চট্টগ্রামের উন্নয়নে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান নোমানের

139 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
রাজনৈতিক মত পার্থক্য ভুলে চট্টগ্রামের উন্নয়নের স্বার্থে দলমত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধ হতে পারলে চট্টগ্রামের উন্নয়নের গতি আরো ত্বরাwš^ত হবে। চট্টগ্রামের উন্নয়ন মানেই বাংলাদেশের উন্নয়ন।

চট্টগ্রাম: রাজনৈতিক মত পার্থক্য ভুলে চট্টগ্রামের উন্নয়নের স্বার্থে দলমত নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধ হতে পারলে চট্টগ্রামের উন্নয়নের গতি আরো ত্বরাwš^ত হবে। চট্টগ্রামের উন্নয়ন মানেই বাংলাদেশের উন্নয়ন। বন্দর নগরী ও বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামের কাঙ্খিত উন্নয়ন হলেই বাংলাদেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।
আমেরিকার নিউ ইয়র্কস্থ চট্টগ্রাম সমিতির উদ্যোগে রোববার রাতে ব্রুকলিন সমিতির কার্যালয়ে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন যুক্তরাষ্ট্র সফররত বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান।

আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে সরকারের মন্ত্রী থাকাকালে চট্টগ্রামের উন্নয়নে নিজেকে অকৃত্রিমভাবে নিয়োজিত রেখেছিলাম। চট্টগ্রামকে বাণিজ্যিক রাজধানী করা থেকে শুরু করে বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়নে সব সময় চট্টগ্রামবাসীর সহযোগিতা পেয়েছি। তবে শুধুমাত্র রাজনৈতিক কারনে তৃতীয় কর্ণফুলী সেতুসহ কিছু গুরুত্বপূর্ণ উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়নে বিরোধীতার সম্মূখীন হয়েছিলাম।

নোমান বলেন, বিএনপির শাসনামলে আমরা চট্টগ্রামে উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করেছি। চট্টগ্রামকে বাণিজ্যিক রাজধানী, তৃতীয় কর্ণফুলী সেতু, জমিয়তুল ফালাহ কমপ্লেক্স, ভেটেরিনারী বিশ্ববিদ্যালয়, আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর, চট্টগ্রাম স্টেডিয়াম, বাকলিয়ায় কলেজ, আমব্রেলা প্রজেক্টের মাধ্যমে রাস্তঘাটের উন্নয়ন, শিক্ষা বোর্ড, টিভি কেন্দ্র, গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ, বিভাগীয় মডেল স্কুল এন্ড কলেজ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের উন্নয়নসহ ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করেছি।

কেন্দ্রীয় বিএনপি’র এ নেতা বলেন, চট্টগ্রাম বিদ্বেষী কিছু আমলাদের অসহযোগিতার কারনে চট্টগ্রামের উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়নে অনেক সময় প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়। তিনি চট্টগ্রামের উন্নয়নের দাবীতে সব সময় সোচ্চার ভুমিকা পালন করায় নিউইয়র্কস্থ চট্টগ্রাম সমিতির কর্মকর্তাদের অভিনন্দন জানান।

চট্টগ্রাম সমিতির সভাপতি কাজী সাখাওয়াত হোসেন আজমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক কর্মকর্তা সৈয়দ এম রেজা, এম এ জাফর। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সমিতির সিনিয়র সহ-সভাপতি মাকসুদুল হক চৌধুরী। এছাড়া বক্তব্য রাখেন আলী ইমাম শিকদার, আবদুল হাই জিয়া, আবদুল্লাহ আল নোমানের একান্ত সচিব নুরুল আজিম হিরু, চট্টগ্রাম সমিতির কর্মকর্তা আবুল কাশেম, জাহাঙ্গীর আলম, আবু তাহের, এম এ লতিফ, আতবর আলী, মোহাম্মদ সেলিম, মাহবুবুর রহমান বাদল ও সাহাবুদ্দিন লিটন।

বাংলাদেশ সময়: ২২০০ঘণ্টা, মে ১৯, ২০১৪

লেবার পার্টির শ্যাডো কেবিনেটে টিউলিপ
ফায়ার সার্ভিসের ল্যান্ড ফোন বিকল
মিরপুর ও নারায়ণগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি ভয়ংকর
ঢাকার বাইরে করোনা রোগী বেড়েছে
এটিএম বুথগুলোর সামনে ‘সামাজিক দূরত্ব’ মানা হচ্ছে না!


ফেনীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু
বগুড়ায় হতদরিদ্রদের ৫০ বস্তা চালসহ কৃষক লীগ নেতা আটক
সাহায্যের জন্য নগদ অর্থ সংগ্রহ করবেন না: মুখ্যমন্ত্রী
সিলেটে প্রবাস ফেরত যুবককে কুপিয়ে খুন
নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন বাসার ছাদে সারারাত জামাতে নামাজ আদায়