ভালোবাসা দিবসে বইমেলায় প্রাণের আবেগ

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ভালোবাসা দিবসে বইমেলায় দর্শনার্থীরা-ছবি-ডি এইচ বাদল

walton

গ্রন্থমেলা প্রাঙ্গণ থেকে: তুমি, আমি; আমি, তুমি- এক হয়ে যাওয়ার দিন। যেদিনে প্রিয়জনের চোখে চোখ রেখে, হাত ধরে খুব সহজেই বলে দেওয়া যায়- ‘আমি তোমার সঙ্গে বেঁধেছি আমার প্রাণ’। এমন আবেগে ভেসেই শুরু হলো ভালোবাসা দিবসের গ্রন্থমেলা।  

php glass

একটি দিন ছিল শুধুই ভালোবাসার। প্রিয়জনকে ‘অজানা সাধনে’ পাওয়ার। আর সেই দিনটিতেই ভালোবাসার রঙ লালে অনন্য রঙিন হয়ে উঠলো অমর একুশে বইমেলার সবটুকু অংশ।

বৃহস্পতিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ভালোবাসার মধুর সমর্পণে আবিষ্ট হয়ে গ্রন্থমেলার দ্বার খোলা হয় বিকেলে ৩টায়। ফাগুনের আগুনরাঙা দ্বিতীয় দিনে তীব্র রোদ উপেক্ষা করেও বইমেলা প্রাঙ্গণে ভালোবাসা দিবসে তারুণ্যের উন্মাদনা ছিল লক্ষ করার মতো। প্রিয় মানুষটিকে ভালোবেসে তারা উপহার দিতে শুরু করেছেন কবিতার বই। আর এদিন সবাই যেন ঠিক করে এসেছিলেন প্রিয়জনকে দেখামাত্র কবি নির্মলেন্দু গুণের মতো করে বলে দেবেন- ‘স্ট্রেটকাট ভালোবাসি...’।

মেলা প্রাঙ্গণে কথা হয় পরনে লাল শাড়ি আর খোঁপায় রক্তরাঙা গোলাপ নিয়ে প্রিয় মানুষটির সঙ্গে ঘুরতে আসা হাদিয়া মুবাশশারার সঙ্গে। তিনি বলেন, প্রতিদিনই বইমেলায় আসি। তবে আজ একটু স্পেশাল, ভালোবাসার মানুষটির সঙ্গে এসেছি। অনেক বই কিনবো বলেও ইচ্ছে আছে আজ।

তার সঙ্গে থাকা লাল পাঞ্জাবি পরা ইমরান হোসেন বলেন, সকাল থেকেই ঘুরছি। এবার প্রিয় মানুষটিকে ভালোবেসে বই উপহার দেওয়ার পালা।

বইমেলায় এদিন গল্প, আড্ডা আর মিষ্টি খুনসুটিতে প্রতিটি যুগল কাটাবে অনিন্দ্যসুন্দর একটি দিন। ১লা ফাল্গুনের পর ভালোবাসা দিবসেও বইমেলা সরব হবে বলে আশা করছে প্রকাশকরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯                       
এইচএমএস/আরআর

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: বইমেলা
ইফতার করা হলো না দম্পতির
না’গঞ্জে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় প্রাণ গেলো কিশোরের
সিইপিজেডে ফ্যাক্টরির আগুন নিয়ন্ত্রণে
ধারাবাহিকতা ধরে রাখাই লক্ষ্য মাশরাফির
১২ ঘণ্টা পর সচল সিলেট-তামাবিল সড়ক


গরমে আমে ফ্রুট বোরার আক্রমণ, ক্ষতি হচ্ছে ভাটার ধোঁয়াতেও
লোকসভায় তারকাদের হার-জিত
ওয়ালটনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর মাশরাফি
শতবর্ষী বৃদ্ধা ধর্ষণ, ধর্ষক কিশোরের স্বীকারোক্তি 
থাইল্যান্ড যাচ্ছে জাতীয় ফুটবল দল