পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু

এস আই-এএসআইসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা

563 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
পুলিশ হেফাজতে মো.রোকনুজ্জামান (৪০) নামে নারী নির্যাতন মামলার আসামীর মৃত্যুর ঘটনায় আদালতে হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। মামলায় পাঁচলাইশ থানার এস আই আমির হোসেন, বাকলিয়া থানার এএসআই মোহাম্মদ এনায়েত হোসেনসহ ১০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম: পুলিশ হেফাজতে মো.রোকনুজ্জামান (৪০) নামে নারী নির্যাতন মামলার আসামীর মৃত্যুর ঘটনায় আদালতে হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। মামলায় পাঁচলাইশ থানার এস আই আমির হোসেন, বাকলিয়া থানার এএসআই মোহাম্মদ এনায়েত হোসেনসহ ১০ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

বুধবার রোকনুজ্জামানের স্ত্রী শিমু আক্তার বাদি হয়ে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম আহমদ সাঈদের আদালতে মামলাটি দায়ের করেছেন। আদালত মামলার আরজিতে আনা অভিযোগ গ্রহণ করে ‍অনুসন্ধানের জন্য নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ কমিশনারকে নির্দেশ দিয়েছেন।

বাদিপক্ষের আইনজীবী এডভোকেট ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী বাংলানিউজকে মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আদালত নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ কমিশনারকে অভিযোগ অনুসন্ধানের পাশাপাশি আলামত জব্দ করা, সাক্ষীদের ১৬১ ধারায় জবানবন্দি নেয়ার এবং প্রয়োজনে পুন: ময়নাতদন্ত করে ২৩ জুলাই ফৌজদারি কার্যবিধির ২০২ ধারামতে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন, পাঁচলাইশ থানার এস আই আমির হোসেন, বাকলিয়া থানার এএস আই মো.এনায়েত হোসেন, পাঁচলাইশ থানার তিন কনস্টেবল মিজানুর রহমান (নম্বর-২৩৯০), মোছলেম (৪০৪৫) ও খোকন মিয়া (৩৯৫৮), আনসার কনস্টেবল শাহীনূর আলম (১৯১৬৭৭৫), পাঁচলাইশ থানার গাড়িচালক কনস্টেবল আকবর (৭১৭৮), পুলিশ সোর্স মো.জামাল ও হুমায়ন কবির এবং সাদা পোশাকে ঘটনাস্থলে থাকা সাধারণ নাগরিক হারুনুর রশিদ ডিউক।

অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪৪৮, ৩০২, ৩৮০, ৩৫৪ এবং ৩৪ ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

গত ১৮ জুন রাতে গ্রেপ্তারের পর পাঁচলাইশ থানা পুলিশের হেফাজতে রোকনুজ্জামানের মৃত্যু হয়।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, নগরীর বাকলিয়ার একটি আবাসিক এলাকার বাসিন্দা সাবেক বীমা কর্মকর্তা ও বর্তমানে ফ্ল্যাট বিক্রির মধ্যস্থতাকারী রোকনুজ্জামানের বিরুদ্ধে গত ৫ জুন সাজেদা বেগম নামে এক গার্মেণ্টস কর্মী পাঁচলাইশ থানায় একটি ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তারের জন্য ১৮ জুন গভীর রাতে তার বাসায় যান তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পাঁচলাইশ থানার এস আই আমির হোসেন।

পুলিশ বাসায় ঢুকে তাকে গ্রেপ্তার করতে চাইলে রোকনুজ্জামানের স্ত্রীসহ বাসার লোকজন কাঁদতে থাকেন। রোকনুজ্জামানও পুলিশের সঙ্গে যেতে অস্বীকৃতি জানান। এ নিয়ে কথাবার্তার এক পর্যায়ে রোকনুজ্জামান প্যান্ট পরে আসার কথা বলে একটি কক্ষে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেন।

এর মধ্যে এলাকার লোকজন বাসার সামনে জড়ো হন। ওই এলাকার বাসিন্দা বীমা কোম্পানির আরেক কর্মকর্তা পুলিশের কাছে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা দেখতে চান। এসময় আমির হোসেন তাকে বলেন, রোকনুজ্জামানের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলার আসামী হিসেবে তাকে গ্রেপ্তার করা হচ্ছে।

এস আই আমির হোসেনের সঙ্গে এসময় বাকবিতন্ডায় লিপ্ত হন বীমা কোম্পানির ওই কর্মকর্তাসহ কয়েকজন। পুলিশ বীমা কোম্পানির ওই কর্মকর্তাকে গাড়িতে তুলে নেন। এর মধ্যে রোকনুজ্জামান বাসা থেকে বের হয়ে আসেন। তাকে পুলিশ গাড়িতে তোলার সময় তিনি ‘আমার খুব খারাপ লাগছে, আমাকে চিনি দাও’ এ ধরনের কথাবার্তা বলে চিৎকার করতে থাকেন। বাসার লোকজন তাকে দ্রুত চিনি দেয়।

পুলিশ গাড়িতে তোলার পর রোকনুজ্জামান গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং শরীর এলিয়ে দেয়। পুলিশ দ্রুত তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

পরবর্তীতে রোকনুজ্জামানের চাচাত ভাই হারুনুর রশিদ দাবি করেন, গ্রেপ্তার করার জন্য রোকনুজ্জামানের বাসায় প্রবেশ করে পুলিশ তার বুকে লাথি মেরেছে। এতে তিনি গুরুতর আঘাত পেয়েছেন।

রোকনুজ্জামানকে গ্রেপ্তারের সময় পুলিশের সঙ্গে বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে গ্রেপ্তার হন প্রতিবেশি ও বীমা কর্মকর্তা আজিজুল হক। তিনি বাংলানিউজকে জানান, রোকনুজ্জামানকে গ্রেপ্তারের পর সোর্স জামাল তাকে মারধর করেছে।

তবে পুলিশের দাবি, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে এবং শরীরে সুগারের পরিমাণ অস্বাভাবিক কমে মৃত্যু হয়েছে রোকনুজ্জামানের। 

ঘটনার পর পুলিশ সোর্স জামালকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৩ঘণ্টা, জুন ২৫,২০১৪

সিলেটে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ৪৮ জন
নালিতাবাড়ীতে বজ্রপাতে যুবকের মৃত্যু
বগুড়ায় একদিনে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্ত
সাবেক মেয়র কামরানের স্ত্রী করোনা আক্রান্ত
বাগেরহাটে আ’লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১


নিহত ৫ জনের পরিচয় শনাক্ত করেছে ইউনাইটেড কর্তৃপক্ষ
ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুন: মৃতদের মধ্যে ৩ জন করোনা পজিটিভ
ঢামেকে সংগ্রহ করা প্লাজমা রোগীদের শরীরে প্রয়োগ
ইউনাইটেড হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় তদন্ত কমিটি
শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনের প্রয়াণ