মেদ কমবে এক সপ্তাহে

4249 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
পেটে বাড়তি মেদ শুধু দুশ্চিন্তার কারণই নয়, বরং স্বাস্থের জন্যও ক্ষতিকারক। মেদের কারণে হয়তো আপনার বহুদামি পোশাকটিও সঠিকভাবে মানানসই হচ্ছে না। তাই না?

পেটে বাড়তি মেদ শুধু দুশ্চিন্তার কারণই নয়, বরং স্বাস্থের জন্যও ক্ষতিকারক। মেদের কারণে হয়তো আপনার বহুদামি পোশাকটিও সঠিকভাবে মানানসই হচ্ছে না। তাই না?

পেটের বাড়তি মেদ কমাতে প্রতিদিন কত কিছুই না করছেন। মানতে হচ্ছে কঠিন নিয়ম-কানুন। যদি বলি যে বেশি দিন কেন, মাত্র এক সপ্তাহে এই বাড়তি মেদ কমানো সম্ভব তবে কি অবাক হবেন?

খুব সহজ কিছু উপায় অবলম্বণেই এক সপ্তাহের মধ্যে কমে যাবে পেটের বাড়তি মেদ। চলুন তবে জেনে নিই।



খাবার ভালোভাবে চিবিয়ে খান

খাবার খাওয়ার সময় ভালোভাবে চিবিয়ে খান। এতে খাবার ভালোভাবে হজম হবে, সঙ্গে পেটে গ্যাসও জমবে না।



লবণ এড়িয়ে চলুন

মেদ কমানোর সহজ উপায় হলো খাদ্যে লবণের আসক্তি দূর করা। কারণ সোডিয়াম মেদ জমতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে সামুদ্রিক লবণ ব্যবহার করতে পারেন। তবে লবণ যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলাই ভালো।



চিনিকে না বলুন

চিনি দ্রুত মেদ বাড়ায়। তাই চায়ে চিনি বা সুগার সিরাপ খাবেন না। চিনি খাওয়া বন্ধ করুন। এতে করে গ্লুকেগন হরমোন নিঃসরণ হবে। এই হরমোন অতিরিক্ত চর্বি গলাতে সাহায্য করে।




এক্সারসাইজ
প্রতিদিনই শরীর থেকে ঘাম ঝরান। পারলে জিমে গিয়ে এক্সারসাইজ করুন বা বাসায় এরোবিক্সও করতে পারেন। সম্ভব না হলে সকালে ও বিকেলে জোরে জোরে ১৫ থেকে ২০ মিনিট করে হাঁটুন। এক সপ্তাহ পর আয়নায় তফাতটা খুব সহজেই বুঝতে পারবেন।



দুপুর ও রাতের মাঝে খান

লাঞ্চ ও ডিনারের মধ্যবর্তী লম্বা সময়ের কোনো এক অংশে উচ্চ প্রোটিন ও ভিটামিন ‘সি’ সমৃদ্ধ স্ন্যাকস খান। তবে তাতে যেন ক্যালরির মাত্রা কম থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। নিয়ম অনুযায়ী প্রতি চারঘণ্টা পর পর খাওয়া উচিত। এতে রক্তে সুগারের মাত্রা ঠিক থাকে ও একসঙ্গে বেশি খাওয়া হয় না বলে মেদও জমে না।



খাদ্য রুটিন

আমাদের দেশের রীতি অনুযায়ী সকালে হালকা নাস্তা ও দুপুরে এবং রাতে ভারি খাবার খাওয়া হয়। কিন্তু এটি সম্পূর্ণ ভুল। বরং সকালের নাস্তাটাই ভারি হওয়া প্রয়োজন। কারণ আমাদের সকালের খাবারই সারাদিন শরীরে শক্তি যোগায় ও কর্মক্ষম রাখে।

অন্যদিকে, দুপুরের খাবার অপেক্ষাকৃত ভারি হওয়া প্রয়োজন। সারাদিন কাজের ফলে ক্যালরি হ্রাস পায়। সবশেষে রাতের খাবার একেবারেই হালকা হওয়া উচিত। কারণ রাতে মূলত খাওয়ার পরপরই সবাই ঘুমিয়ে পরে ফলে খাবার শরীরেরই জমা থাকে। ক্যালরি ক্ষয় হয় না। বিধায় মেদ জমে।



ঘুম নিয়ন্ত্রণ করুন

স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য পর্যাপ্ত ঘুমের বিকল্প নেই। কিন্তু দিনে না ঘুমানোই ভালো। এতে শরীরে মেদ জমে। ঘুম ছাড়া বিছানায় শুয়ে থাকবেন না। ক্লান্ত লাগলে ২০ মিনিটের বিউটি স্লিপ নিতে পারেন।

বাংলাদেশ সময়: ০১২৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৫

৩ হাজার কর্মহীন মানুষের মধ্যে এমপি কমলের ত্রাণ বিতরণ 
ঝুঁকিপূর্ণ সাঁকোই ভরসা দুই উপজেলার ২০ হাজার মানুষের 
অসহায় মানুষের পাশে স্মারক সংগ্রাহক জসিম
মাগুরায় যুবকের গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার
কক্সবাজার সৈকতের বালিয়াড়ি তৈরিতে হচ্ছে সাগরলতা বনায়ন 


ঠাকুরগাঁওয়ে করোনা সন্দেহে ১৪ জনের নমুনা সংগ্রহ 
নদী তীরের মাটি কাটায় সোয়া লাখ টাকা জরিমানা
ব্যক্তি উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ করলো ‘সহযোগী’
উপোস থাকবে না রাস্তার কুকুরগুলোও
দেশের ৯ জেলায় ছড়িয়েছে করোনা সংক্রমণ