সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য বইমেলার অনন্য আয়োজন

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বিকাশ

walton

ঢাকা: প্রতিবছরের মতো এবারও অমর একুশে গ্রন্থমেলায় নেমেছে মানুষের ঢল। প্রতিদিন সন্ধ্যা নেমে আসতে আসতেই বাড়তে থাকে মানুষের ভিড়। পাঠকেরা প্রিয় লেখকের নতুন বইয়ের সন্ধানে ঢু মারতে থাকেন নামজাদা প্রকাশনীর স্টলগুলোতে। স্কুলপড়ুয়া শিশুরা বাবা-মায়ের কাছে আবদার করে পছন্দের বইয়ের জন্য আর দিন শেষে বাড়ি ফেরে বইয়ের ব্যাগ হাতে করে।

কিন্তু সব শিশুই কি পছন্দের বই পড়ার সুযোগ পায়? ইউনিসেফের তথ্য অনুযায়ী দেশে মোট সুবিধাবঞ্চিত শিশুর সংখ্যা ১০ লাখেরও বেশি। শুধুমাত্র ঢাকা শহরে এই সংখ্যা চার লাখের বেশি। এই শিশুরা ইচ্ছে থাকা সত্যেও বই পড়ার সুযোগ পায় না। এমন সুবিধাবঞ্চিত অসংখ্য শিশুর হাতে বই তুলে দিতে এই বইমেলায় এবার অনন্য এক উদ্যোগ নিয়েছে বিকাশ ও অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশন। বিকাশ এই শিশুদের জন্য  পাঁচ হাজার নতুন বই দিচ্ছে । শুধু তাই নয়, বইমেলা প্রাঙ্গণে বিকাশের রয়েছে চারটির বেশি বই অনুদান কেন্দ্র যা মাধ্যমে সর্বসাধারণের কাছ থেকেও বই সংগ্রহ করা হচ্ছে। আপনিও আপনার ছোটবেলার পড়ে ফেলা বইগুলো নিয়ে চলে আসতে পারেন বইমেলায় থাকা বিকাশ বই অনুদান কেন্দ্রে।

অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশন আপনার দেওয়া এই বইগুলো পৌঁছে দেবে দেশের আনাচে-কানাচে থাকা হাজারো সুবিধাবঞ্চিত শিশুর হাতে। বিকাশের এই আহ্বানে সাড়া দিয়ে অনেকেই এগিয়ে এসেছেন আর বইমেলায় যাচ্ছেন বাসায় পড়ে থাকা পুরনো বই নিয়ে। অনেকে আবার বইমেলায় গিয়ে নতুন বইও কিনে দিচ্ছেন। এরই মধ্যে বিকাশ তাদের ফেসবুক পেজ থেকে লাইভে এসে কিছু বই তুলে দেয় অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশনের কিছু ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে। নতুন বই এবং অনুদানের মাধ্যমে প্রাপ্ত বই ধাপে ধাপে অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে পৌঁছে যাবে সারাদেশে তাদের স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের কাছে - এটাই সবার প্রত্যাশা।

ইউনিভার্সিটি ছাত্রী ফারিহা সম্প্রতি বই দিয়েছে বিকাশ বই অনুদান কেন্দ্রে।

তার মতে, আমরা ছোটবেলায় গল্পের বই পড়ে যে আনন্দ পেতাম তা ভাষায় প্রকাশ করার মত নয়। কোনো নতুন বই পেলেই আমাদের মধ্যে থাকত এক অন্যরকম উত্তেজনা, নিজেরাই যেন মিশে যেতাম বইয়ের চরিত্রের সঙ্গে। গোয়েন্দা বিষয়ক বই বা রুপকথার গল্প মনে হত যেন আমি গল্পেরই একটি অংশ। আমি চাই এই আনন্দ সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝেও ছড়িয়ে যাক।

বই অনুদানের এই সাড়া জাগানো উদ্যোগে ইতোমধ্যে বিখ্যাত সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাক্টিভিস্ট আরিফ আর হোসাইন একাত্মতা প্রকাশ করে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এছাড়াও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্প্রতি একটি চোখে পড়ার মতো ঘটনা দেখা যাচ্ছে। অনেকেই তার বই দেওয়ার ছবি আপলোড করে #DonateBooks সহ তাদের বন্ধুদের ট্যাগ করে তাদেরও অনুপ্রাণিত করছে।

কেউ যদি মেলায় বই নিয়ে নাও যেতে পারেন সেক্ষেত্রে বইগুলো কুরিয়ার করে দিতে পারেন সরাসরি অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশনের এই ঠিকানায়- অভিযাত্রিক ফাউন্ডেশন রোডঃ ২ডি, বাসা- ৫, পল্লবী, মিরপুর, ঢাকা -১২১৬, মোবাইলঃ ০১৭০১৬৬৬৩১২

এছাড়াও পাঠকেরা বইমেলায় গিয়ে বই কেনাকাটার পেমেন্ট বিকাশ করলেই পাবেন প্রকাশকের ২৫ শতাংশ ডিসকাউন্টের পর ১০ শতাংশ ইনস্ট্যান্ট ক্যাশব্যাক। একজন বিকাশ গ্রাহক পুরো ফেব্রুয়ারি মাসজুড়ে সর্বমোট ৩শ টাকা ক্যাশব্যাক নিতে পারবেন। আর ঘরে বসেও যেকোনো সময় মেলার বই কিনতে পারবেন https://www.rokomari.com/book থেকে। রকমারি থেকে ৮শ টাকার বেশি কেনাকাটা করে অনলাইন পেমেন্ট বিকাশ করলে পাবেন ফ্রি ডেলিভারি!

বাংলাদেশ সময়: ১৫৩৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২০
এএটি

Nagad
সাংবাদিক লাবলুকে হারানোর এক বছর
সিলেটে দুই চিকিৎসকসহ করোনায় আক্রান্ত আরো ৭৪ জন
রাজধানীতে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যুবক নিহত
দুই বন্ধুকে পোড়াচ্ছে এন্ড্রু কিশোরের ফেলে যাওয়া স্মৃতি
ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে সক্রিয় জালনোট প্রতারক চক্র


সিঙ্গাপুর থেকে ফিরলেন আটকে পড়া ১৬২ বাংলাদেশি
 হেফাজতের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র বরদাশত করা হবে না: আল্লামা শফী
জার্মান বিনিয়োগকারীদের গুরুত্বপূর্ণ গন্তব্য হবে বাংলাদেশ
স্বাস্থ্যসুরক্ষায় ডিআরইউর নতুন সংযোজন অক্সিজেন কনসেনট্রেটর
নোয়াখালীতে করোনায় আরো একজনের মৃত্যু, মোট ৫৩