ঢাকা, শনিবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৭, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৫ রজব ১৪৪২

বিনোদন

আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের চলে যাওয়ার দুই বছর

নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০৫২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২১
আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের চলে যাওয়ার দুই বছর আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল

দুই বছর হয়ে গেলো সংগীতজ্ঞ আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল নেই। শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী বাংলা সংগীতের উজ্জ্বল এই নক্ষত্রের।

গুণী গীতিকবি, সুরকার-সংগীত পরিচালক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের চলে যাওয়ার এ দিনটিতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছেন অনেকেই।

২০১৯ সালের ২২ জানুয়ারি ভোরে রাজধানীর আফতাব নগরে নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। মৃত্যুর আগে থেকেই তিনি হৃদযন্ত্রের জটিলতায় ভুগছিলেন।

১৯৫৭ সালের ১ জানুয়ারি ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। ১৯৭১ সালে মাত্র ১৫ বছর বয়সে তিনি মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।  

অডিও-সিনেমা মিলিয়ে অসংখ্য জনপ্রিয় ও কালজয়ী গান উপহার দিয়েছে তিনি। দেশাত্মবোধক গান সৃষ্টিতেও তিনি ছিলেন অনন্য। ‘সব কটা জানালা খুলে দাও না’, ‘সেই রেল লাইনের ধারে’, ‘ও মাঝি নাও ছাইড়া দে ও মাঝি পাল উড়াইয়া দে’, ‘সুন্দর সুবর্ণ তারুণ্য লাবণ্য’র মত জনপ্রিয় দেশাত্মবোধক গানগুলোতে তাঁর দেওয়া সুর বাংলাদেশের মানুষের হৃদয়ে স্পন্দন তুলবে চিরদিন।  

তিন দশকেরও বেশি সময়ের সংগীত ক্যারিয়ারে বহু সংখ্যক চলচ্চিত্রের সংগীত পরিচালনা করেছেন তিনি। এর মধ্যে ‘নয়নের আলো’, ‘দেশ প্রেমিক’, ‘প্রেমের তাজমহল’, ‘আম্মাজান’, ‘ইতিহাস’ অন্যতম।

সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে অনন্য অবদানের জন্য আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল রাষ্ট্রীয় সর্বোচ্চ সম্মান একুশে পদক, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, রাষ্ট্রপতির পুরস্কারসহ অসংখ্য সম্মাননায় ভূষিত হন।

বাংলাদেশ সময়: ১০৫২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০২১
ওএফবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa