৬ মাসেও মেলেনি সড়ক সংস্কারে ২২২ কোটি টাকা বরাদ্দ

960 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
চট্টগ্রাম নগরীর সড়কের বেহাল দশা দেখে রোববার গণমাধ্যমের কাছে উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। অথচ সড়ক রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কারের জন্য চসিকের পক্ষ থেকে দু’দফায় ২২২ কোটি টাকা চাওয়া হয় সরকারের কাছে।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম নগরীর সড়কের বেহাল দশা দেখে রোববার গণমাধ্যমের কাছে উষ্মা প্রকাশ করেছিলেন যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। অথচ সড়ক রক্ষণাবেক্ষণ ও সংস্কারের জন্য চসিকের পক্ষ থেকে দু’দফায় ২২২ কোটি টাকা চাওয়া হয় সরকারের কাছে। কিন্তু ৬ মাস পার হলেও সরকারের পক্ষ থেকে এখনো বরাদ্দ পায়নি সিটি কর্পোরেশন।

বরাদ্দের অভাবে ৯০০ কিলোমিটার সড়ক সংস্কারে হিমশিম খেতে হচ্ছে সিটি কর্পোরেশনকে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এম মনজুর আলম বাংলানিউজকে বলেন, সিটি কর্পোরেশনের একটি মাত্র এসফল্ট প্ল্যান্ট রয়েছে। নগরীর এত বিশাল সড়ক এলাকা এক মৌসুমে একটি প্ল্যান্ট দিয়ে কার্পেটিংয়ের কাজ করা সম্ভব নয়। নতুন আরেকটি এসফল্ট প্ল্যান্ট বসানোর জন্য স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের কাছে ২০০ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প প্রস্তাব করা হয়েছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত বরাদ্দ মেলেনি।

সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশল বিভাগের হিসাব অনুযায়ী, নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে প্রায় ৯০০ কিলোমিটার সড়ক রয়েছে। এরমধ্যে ৫০০ কিলোমিটার কার্পেটিং করা। এসব কার্পেটিংয়ের জন্য নগরীর সাগরিকায় একটি মাত্র এসফল্ট প্ল্যান্ট রয়েছে সিটি কর্পোরেশনের। প্রতিবছর একটি এসফল্ট প্ল্যান্ট দিয়ে বিশাল সড়ক এলাকা কার্পেটিং করতে হিমশিম খেতে হয় কর্পোরেশনকে।

নগরীর কালুরঘাট এলাকায় নতুন আরেকটি এসফল্ট প্ল্যান্ট নির্মাণ করতে ২০০কোটি টাকার একটি প্রকল্প নেওয়া হয়। এ বছরের ৯ ফেব্রুয়ারী প্রকল্প প্রস্তাব স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। একই মাসে প্রকল্পটি  মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র। ৬ মাস পার হলেও প্রকল্পটির জন্য বরাদ্দ পায়নি কর্পোরেশন।

গত ২০ থেকে ২৩ জুনের টানা বৃষ্টিতে নগরীর ১০০ কিলোমিটার সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ২৬ জুন সড়ক সংস্কারে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পক্ষ থেকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে ২২ কোটি টাকা বিশেষ থোক বরাদ্দ চাওয়া হয়।

চিঠিতে টানা বৃষ্ঠিতে নগরীর সড়ক মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে উল্লেখ করে সরকারের ভাবমূর্তি রক্ষায় সড়ক সংস্কারে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের কাছে বিশেষ থোক বরাদ্দের আবেদন জানান মেয়র এম মনজুর আলম।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এম মনজুর আলম বাংলানিউজকে বলেন, সরকারের কাছে যে বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে তা পাওয়া গেলে কয়েক সপ্তাহের মধ্যে নগরীর সব সড়ক সংস্কার মেরামত করা সম্ভব।

রোববার চট্টগ্রামে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষের একটি জনসচেতনতামূলক প্রচারাভিযানে অংশ নিয়ে যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, চট্টগ্রাম বসবাসের অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে। এ শহরের যেদিকেই থাকায় ময়লা-আবর্জনার ঢিবি। দুর্গন্ধে নাকে রুমাল দিয়ে চলতে হয়।
 
‘চট্টগ্রামের মতো এত বেহাল রাস্তাঘাট বাংলাদেশের কোথাও নেই’ বলেও মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

এ প্রসঙ্গে মেয়র এম মনজুর আলম বলেন, চট্টগ্রামের দিকে মাননীয় মন্ত্রীর দৃষ্টি পড়েছে এ জন্য ধন্যবাদ। তিনি সব সময় চট্টগ্রামের প্রতি আন্তরিক। আমরা সড়ক সংস্কারের জন্য যে বরাদ্দ চেয়েছি তা পেতে মাননীয় মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

মেয়র বলেন, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করতে নগরীর ১২টি পয়েন্টে সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশন নির্মাণ করছে সিটি করপোরেশন। এসব স্টেশন নির্মাণ হলে নগরীর ময়লা আবর্জনা পরিষ্কার কার্যক্রমে আরো গতি আসবে। এছাড়া যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা না ফেলতে জনসচেতনতামূলক প্রচারাভিযান কর্মসূচিও হাতে নেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৫ঘণ্টা, আগস্ট ০৪, ২০১৪

Nagad
২৫ জুলাইয়ের মধ্যে বোনাস-বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবি
সুনামগ‌ঞ্জে কমেছে সুরমার পা‌নি
সাহেদ বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
বিজয়নগরে পিকআপ ভ্যান উল্টে চালক নিহত
সাহেদের সর্বোচ্চ শাস্তি কামনা করি: বিএসএমএমইউ উপাচার্য


বাতাসেও করোনা সংক্রমণ! বাঁচতে যা করতে বলছে হু
নারায়ণগঞ্জে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে জেলা পরিষদের অভিযান
ব্যাংকক গেলেন ২৩ থাই নাগরিক
ফজলুর রহমান মসজিদের মোতোয়াল্লী হাজী জাহাঙ্গীর
যেসব স্থানে পালিয়ে ছিলেন সাহেদ