নজরদারিতে ইসকপ

সহিংসতায় মদদ আর নাশকতায় অর্থায়ন

1327 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
নামে অরাজনৈতিক সংগঠন হলেও ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদের (ইসকপ) বিরুদ্ধে জামায়াতের আদর্শ, উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য বাস্তবায়নের পাশাপাশি সহিংসতায় জড়িত সংগঠনটির নেতাকর্মীদের আশ্রয় দেয়ার অভিযোগ আছে।

চট্টগ্রাম: নামে অরাজনৈতিক সংগঠন হলেও ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদের (ইসকপ) বিরুদ্ধে জামায়াতের আদর্শ, উদ্দেশ্য ও লক্ষ্য বাস্তবায়নের পাশাপাশি সহিংসতায় জড়িত সংগঠনটির নেতাকর্মীদের আশ্রয় দেয়ার অভিযোগ আছে।

গত সংসদ নির্বাচন পূর্বাপর সহিংসতা এবং যুদ্ধারপরাধীদের বিচারের রায়কে কেন্দ্র করে নাশকতায় পরিষদের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মীরাও জড়িত ছিল বলে গোয়েন্দা তথ্য আছে নগর পুলিশের কাছে। বিশেষত দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর ফাঁসির রায়ের পর সংগঠনটির ভূমিকা সবচেয়ে বিতর্কিত ছিল বলে মনে করে পুলিশ।

সহিংসতার সময় একাধিক গোয়েন্দা সংস্থার পক্ষ থেকে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদের বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছিল। সংগঠনটি নাশকতায় অর্থায়ন করছে বলেও পুলিশকে তথ্য দিয়েছিল একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা।  

বিষয়টি স্বীকার করে নগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ ও অভিযান) বনজ কুমার মজুমদার বাংলানিউজকে বলেন, ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদ নিয়ে গোয়েন্দা তথ্য পাবার পর আমরা বিভিন্ন পর্যায়ে সংগঠনটি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছি। সংগঠনটির অর্থের উৎস, তাদের অর্থায়ন করা প্রকল্প নিয়ে তদন্ত অব্যাহত আছে। এক্ষেত্রে কোন অনিয়ম কিংবা নাশকতায় অর্থায়নের সুনির্দিষ্ট তথ্য পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তবে ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদের কার্যনির্বাহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাছির উদ্দিন আহমদ চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের সংগঠন সমাজসেবামূলক অরাজনৈতিক সংগঠন। আমরা গরীব লোকদের চিকিৎসা সেবা দিই। আমাদের এতিমখানা, মক্তব, স্কুল আছে। কোন রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে আমাদের সংগঠন জড়িত নয়।


পরিষদের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদই চট্টগ্রামে তাফসীরুল কুরআন মাহফিলের মূল উদ্যোক্তা। একাত্তরে মানবতা বিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর দেশব্যাপী পরিচিতির নেপথ্যেও ছিল সংগঠনটি। সাঈদী গ্রেপ্তারের পর থেকে সংগঠনটির আর আগের তেজ নেই। এখন সংগঠনটি সমাজসেবামূলক কাজের আড়ালে মূলত জামায়াতকে সহযোগিতা দেয়।

তরিকত ফেডারেশনের সভাপতি ও সংসদ সদস্য নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি বাংলানিউজকে বলেন, জামায়াতের দু’টি ব্যানার ‍আছে-একটি রাজনৈতিক, আরেকটি অরাজনৈতিক। জামায়াতের অরাজনৈতিক ব্যানার হচ্ছে ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদ। জামায়াত রাজনৈতিক ব্যানারে নাশকতা করে আর অরাজনৈতিক ব্যানারে মানুষকে ধর্মের ভুল ব্যাখা দিয়ে বিভ্রান্ত করে। এখন যখন জামায়াত বেকায়দায় আছে তখন অরাজনৈতিক সংগঠনকে নিজেদের সহিংসতার কাজে ব্যবহার করছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নগরীর চান্দগাঁও থানার শমসের পাড়া এলাকায় ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদ পরিচালিত একটি হাসপাতাল আছে। ৫ জানুয়ারির সংসদ নির্বাচন পূর্বাপর সময়ে হরতাল-অবরোধে পিকেটাররা ওই হাসপাতালে আশ্রয় নিত বলে পুলিশের ‍কাছে তথ্য আছে। গত বছরের শেষদিকে পুলিশ ওই হাসপাতালে কয়েক দফা অভিযান চালিয়েছিল।

চান্দগাঁও থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এস এম শহীদুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, চান্দগাঁও আবাসিকসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ককটেল, পেট্রলসহ গ্রেপ্তার হওয়া কয়েকজন পিকেটার জানিয়েছিল, রাতে তারা শমসের পাড়ায় জামায়াতের হাসপাতালে অবস্থান নিয়েছিল। সকালে সেখান থেকে নাশকতা করার জন্য বের হয়েছিল। আমরা হাসপাতালে বেশ কয়েকবার অভিযান চালিয়ে ককটেলসহ বেশ কয়েকজন শিবির কর্মীকে আটক করেছিলাম।

