সৈয়দ শামসুল হককে মযহারুল ইসলাম কবিতা-পুরস্কার প্রদান

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

বাংলা কবিতায় সামগ্রিক অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ কবি সৈয়দ শামসুল হক বাংলা একাডেমী পরিচালিত মযহারুল ইসলাম কবিতা-পুরস্কার ২০১১-এ ভূষিত হয়েছেন। আজ ২৭ নভেম্বর বিকেল ৪টায় একাডেমীর সেমিনার কক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁকে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়।

বাংলা কবিতায় সামগ্রিক অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ কবি সৈয়দ শামসুল হক বাংলা একাডেমী পরিচালিত মযহারুল ইসলাম কবিতা-পুরস্কার ২০১১-এ ভূষিত হয়েছেন। আজ ২৭ নভেম্বর বিকেল ৪টায় একাডেমীর সেমিনার কক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁকে এই পুরস্কার প্রদান করা হয়।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি আসাদ চৌধুরী। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান। পুরস্কার হিসেবে কবি সৈয়দ শামসুল হকের হাতে এক লক্ষ টাকা মূল্যমানের একটি চেক, ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেন অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যাপক জিল্লুর রহমান সিদ্দিকী।

এ সময় মযহারুল ইসলামের স্ত্রী নূরজাহান মযহার, পুত্র চয়ন ইসলাম ও শোভন ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ফোকলোরবিদ, লেখক, গবেষক ও কবি প্রফেসর মযহারুল ইসলামের স্মৃতি রক্ষা এবং বাংলাদেশের মেধাবী, খ্যাতিমান এবং প্রতিভাবান কবিদের অবদানের স্বীকৃতি প্রদানের উদ্দেশ্যে ২০১০ সালে এই পুরস্কার প্রবর্তন করা হয়। প্রতিবছর প্রফেসর মযহারুল ইসলামের জন্মদিনে (১০ই সেপ্টেম্বর) পুরস্কারপ্রাপ্ত কবির নাম ঘোষণা করা হয়। পুরস্কার তহবিলের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ প্রদান করেছেন মযহারুল ইসলামের পরিবার।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে শামসুজ্জামান খান বলেন, মযহারুল ইসলাম কবিতা-পুরস্কার ইতোমধ্যে দেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ সাহিত্য পুরস্কারের মর্যাদা পেয়েছে। এ পুরস্কার যেমন মযহারুল ইসলামের স্মৃতি জাগরুক রাখবে তেমনি কবিদের সৃজনশীল সত্তাকে প্রেরণা যোগাবে। তিনি বলেন, সৈয়দ শামসুল হক বাংলা সাহিত্যের ক্রম-আধুনিক কবি। দেশজনতা ও বিশ্বমুখীনতাকে তিনি একত্রীভূত করেছেন যা সমকালে বিরল।

আসাদ চৌধুরী বলেন, সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক মূলত কবি। তাঁর কবিতা ধারণ করেছে বাঙালির দীর্ঘ গৌরব ও সংগ্রামের ইতিহাস। সাহিত্যের দশদিগন্তকে তিনি তাঁর নিজ করতলে স্থাপন করেছেন অনায়াসেই। তাঁর কাব্যভাষা নিত্য নবায়নশীল।

পুরস্কারপ্রাপ্তির অনুভূতি ব্যক্ত করে কবি সৈয়দ শামসুল হক বলেন, জীবনে অনেক পুরস্কার পেলেও শিক্ষক মযহারুল ইসলামের নামে প্রবর্তিত এ পুরস্কার পেয়ে আমি নতুন প্রেরণা লাভ করেছি। আমাদের সাহিত্যরুচি নির্মাণে মযহারুল ইসলাম যেমন ভূমিকা রেখেছেন তেমনি প্রগতিশীল কবিতা-আন্দোলনেও তাঁর অবদান অবিস্মরণীয়। তিনি বলেন, একজন প্রকৃত কবির প্রধান লক্ষ্য হওয়া উচিত সাহিত্যকে বৃহত্তর মানুষের কাছে নিয়ে যাওয়া এবং সাহিত্যে সে বৃহত্তর মানুষের কথা বলা।

জিল্লুর রহমান সিদ্দিকী বলেন, বাংলা কবিতায় নতুন ব্যঞ্জনা যুক্ত করেছেন সৈয়দ শামসুল হক। নতুনত্বের নেশায় তিনি সদা-উন্মুখ যা উত্তরকালের কবিদের জন্য দৃষ্টান্তস্বরূপ।
পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে মযহারুল ইসলামের স্মৃতিচারণ ও সংগীত পরিবেশন করেন তাঁর পুত্রবধু বিশিষ্ট রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী লিলি ইসলাম।

বাংলাদেশ সময় ১৮৩৪, নভেম্বর ২৭, ২০১১

রূপগঞ্জে চার প্রতিষ্ঠানে অবৈধ গাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন
অবৈধ বালু উত্তোলন: ড্রেজার মেশিন ধ্বংস-জরিমানা
পুলিশের ভুলে একদিন জেল খাটলেন নিরাপরাধ মিজান
মধুপুরে থাই রাষ্ট্রদূতের কৃষি খামার পরিদর্শন
কুষ্টিয়ায় যুবককে কুপিয়ে-পায়ের রগ কেটে হত্যা


ভৈরবে মাদকদ্রব্য অফিসে আগুনের ঘটনায় মামলা 
৯৯৯ ফোন করে বখাটের হাত থেকে রক্ষা পেলো স্কুলছাত্রী
নায়করাজের ৭৯তম জন্মদিন বৃহস্পতিবার
চার কারণে ভোটের নিরাপত্তায় চিন্তার ভাঁজ
রাজাপুরে উপজেলা বিএনপির সভাপতিসহ আটক ২