১৫ কোটি বছরের পুরনো কঙ্কাল ২০ কোটি টাকা!

ফিচার ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

২.৩ মিলিয়ন ইউরোতে বিক্রি হওয়া কঙ্কাল। ছবি: সংগৃহীত

কিছু জিনিস পুরনো হলেই বরং দামে বাড়ে। তেমনই একটি বস্তু ডায়নোসরের কঙ্কাল। সোমবার (৪ জুন) প্যারিসের আইফেল টাওয়ারে অনুষ্ঠিত এক নিলামে একটি বিরল প্রজাতির ডায়নোসোরের কঙ্কাল বিক্রি হয়েছে ২.৩ মিলিয়ন ইউরোতে (বাংলাদেশি টাকায় ২০ কোটি টাকারও বেশি)

php glass

২০১৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ইয়োমিংয়ে কঙ্কালটি আবিষ্কার হয়। বিজ্ঞানীদের মতে, হাড়গুলো ‘কার্নিভারাস অ্যালোসোরাস’ গোত্র থেকে সৃষ্টি হওয়া নতুন প্রজাতির একটি ডায়নোসোরের। প্রায় ১৫ কোটি বছর আগের কঙ্কালটির ৭০ শতাংশই অক্ষত রয়েছে। 

কঙ্কালটি কিনে নিয়েছেন একজন ফরাসি আর্টকালেক্টর। প্রাগৈতিহাসিক পৃথিবীর এ নিদর্শনটি কোনো জাদুঘরে প্রদর্শনীর জন্য ধার দিতে আগ্রহী তিনি।

প্রায় নয় মিটার লম্বা কঙ্কালটির উচ্চতা আড়াই মিটার। জুরাসিক যুগের শেষ দিকে বেঁচে ছিল এর মালিক।

নিলামের আয়োজক এরিক মিকেলার জানান, এখনপর্যন্ত আবিষ্কার হওয়া এই প্রজাতির ডায়নোসোরের এটিই একমাত্র ফসিল। 
২.৩ মিলিয়ন ইউরোতে বিক্রি হওয়া কঙ্কাল। ছবি: সংগৃহীত
ডায়নোসোর বিশেষজ্ঞ এরিক জেনেস্ট কঙ্কালটি পরীক্ষা করে জানান, এটা অ্যালোসোরাস গোত্রের কোনো ডায়নোসোর নাও হতে পারে। কারণ অ্যালোসোরাসদের তুলনায় এই ডায়নোসোরের কাঁধের হাড় লম্বা এবং দাঁতের সংখ্যা ভিন্ন। 

ফরাসি নিলামঘর আগুত্তেসের এই নিলামে টেলিফোনে অংশ নিয়েছিলেন জাপান ও সুইডেনের সংগ্রাহকরা। কিন্তু তাদের ডাক ১.৮ মিলিয়ন ইউরোর ওপরে ওঠেনি। একই নিলামঘর ২০১৬ সালে একটি অ্যালোসোরাস জাতের ডায়নোসোরের কঙ্কাল বিক্রি করেছিল ১.১ মিলিয়ন ইউরোতে (প্রায় ১০ কোটি টাকা)।

এবারের কঙ্কাল বিক্রি বাবদ প্রাপ্ত লভ্যাংশ প্রত্নতাত্ত্বিক গবেষণার কাজে অর্থায়ন করা হবে বলে জানায় নিলাম সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ সময়: ১১০৮ ঘণ্টা, জুন ০৫, ২০১৮
এনএইচটি

‘বোনাস মোল্লা’র ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস
বাঘাইছড়ি যাচ্ছে ৭ সদস্যের তদন্ত কমিটি
বিশ্বের সুখী দেশ ফিনল্যান্ড, অসুখী দক্ষিণ সুদান
উপজেলা নির্বাচনে দ্বিতীয় ধাপে ভোট পড়েছে ৪১.২৫ শতাংশ
চুয়াডাঙ্গায় বিজিবি-বিএসএফ ফায়ারিং প্রতিযোগিতা


আইনমন্ত্রী আনিসুল হক রাজশাহী যাচ্ছেন বোবরার
পাবনায় বলাৎকারের দায়ে যুবকের ১০ বছরের কারাদণ্ড
শতবর্ষী কার্জন হলে অনুষ্ঠিত হলো নাট্যোৎসব
রাজশাহীতে শেষ হলো তিন দিনব্যাপী বিজ্ঞান মেলা
চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে বিভাগীয় কমিশনার মাহমুদ