কোতয়ালী থানার ওসি একেএম মহিউদ্দিন সেলিম বাংলানিউজকে বলেন, জামায়াত হরতাল-অবরোধের ডাক দিলে আমরা স্বাভাবিকভাবে বিভিন্ন মেস, কোচিং সেণ্টার, জামায়াত নেতাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোর উপর নজরদারি বাড়ায়। সহিংসতার সময় উর্দ্ধতন পর্যায় থেকে ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদের উপর নজরদারি বাড়ানোর কথা বলা হয়েছিল। এরপর থেকেই সংগঠনটি আমাদের ওয়াচের মধ্যে আছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদের সঙ্গে বিতর্কিত বিদেশি এনজিও এবং সংগঠনের যোগাযোগ থাকার তথ্য পুলিশকে দিয়েছে। এসব সংগঠনের মধ্যে আছে আর্ন্তজাতিক ইসলামী ত্রাণ সংস্থা, রাবেতা আল আলম আল ইসলামী, মুসলিম এইড বাংলাদেশ, ইসরা, সুদান, ইসলামিক রিলিফ লন্ডন, আল ফয়সাল ফাউন্ডেশন।

তরিকত ফেডারেশনের সভাপতি ও সংসদ সদস্য নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি বাংলানিউজকে বলেন, ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদ ইহুদি-নাছারাদের কাছ থেকে টাকা নেয়। বিদেশি বিভিন্ন সংস্থা তাদের নিয়মিত অনুদান দেয়। জামায়াত যেসব বিদেশি প্রতিষ্ঠান থেকে টাকা নিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করছে, ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদও একই উৎস থেকে অনুদান পায়।

তবে বিদেশি অনুদান গ্রহণ করার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নাছির উদ্দিন আহমদ চৌধুরী। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, পরিষদ কোন এনজিও নয়। এটি সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে নিবন্ধিত প্রতিষ্ঠান। আমাদের কোন বিদেশি ফান্ড নেই। আমরা জাকাত, কোরবানির চামড়া এবং দেশের বিত্তশালীদের কাছ থেকে এককালীন অনুদান গ্রহণ করি।
              
অনুসন্ধানে জানা গেছে, ১৯৭৭ সালের জুলাই মাসে জামায়াত নেতা মওলানা মুহাম্মদ শামছুদ্দীনের নেতৃত্বে অধ্যক্ষ মোহাম্মদ তাহের, মীর মো.শোয়েব, বদিউল আলম, এম এ তাহের, মো.নূরুল কবির, শেখ মো.ইউসুফসহ আরও কয়েকজন মিলে ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদ গড়ে তোলেন। সংগঠনের উদ্যোক্তাদের সবাই জামায়াত ঘরানার এবং অধিকাংশই বিভিন্ন পদ-পদবিতে ছিলেন।

শামছুদ্দিন জামায়াতের কেন্দ্রীয় মজলিশে শূরার সদস্য ছিলেন এবং কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদকেরও দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৬ সালে ও ১৯৯১ সালে তিনি জামায়াতের প্রার্থী হিসেবে মিরসরাই থেকে নির্বাচন করে পরাজিত হন। শামছুদ্দিন মিরসরাইয়ে কুখ্যাত রাজাকার হিসেবে পরিচিত ছিলেন। ১৯৭৭ থেকে ২০১০ সালে মৃত্যু পর্যন্ত তিনি ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

২০১৩-২০১৪ সালের জন্য গঠিত সংগঠনের কার্যনির্বাহী কমিটির বিভিণ্ন পদ-পদবিতে যারা আছেন তারাও সবাই জামায়াত ঘরানার। অনেকেই শিবিরের রাজনীতিতে জড়িত ছিলেন।

২১ সদস্যবিশিষ্ট পরিষদে সভাপতি হিসেবে আছেন অধ্যক্ষ মুহাম্মদ তাহের, সহ-সভাপতি হিসেবে আছেন অ্যাডভোকেট শামসুদ্দীন আহমদ মির্জা, আফনার উদ্দিন চৌধুরী, এম ডি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী, এম এ তাহের ও এ কে এম শাহাবুদ্দীন, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আছেন অ্যাডভোকেট নাছির উদ্দিন আহমদ চৌধুরী, সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে আছেন মুহাম্মদ শফিউল আলম ছুবহানী ও আবু তাহের খান, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ মওলানা খায়রুল বাশার, অর্থ সম্পাদক ডা.মো.ইলিয়াছ, দপ্তর সম্পাদক ডা.পারভেজ ইকবাল শরীফ, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে আ ন ম আব্দুস শাকুর, সমাজসেবা সম্পাদক নূর মোহাম্মদ, প্রচার সম্পাদক লিয়াকত আক্তার ছিদ্দিকী, সহ-প্রচার সম্পাদক সলীমুল্লাহ জামান এবং সদস্য পদে আছেন আবু বকর ছিদ্দিক, জয়নুল আবেদিন, শাহাবুদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার মুমিনুল হক ও মুহাম্মদ আব্দুল হামিদ।

পরিষদের কর্মকর্তা সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে পরিষদ পরিচালিত ১৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আছে। এগুলো হচ্ছে, নগরীর জামালখানে শাহ্ ওয়ালীউল্লাহ ইনস্টিটিউট, আগ্রাবাদের মুহুরিপাড়ায় আল-জাবের ইনস্টিটিউট ও আল-জাবের মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নগরীর উত্তর কাট্টলীতে জামান-আনোয়ার ইনস্টিটিউট ও ইসকপ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, খুলশী-২ এ মাদ্রাসা-ই-আবু হুরাইয়া ও বায়তুর রিদওয়ান ইয়াতীম খানা, আগ্রাবাদ মুহুরিপাড়ায় আল-জাবের আদর্শ ফোরকানিয়া মক্তব ও আল-জাবের ইনস্টিটিউট বয়স্ক শিক্ষা কেন্দ্র, খুলশী-২ এ আবু হুরাইয়া আদর্শ ফোরকানিয়া মক্তব, আমিন জুট মিল শ্রমিক কলোনি, বড়পুল ও সরাইপাড়ায় তিনটি আদর্শ ফোরকানিয়া মক্তব, খুলশীতে বায়তুর রিদওয়ান হেফজখানা, হালিশহর বড়পুল ও আমিন জুটমিল শ্রমিক কলোনি এলাকায় দু’টি অনানুষ্ঠানিক শিশু শিক্ষা কেন্দ্র।

পরিষদের অধীনে আছে চারটি চিকিৎসা প্রকল্প। এগুলো হচ্ছে, নগরীর চান্দগাঁও শমসের পাড়ায় ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদ হাসপাতাল, চট্টগ্রাম কলেজ রোডে দারুশ শেফা ক্লিনিক, সরদার বাহাদুর নগর এলাকায় আটকে পড়া পাকিস্তানিদের ক্যাম্পের পাশে ঝাউতলা আদর্শ হোমিও দাতব্য চিকিৎসালয় এবং মাদারবাড়ি এলাকায় মাদারবাড়ি আদর্শ হোমিও দাতব্য চিকিৎসালয়।

এছাড়া নগরীর সরাইপাড়ায় ও বাকলিয়ায় দু’টি ইসকপ জামে মসজিদ, খুলশী-২ এলাকায় মসজিদ-ই-আবু হুরায়রা এবং নগরীর আন্দরকিল্লায় ইসকপ অডিও ভিজ্যুয়াল সেন্টার নামে একটি সাংস্কৃতিক প্রকল্প আছে।

অরাজনৈতিক সংগঠন হিসেবে নিজেদের প্রচার করলেও ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদ ১৯৯৩ সালে জামায়াতের আদর্শিক গুরু মওলানা সাইয়্যেদ আবুল আলা মওদুদীকে নিয়ে একটি গ্রন্থ প্রকাশ করে। ‘ওলামায়ে দেওবন্দকে নজর মে মাওলানা মওদূদী’ শিরোনামে গ্রন্থটি লিখেছেন পটিয়ার আল জামিয়া ইসলামিয়া জমিরিয়া মাদ্রাসার সাবেক মুফতি ও গবেষক মওলানা মুহাম্মদ ইলিয়াছ।

সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নাছির উদ্দিন আহমদ চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, ইসলামী সমাজকল্যাণ পরিষদের কোন রাজনৈতিক এজেন্ডা নেই। আমরা সমাজ থেকে অনাচার, ব্যাভিচার, অশ্লীলতা, বেহায়াপনা দূর করতে কাজ করি। আমরা ইসলামের আদর্শ প্রচার করি।

** নতুন ‘সাঈদী’র খোঁজে ইসকপ!

বাংলাদেশ সময়: ১৩২৫ ঘণ্টা, জুন ২৩,২০১৪

মঠবাড়িয়ায় তরুণীকে অপহরণ ও ধর্ষণ মামলায় যুবক গ্রেফতার
ঈদের দিনেও বিষোদগারের রাজনীতি থেকে বের হয়নি বিএনপি
ঈদেও থেমে নেই সিএমপির সদস্যরা
প্রকৌশলী দেলোয়ারের হত্যাকারীদের বিচার চায় টিআইবি
ভোলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ৩


বরগুনায় প্রকাশ্যে পিটিয়ে কিশোর হত্যা
'শহরতলী চুপ' ও 'মেঘ বালিকা' নিয়ে ঈদে সমরজিৎ
বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুর মৃত্যু
শিক্ষাবিদ নিলুফার মঞ্জুরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
আরও শান্ত ঢাকা