ভাগীরথীর কাহিনী নিয়ে প্রকাশিত হলো ‘কিংবদন্তির ভাগীরথী’

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

উপন্যাস ‘কিংবদন্তি ভাগীরথী’র প্রকাশনা উৎসবে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম/ছবি: জি এম মুজিবুর

walton

ঢাকা: পাকিস্তানি সুবেদার সেলিমকে নির্দেশ দেওয়া হয় সবার সামনে ভাগীরথীকে হত্যা করার। এ নির্দেশ পাওয়ার পর দু’জন সিপাহী রশি দিয়ে ভাগীরথীর দুই হাত বেঁধে তাকে মাটিতে ফেলে দেয়। রশির অপর প্রান্ত বেঁধে দেওয়া হয় জিপের সঙ্গে। ইট বিছানো রাস্তার উপর পড়ে যায় ভাগীরথী। ছুটতে থাকে জিপ। পেছনে ছ্যাঁচড়াতে ছ্যাঁচড়াতে যায় ভাগীরথীর শরীর।

মুক্তিযুদ্ধের এমন এক দূর্বিষহ কাহিনী নিয়ে রচিত হয়েছে উপন্যাস ‘কিংবদন্তি ভাগীরথী’। মহান মুক্তিযুদ্ধের সত্য ঘটনা অবলম্বনে এ উপন্যাসটি রচনা করেছেন কথাসাহিত্যিক মণি হায়দার। প্রকাশ করেছে বেহুলা বাংলা।

সোমবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরে অনুষ্ঠিত হলো উপন্যাসটির প্রকাশনা উৎসব। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। আলোচনা করেন বিশিষ্ট নাট্যজন মাসুম রেজা এবং প্রাবন্ধিক ও গবেষক ড. সরকার আব্দুল মান্নান। সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক হাসনাত আবদুল হাই।

আলোচকরা বলেন, ঐতিহাসিক এমন পটভূমি নিয়ে আমাদের আরও সাহিত্যের প্রয়োজন। এ উপন্যাসের পাঠ শেষে আমাদের প্রতিবারই একটি অস্বস্তিতে পড়তে হয়। তবে রচনার মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে নারীদের যে আত্মত্যাগ উঠে এসেছে, তা কিছুটা হলেও সে অস্বস্তি দূর করে। এছাড়া ভাষাগত ব্যবহারের দিক থেকেও খুব চমৎকারভাবে বুনন করা হয়েছে উপন্যাসটি।

প্রধান অতিথি শ ম রেজাউল করিম বলেন, বাঙালির মৌলিক অধিকারের মতো মৌলিক যে সত্তা মুক্তিযুদ্ধ, তাকে অনেকেই গলা টিপে হত্য করার চেষ্টা করেছেন। তবে ভাগীরথীর মতো নারীদের আত্মত্যাগের ইতিহাস আমাদের সেই মৌলিক সত্তাকে আরও সমৃদ্ধ করে। আর মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে ভাগীরথীকে নিয়ে এ ধরনের উপন্যাস একটি অনন্য প্রয়াস বলে আমার মনে হয়।

সভাপতির বক্তব্যে কথাসাহিত্যিক হাসনাত আবদুল হাই বলেন, বাস্তব চরিত্র তুলে ধরতে গিয়ে যখন কোনো উপন্যাস লেখা হয়, তখন তাকে উপন্যাস বলার তুলনায় অনেক সময় ডকুমেন্টারি বলতে হয়। কেননা তাতে তথ্যের এত আধিপত্য থাকে যে, কথাসাহিত্যের রস খুঁজে পাওয়া যায় না। তবে সেদিক থেকে ‘কিংবদন্তি ভাগীরথী’র লেখক খুবই সিদ্ধহস্ত। তিনি তথ্যের নিগূঢ় বন্ধনে কথাসাহিত্যের রস তুলে এসে তাকে দারুণভাবে উপন্যাসে রূপান্তর করেছেন। এটিই তার কৃতিত্ব।

এর আগে আয়োজনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বেহুলা বাংলার প্রকাশক চন্দন চৌধুরী ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন লেখক মণি হায়দার। বেহুলা বাংলা থেকে প্রকাশিত বইটির মূল্য রাখা হয়েছে ২৪০ টাকা।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪০ ঘণ্টা, অক্টোবর ২১, ২০১৯
এইচএমএস/এএ

Nagad
ডুব-সাঁতারে পটু পাখি ডুবুরি
বিশ্বম্ভরপুরে কৃষক লীগের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি
প্যারিসে ইউএস-বাংলার চার্টার্ড ফ্লাইট ৬ জুলাই
আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচলে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ালো ভারত
পাকুন্দিয়ায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে ২ যুবকের মৃত্যু


জুলাইয়ের শেষে চূড়ান্ত পর্যায়ের পরীক্ষায় মডার্নার ভ্যাকসিন
আদাবরে চার মাসের শিশুকে গলা কেটে হত্যা
দেশে ১৫৬১ চিকিৎসক করোনা আক্রান্ত, মোট মৃত্যু ৬৭
বরিশাল বিভাগে নাজিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সই সেরা
মুগদা হাসপাতালে ফটো সাংবাদিকের ওপর হামলা