আহছানউল্লা স্বর্ণপদক পেলেন অধ্যাপক আনিসুজ্জামান

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

শিক্ষাক্ষেত্রে অনন্য অবদানের জন্য জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানকে খান বাহাদুর আহছানউল্লা স্বর্ণপদক-২০১৮ এ ভূষিত করা হয়। ছবি: সংগৃহীত

walton

ঢাকা: সমাজের বিত্তশালী ব্যক্তিবর্গ আহ্‌ছানিয়া মিশনের মতো জনকল্যাণমূলক কাজে এগিয়ে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন।

‘খান বাহাদুর আহছানউল্লা স্বর্ণপদক-২০১৮’ প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমন মন্তব্য করেছেন প্রধান বিচারপতি।

রাজধানীর আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. এম এইচ খান মিলনায়তনে শনিবার (৩০ নভেম্বর) আয়োজিত অনুষ্ঠানে শিক্ষাক্ষেত্রে অনন্য অবদানের জন্য জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানকে ‘খান বাহাদুর আহছানউল্লা স্বর্ণপদক-২০১৮’ এ ভূষিত করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান বিচারপতি অধ্যাপক আনিসুজ্জামানকে স্বর্ণপদক পরিয়ে দেন।

ঢাকা আহছানিয়া মিশনের প্রেসিডেন্ট কাজী রফিকুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন- সাধারণ সম্পাদক ড. এস এম খলিলুর রহমান, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আব্দুল মজিদ ও রবীন্দ্র সৃজনকলা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সৈয়দ মোহাম্মদ শাহেদ।  
প্রধান বিচারপতি বলেন, স্রষ্টার এবাদত ও সৃষ্টির সেবা- এ লক্ষ্য নিয়ে খান বাহাদুর আহ্ছানউল্লা ১৯৫৮ সালে প্রতিষ্ঠা করেন ঢাকা আহ্‌ছানিয়া মিশন। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে এ মিশন জনসেবামূলক কাজ তথা দারিদ্র্য ও সমাজের সুবিধা বঞ্চিত মানুষের সার্বিক কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, জীবিকা, মানবাধিকার এবং সামজিক ন্যায়বিচারের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে এ মিশন। 

‘প্রতিষ্ঠা করেছে নানা শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান। গৌরবজ্জ্বল ভূমিকার জন্য স্বাধীনতাপদকসহ পেয়েছে বিভিন্ন পুরস্কার।....আশা করি সমাজের বিত্তশালী ব্যক্তিবর্গ এরকম জনকল্যাণ মূলক কাজে এগিয়ে আসবেন।’

খান বাহাদুর আহছানউল্লা স্বর্ণপদক পেলেন অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের কথা তুলে ধরে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, ‘তিনি শুধু একজন স্বনামধন্য অধ্যাপক-ই নন, তার জ্ঞানগর্ভ ও অভিজ্ঞতালব্ধ গবেষণা, মৌলিক প্রবন্ধ, স্মৃতিকথা এবং সম্পাদিত বহু গ্রন্থ তাকে পাঠকসমাজে করেছে নন্দিত। তার সাহিত্যকর্ম সর্বজনবিদিত; তার পরিচিতি ও গ্রহণযোগ্যতা দেশ ও দেশের বাইরে পরিব্যাপ্ত। আমি এই জীবন্ত কিংবদন্তিকে ব্যক্তিগতভাবে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানাচ্ছি।’

ঢাকা আহ্‌ছানিয়া মিশনের প্রতিষ্ঠাতা খান বাহাদুর আহ্ছানউল্লার নামে ১৯৮৬ সাল থেকে এ পুরস্কার প্রদান করা হচ্ছে। জাতীয় পর্যায়ে উল্লেখযোগ্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এ পর্যন্ত ২৭ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে এ পদক দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০১৯
ইএস/এমএ

ঝুঁকিপূর্ণ পারাপার, বাড়ছে দুর্ঘটনা
বাহুবলে বাস উল্টে ৩ জন নিহত
ড্রেজার মেশিন বিকল, বরিশাল নদীবন্দর এলাকায় খনন বন্ধ
দেউলিয়া আ’লীগ বিএন‌পির বিজয় বাধাগ্রস্ত করতে চায়: ফখরুল
শতভাগ দেশি কর্মীর হাতে তৈরি সিম্ফনি মোবাইল, লক্ষ্য রফতানি


লবণ যেভাবে রক্তচাপ বাড়ায় 
দুই মেয়র প্রার্থীসহ কোকোর কবর জিয়ারত করলেন ফখরুল
তীব্র শীত পঞ্চগড়ে, বাড়ছে শিশু-বৃদ্ধ রোগী
পাল্টে যাচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বাছাই 
রেলের বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তাকে বদলি