‘মিথ্যাচার না করে ন্যায্য দাবি মেনে নিন’

356 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: সংগৃহীত

walton
বেসরকারি চট্টগ্রাম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইউএসটিসি) বেতন কাঠামে প্রণয়নসহ বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলনরতরা বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ড ন্যায্য দাবি দাওয়া মানার পরিবর্তে পত্র-পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছেন। আন্দোলন নিয়ে যতো ষড়যন্ত্রই হোক তাদের লাগাতার কর্মসূচি চলবে।

চট্টগ্রাম: বেসরকারি চট্টগ্রাম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইউএসটিসি) বেতন কাঠামে প্রণয়নসহ বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলনরতরা বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ড ন্যায্য দাবি দাওয়া মানার পরিবর্তে পত্র-পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছেন। আন্দোলন নিয়ে যতো ষড়যন্ত্রই হোক তাদের লাগাতার কর্মসূচি চলবে।

সোমবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাওলানা ভাসানী অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে আন্দোলনকারীরা এসব কথা বলেন।

মিথ্যাচারের পরিবর্তে দাবি মেনে নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের আজীবন সদস্য সচিব দাবিদার ডা. নীনা ইসলাম সম্প্রতি পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে আন্দোলনকারী শিক্ষক-চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে মিথ্যা বানোয়াট গল্প প্রকাশ করেছেন। তার ‘সবাক বিবেক’ শিরোনামে তথাকথিত ওই লেখায় শতভাগ মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করা হয়েছে।’

তারা বলেন, জনগণের অনুদানের অর্থে গড়ে তোলা প্রতিষ্ঠানকে ডা. নীনা ইসলাম ও তার ভাই আহমেদ ইফতেখারুল ইসলাম পারিবারিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছেন। সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে ট্রাস্টি বোর্ড কাজ চালাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন বৈধ ভিসি, প্রো-ভিসি, রেজিস্ট্রার নেই। নতজানু প্রশাসন করে ডা. নীনা ইসলাম ও তার ভাই অনিয়ম, দুর্নীতি, হরিলুটের মাধ্যমে ইউএসটিসিকে পঙ্গু করে রেখেছেন।  আন্দোলনকারীদের ন্যায্য দাবি মেনে না নিয়ে, মূল দাবিকে আড়াল করে এখন পত্র পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে মিথ্যাচার করছেন।’

সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করেন, নীনা ইসলাম ঢাকায় একটি সরকারী মেডিকেল কলেজে সহকারী অধ্যাপক পদে কর্মরত কিন্তু কর্তৃপক্ষের চোখকে ফাঁকি দিয়ে, ক্ষমতার প্রভাব কাটিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ইউএসটিসি’র মেডিসিন ফ্যাকাল্টির সহযোগী অধ্যাপকসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পর্ষদে অবৈধভাবে সরকারি দায়িত্ব পালন করছেন।

বক্তারা বলেন, ইউএসটিসি কর্তৃপক্ষ দাবিদারদের ব্যাপক অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনার কারণে ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি তার সুনাম হারাচ্ছে। অবিলম্বে শিক্ষক-চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের সকল দাবি মেনে নিতে হবে।

আন্দোলনকারী সমন্বয় পরিষদের আহবায়ক ডা. এ এইচ এম ইছহাক চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও বিএমএ নেতা ইউএসটিসি’র সহকারী অধ্যাপক ডা. এস এম মাহবুবুল কদির এর সঞ্চালনায় বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল হাসপাতালের মহাপরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল (অব) ডা. শওকত আলী, মেডিসিন ফ্যাকাল্টির ডিন অধ্যাপক ডা. মোকাদ্দেস আক্তার বেগম, সার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. বদিউল আলম, ফরেনসিক মেডিসিনের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক মাহমুদুল হক চৌধুরী, ডা এ বি এম মোহাম্মদ আলী, অধ্যাপক ডা. দিদারুল আলম, আনোয়ারুল ইসলাম বাপ্পী প্রমুখ।

বিক্ষোভ সমাবেশের আগে আন্দোলনকারীদের একটি বিক্ষোভ মিছিল ক্যাম্পাস ও জাকির হোসেন সড়কের বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে। একইদিনে এছাড়াও টানা চার ঘণ্টার কর্মবিরতি পালন করে শিক্ষক-চিকিৎসক, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

প্রসঙ্গত, গত ১৮ মে থেকে বিভিন্ন দাবিতে শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন চারঘণ্টার কর্মবিরতিসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছে। এ নিয়ে অনেকটাই অচল রয়েছে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়টি। বন্ধ রয়েছে ক্লাস-পরীক্ষাসহ সকল প্রশাসনিক কার্যক্রম।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৪০ ঘণ্টা, জুন ২২, ২০১৪

রাজধানীতে বাড়ছে করোনার সংক্রমণ
কক্সবাজারে আরো ৪৬ জন করোনা আক্রান্ত
শ্রীমঙ্গলে ৬৭ মামলায় ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা
আড়াইহাজারে দগ্ধ আরও একজনের মৃত্যু
সিলেটে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ৪৮ জন


নালিতাবাড়ীতে বজ্রপাতে যুবকের মৃত্যু
বগুড়ায় একদিনে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্ত
সাবেক মেয়র কামরানের স্ত্রী করোনা আক্রান্ত
বাগেরহাটে আ’লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১
নিহত ৫ জনের পরিচয় শনাক্ত করেছে ইউনাইটেড কর্তৃপক্ষ