই যেনো না বাড়ে

মো. আবদুল মান্নান বলেন, খুন, ছিনতাই, দস্যুতা, ইভটিজিং, রাহাজানি, অপহরণসহ অন্যান্য অপরাধ কর্মকান্ড নিয়ন্ত্রণে রাখতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে আরও তৎপর হতে হবে। এসব অপরাধ যাতে কোনোভাবেই না বাড়ে।

সভায় পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, চট্টগ্রাম মেট্রাপলিটন পুলিশের কমিশনার মোহাম্মদ মাহাবুবুর রহমান, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) শংকর রঞ্জন সাহা, বিভাগীয় পরিচালক (স্থানীয় সরকার) দীপক চক্রবর্ত্তী, অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মো. নুরুল আলম নিজামীসহ প্রশাসনের ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা অংশ নেন।

বাংলাদেশ সময়: ২০২৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৫, ২০১৯
এমআর/টিসি  

কা‌লিয়াকৈরে ট্রাকের ধাক্কায় যুবক নিহত
হবিগঞ্জে চা শ্রমিকদের কর্মবিরতি
জাউ ভাত খেয়ে বেঁচে আছেন খালেদা জিয়া: রিজভী
জকোভিচকে হারিয়ে ইতালিয়ান মাস্টার্স জিতলেন নাদাল 
পাঁচ নদীর দখল-দূষণ রোধে মাস্টারপ্ল্যান হচ্ছে


শেখ হাসিনাকে বরণ করতে অপেক্ষা করছে জাপান: রাষ্ট্রদূত
শ্রীমঙ্গলে চা মৌসুমের প্রথম নিলাম 
চার সংবাদমাধ্যমে জেলা পর্যায়ে সাংবাদিকতার সুযোগ
দেড়কেজি মুরগির দামে এক কেজি ফুলকপি
বিআরটিসির ঈদ স্পেশাল সার্ভিস: টিকিট আছে, যাত্রী নেই