শেষ সময়ে ভিড় বাড়ছে বইমেলায়

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বইমেলা, ছবি: ডিএইচ বাদল

walton

বইমেলা প্রাঙ্গণ থেকে: বইমেলার শেষ তৃতীয় দিন বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি)। সময় যতই ফুরিয়ে আসছে, ততোই ভিড় বাড়ছে বইমেলায়। প্রতিনিয়ত আসছে নতুন নতুন বই। বাড়ছে বই ক্রেতার সংখ্যাও।

এ দিন অন্যান্য দিনের তুলনায় বইপ্রেমীদের ভিড় ছিল বেশি। মেলা প্রাঙ্গণ উন্মুক্ত করার সঙ্গে সঙ্গেই বাড়তে থাকে লোকজন। বিকেল গড়াতেই সব বয়সী পাঠকের মিলনমেলায় পরিণত হয় সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ও বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ।

মেলার ২৬তম দিনে প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা যায়, পাঠকদের পদচারণায় মুখর বইমেলা। প্রাণের মেলায় ঘুরে ঘুরে বই দেখার পাশাপাশি কিনছেন পাঠকরা। মেলার সময় যতই গড়াচ্ছে বই কেনার সংখ্যাও বাড়ছে। সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশা, সামনের দিনগুলোতে বই বিক্রি আরও বাড়বে।

এ বিষয়ে বিভিন্ন প্রকাশক জানান, গল্প আর উপন্যাসের বইয়ের প্রতিই বেশি আগ্রহ দেখা গেছে মেলায় আগতদের।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আরিফুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, বই পড়া আমার শখ। ঝোঁক রয়েছে বই কেনার প্রতিও। এ বছর তৃতীয়বারের মতো বই কিনতে মেলায় এসেছি। বই পড়লে জ্ঞান বাড়ে। বই যত পড়ি ততই ভালো লাগে।

বিভিন্ন স্টলের বিক্রয় প্রতিনিধির সঙ্গে কথা হলে তারা বলেন, গত কয়েকদিনের তুলনায় আজ পাঠকের সংখ্যা বেশি। মেলার গেট উন্মুক্তের সঙ্গে সঙ্গেই লোকজনের ভিড় বাড়তে থাকে। পাশাপাশি বই বিক্রির পরিমাণও বেড়েছে। এখন পর্যন্ত গল্প, উপন্যাসের চাহিদা বেশি।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২০
এইচএমএস/টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: বইমেলা
নৌযানে যাত্রী কম, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি
বেসরকারি খাতকে সহায়তা করতে অর্থায়ন বাড়িয়েছে এডিবি
তাদের কণ্ঠে করোনাকালীন গান ‘যখন যুদ্ধে আছি’
নীলফামারীতে নতুন করোনা পজেটিভ ১৭ জন
মালিঙ্গাকে পাশে পেলেন নিষিদ্ধ লঙ্কান পেসার মাদুশঙ্কা


সূচকের নিম্নমুখী প্রবণতায় পুঁজিবাজারে লেনদেন চলছে
ওয়ালটন এসিতে বিদ্যুৎ খরচ ঘণ্টায় মাত্র ৩.৭৪ টাকা
করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে একজনের মৃত্যু
কোভিড-১৯ থেকে বাঁচতে নিকোটিন!
লিফট-সিড়ি থেকেও হতে পারে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ!