ঢাকা, শনিবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ রজব ১৪৪২

ফুটবল

রোনালদো কি সত্যিই সর্বোচ্চ গোলের বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন?

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৪৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২১, ২০২১
রোনালদো কি সত্যিই সর্বোচ্চ গোলের বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন? ইতালিয়ান সুপার কাপের শিরোপা হাতে রোনালদো/ছবি: সংগৃহীত

ইতালিয়ান সুপার কাপে নাপোলির বিপক্ষে জুভেন্টাসের ২-০ গোলে জেতা ম্যাচে ক্যারিয়ারের ৭৬০তম গোলের দেখা পেয়েছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। দেশ ও ক্লাবের জার্সিতে এটাই সবচেয়ে বেশি গোলের বিশ্বরেকর্ড বলে দাবি করা হচ্ছে।

কিন্তু সত্যিই কি রেকর্ডের প্রকৃত মালিক এই পর্তুগিজ উইঙ্গার?

ফুটবল ক্যারিয়ারে রোনালদোর গোলসংখ্যা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। স্পোর্টিং লিসবনের হয়ে ৫টি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে ১১৮টি, রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে ৪৫০টি, জুভেন্টাসের জার্সিতে ১০২ এবং পর্তুগালের হয়ে এখন পর্যন্ত ১০২টি গোল করেছেন তিনি। কিন্তু সন্দেহের কারণ তার পুরনো প্রতিদ্বন্দ্বীদের রেকর্ড।  

'রেকর্ড স্পোর্টস সকার স্ট্যাটিকটিস ফাউন্ডেশন' (আরএসএসএসএফ) নামের এক ফুটবলীয় পরিসংখ্যান বিষয়ক প্রতিষ্ঠানের তথ্য অনুসারে 'বিবিসি' দাবি করেছে, (শীর্ষ পর্যায়ে না খেলা ফুটবলারদের বাদ দিয়ে) জোসেফ বিকেন এখন সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলের মালিক। ৫৩০ ম্যাচের ফুটবল ক্যারিয়ারে বিকেনের গোলসংখ্যা ৮০৫টি। ব্রাজিলের সাবেক ফুটবলার রোমারিওর গোলসংখ্যা ৭৭২টি এবং তারই স্বদেশী কিংবদন্তি পেলের গোলসংখ্যা ৭৬৭টি।

২০০১ সালে পরপারে পাড়ি জমানো বিকেন ১৯৩১ থেকে ১৯৫৫ সালের মধ্যবর্তী সময়টা ক্লাব ক্যারিয়ারে র‍্যাপিড ভিয়েনা এবং স্লাভিয়া প্রাহার হয়ে খেলেছেন। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তিনি অষ্ট্রিয়া এবং চেকোস্লোভাকিয়ার জার্সিতে খেলেছেন। কিন্তু তার ৮০৫টি গোলের মধ্যে ২৭টি গোল ছিল র‍্যাপিড ভিয়েনার রিজার্ভ এবং অ্যামেচার দলের হয়ে। কিছু ম্যাচ আবার ছিল আন-অফিশিয়াল আন্তর্জাতিক ম্যাচ।  

ওই গোলগুলো বাদ দিলে বিকেনের মোট গোলসংখ্যা দাঁড়ায় ৪৯৫ ম্যাচে ৭৫৯টিতে। আরএসএসএসএফ জানিয়েছে, ১৯৫২ সালে চেক দ্বিতীয় বিভাগের বেশকিছু ম্যাচের তথ্য হারিয়ে যাওয়ায় বিকেনের গোলসংখ্যার সঠিক পরিসংখ্যান পাওয়া সম্ভব নয়। পেলে ও রোমারিওর ক্ষেত্রেও ব্যাপারটা অনেকটা একইরকম। দুই ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকারই দাবি করেন তাদের গোলসংখ্যা ১ হাজারেরও বেশি।  

সম্প্রতি বার্সেলোনা ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসি এক ক্লাবের জার্সিতে পেলের গড়া ৬৪৩ গোলের রেকর্ড ভেঙেছেন। কিন্তু ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তির সাবেক ক্লাব সান্তোস দাবি করেছে, প্রীতি ম্যাচের গোল হিসাব করলে তার মোট গোলসংখ্যা দাঁড়ায় ১০৯১টিতে। পেলের নিজের ইনস্টাগ্রামের পরিচিতির অংশে লেখা রয়েছে, সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা (১২৮৩)।  

কিন্তু প্রীতি ম্যাচ এবং আন-অফিসিয়াল গোল (১৯৫৯ সালে মিলিটারি দলের হয়ে গোলসহ) বাদ দিলেও সান্তোসের হয়ে ৭৫৭ গোল এবং নিউইয়র্ক কসমসের হয়ে করা গোল মিলিয়ে পেলের গোলসংখ্যা হাজারের আশেপাশেই থাকবে নিশ্চিত।  

এদিকে ২০০৭ সালে ক্যারিয়ারের ১ হাজারতম গোল উদযাপন করেন রোমারিও। কিন্তু এগুলোর মধ্যে বয়সভিত্তিক দলের হয়ে খেলা ম্যাচ, প্রীতি এবং প্রদর্শনী ম্যাচের গোলও যুক্ত করা হয়েছে। সাবেক ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকারের ৭৪৫ স্বীকৃত গোল এসেছে মূলত দক্ষিণ আমেরিকা, ইউরোপ, এশিয়া এবং অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন ক্লাবের হয়ে খেলা শীর্ষ পর্যায়ের ম্যাচগুলো থেকে। যদিও তার গোলসংখ্যা নিয়ে বিতর্ক রয়েই গেছে।

ফলে সবমিলিয়ে চিন্তা করলে, হয়তো রোনালদোই সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা। তবে নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়। তবে এটা নিশ্চিত যে বার্সা ও আর্জেন্টিনার জার্সিতে ৭১৯ গোল করা মেসি নিশ্চিতভাবেই ৪১ গোলে পিছিয়ে আছেন। কারণ তার গোলগুলোর পরিসংখ্যান অফিসিয়ালি সংরক্ষিত আছে। ফলে রোনালদো ও মেসির মধ্যে কে রেকর্ডের মালিক হবেন তা নিয়ে সন্দেহ করার সুযোগ থাকবে না।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২১, ২০২১
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa