শামসুর রাহমানের সঙ্গে আবু হাসান শাহরিয়ার

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

জীবনানন্দোত্তর বাংলা কবিতার বৃহত্তম অধ্যায় শামসুর রাহমান। জীবদ্দশায়ই তার পাঠকপ্রিয়তা ছিল কিংবদন্তিতুল্য। লোকান্তরিত হওয়ার পরও তাতে ভাটা পড়েনি। দীর্ঘ ত্রিশ বছরের ঘনিষ্ঠতার সুবাদে শামসুর রাহমানকে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণের সুযোগ পেয়েছেন কবি আবু হাসান শাহরিয়ার।

জীবনানন্দোত্তর বাংলা কবিতার বৃহত্তম অধ্যায় শামসুর রাহমান। জীবদ্দশায়ই তার পাঠকপ্রিয়তা ছিল কিংবদন্তিতুল্য। লোকান্তরিত হওয়ার পরও তাতে ভাটা পড়েনি। দীর্ঘ ত্রিশ বছরের ঘনিষ্ঠতার সুবাদে শামসুর রাহমানকে নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণের সুযোগ পেয়েছেন কবি আবু হাসান শাহরিয়ার। এ নিবিড় পর্যবেক্ষণকে সামনে রেখেই এবারের মেলায় ভাষাচিত্র থেকে বের হয়েছে আবু হাসান শাহরিয়ারের নতুন বই ‘আমরা একসঙ্গে হেঁটেছিলাম’।

সূচিপত্রে প্রবন্ধ, মুক্তগদ্য, সংলাপ, অভিভাষণ, প্রাসঙ্গিক ও জীবনবৃত্তান্ত শিরোনাম দিয়ে বইটিকে বিষয় অনুযায়ী ছয়টি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এর মধ্যে ‘শামসুর রাহমান : কালের ঈগল ডানার বিস্তার’ ও ‘প্রশ্নশীল শামসুর রাহমান’ নামে দুটি গুরুত্বপূর্ণ প্রবন্ধ স্থান পেয়েছে। রয়েছে ‘কাশশাদা চুলে তার শতাব্দীর ভ্রমণকাহিনী’ ও ‘তোমরা কি অন্ধকারপ্রিয়’ শিরোনামে শামসুর রাহমানকে নিয়ে আবু হাসান শাহরিয়ারের স্মৃতিচারণ।

এছাড়া বইটি পাঠ করার ভেতর দিয়ে পাঠকরা পাবেন দুই প্রজন্মের দুই কবির মধ্যে ভাবনাবিনিময়মূলক সংলাপ, যার একটিতে অংশ নিয়েছিলেন আয়ওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারন্যাশনাল রাইটিং প্রোগ্রামের ট্রান্সলেশন কো-অর্ডিনেটর ক্যারোলিন ব্রাউন।

‘আমরা একসঙ্গে হেঁটেছিলাম’ বইটিকে বলা যায়, উত্তরসাধকের চোখে পূর্বসাধকের বহুমাত্রিক প্রতিকৃতি। বইটি কবিতাপ্রেমীদের জন্য তো বটেই, সাহিত্যের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের জন্যও অবশ্যপাঠ্য।

বাংলাদেশ সময় ০০৩৫, ফেব্রুয়ারি ২৪,  ২০১১

দেশসেরা সমবায় হবে ধলঘাট সমিতি
হাতিয়ায় মেঘনার তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের উদ্বোধন
মাধবদীতে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে গ্রেফতার ৮
মেয়াদের মধ্যে কাজ করার নির্দেশ পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর
ভারতীয় উপ-হাইকমিশনারকে ডেকে পাল্টা প্রতিবাদ পাকিস্তানের


১৫তম বেসিস সফটএক্সপো শুরু ১৯ মার্চ
সাতক্ষীরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে মা সমাবেশ 
সাহাবউদ্দিন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে নিয়োগ
সিডিএ’র কাজের গতি বাড়াতে বললেন পূর্তমন্ত্রী
সুরঞ্জিত-দেবেশ চন্দ্র ভট্টাচার্য স্মরণে সভা