ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৪ আগস্ট ২০২০, ১৩ জিলহজ ১৪৪১

শিল্প-সাহিত্য

সাতক্ষীরায় রবীন্দ্র উৎসব

‘রবীন্দ্রনাথের কবিতা জঙ্গিবাদ, দুর্বৃত্তায়ন সন্ত্রাসবাদ থেকে জাতিকে মুক্তি দিতে পারে’

মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জ্বল, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-১২-১৮ ০৬:৪১:২২ পিএম
‘রবীন্দ্রনাথের কবিতা জঙ্গিবাদ, দুর্বৃত্তায়ন সন্ত্রাসবাদ থেকে জাতিকে মুক্তি দিতে পারে’

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর মহাপরিচালক, সাংবাদিক, সংস্কৃতি-ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী বলেছেন, রবীন্দ্রনাথ আমাদের প্রাণের কবি, স্বাধীনতার কবি, ফ্যাসিবাদবিরোধী ও মানবতার কবি। তিনি বলেন, রবীন্দ্রনাথের কবিতা জঙ্গিবাদ, দুর্বৃত্তায়ন, সন্ত্রাসবাদ থেকে জাতিকে মুক্তি দিতে পারে।



তিনি ১৮ ডিসেম্বর শনিবার সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমীতে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের দেড়শতম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে দিনব্যাপী রবীন্দ্র উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। কামাল লোহানী আরও বলেন, দেশের প্রতিটি স্তরে বাংলা ভাষার ব্যবহার নিশ্চিত করা না গেলে রবীন্দ্রচর্চাই বৃথা হয়ে যাবে। তিনি বলেন, কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে দুই বাংলাকে পৃথক করা গেলেও রবীন্দ্রসাহিত্যকে আলাদা করা সম্ভব নয়।

সাতক্ষীরার এই রবীন্দ্র-উৎসব দুই বাংলার বরেণ্য কবি-সাহিত্যিকদের এক মিলনমেলায় পরিণত হয়। রবীন্দ্র উৎসব উদযাপন কমিটির আয়োজনে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আবদুস সামাদ। আলোচনা করেন যোগাযোগ মন্ত্রণালয়সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার শেখ মুজিবুর রহমান এমপি, শিল্পকলা একাডেমীর পরিচালক আবদুল মান্নান হাওলাদার, কবি কাজী রোজী,  কলকাতার কবি ও প্রাবন্ধিক ড. কানাই সেন, ড. অমিতাভ চক্রবর্তী, কবি অভিজিৎ বিশ্বাস, কবি নৃপেন চক্রবর্তী, কবি গোপাল চক্রবর্তী, ড. দীপক চক্রবর্তী, খায়রুল বাসার প্রমূখ।

ঢাকার বাইরে জেলা শহরে এ ধরনের রবীন্দ্র উৎসব হওয়ায় আলোচকরা সন্তোষ প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানে কবি-সাহিত্যিক, সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ অংশ নেন। আলোচনা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শিল্পীরা রবীন্দ্রসঙ্গীত পরিবেশন করেন।

বাংলাদেশ সময় ২০২৩, ডিসেম্বর ২৩, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa