ঢাকা, শনিবার, ১৫ কার্তিক ১৪২৭, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বিনোদন

আবু হেনা মোস্তফা কামাল’র মৃত্যুবার্ষিকী, গুরুর সুরে শিষ্যের গান

নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১১১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০
আবু হেনা মোস্তফা কামাল’র মৃত্যুবার্ষিকী, গুরুর সুরে শিষ্যের গান আবু হেনা মোস্তফা কামাল, শিল্পী বিশ্বাস ও সুজিত মোস্তফা

আবু হেনা মোস্তফা কামাল। তিনি ছিলেন একাধারে শিক্ষাবিদ, কবি-গীতিকবি ও লেখক, উপস্থাপক, বাগ্মী, প্রাবন্ধিক-প্রবন্ধ গবেষক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব এবং দক্ষ প্রশাসক।

এর মধ্যে কবি ও গীতিকবি হিসেবে তিনি সর্বাধিক পরিচিত।

বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) একুশে পদকপ্রাপ্ত গুণী এই গীতিকবির ৩১তম মৃত্যুবার্ষিকী।  বিশেষ এই দিনে কবির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে প্রকাশ পাচ্ছে তারই লেখা অপ্রকাশিত একটি গান, যেটির সুর করেছেন তার সুযোগ্য সন্তান ও বিশিষ্ট নজরুলসংগীত শিল্পী-গবেষক সুজিত মোস্তফা। আর গানটি কণ্ঠে তুলেছেন সুজিত মোস্তফার সংগীতশিষ্য শিল্পী বিশ্বাস।

কতোটুকু নিয়ে গেছো, জানলে না তাও/আমিও বলিনি অভিমানে/সেই ভালো চিরতরে, যদি ভুলে যাও- এমন কথার গানটি ‘কতোটুকু নিয়ে গেছো’ শিরোনামে প্রকাশ পাচ্ছে দেশের প্রথম সারির অডিও-ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সি সিরিজ মিউজিক’র ইউটিউব চ্যানেলে।

এই গান প্রসঙ্গে শিল্পী বিশ্বাস বাংলানিউজকে বলেন, ‘আমার পরম সৌভাগ্য, শ্রদ্ধেয় আবু হেনা মোস্তফা কামালের লেখা গান কণ্ঠে তুলতে পেরেছি স্যারের সুরে (সুজিত মোস্তফা)। সবচেয়ে বড় কথা হলো, স্যারের সুরে তারই বাবার লেখা একটি গান গাইতে পারা, তাও আবার গানটি প্রকাশ পাচ্ছে শ্রদ্ধেয় আবু হেনা মোস্তফা কামাল স্যারের প্রয়াণ দিবসে। ’

শিল্পী বিশ্বাস আরও বলেন, ‘স্যার (সুজিত মোস্তফা) গানটা সুর করার পর সাবিনা ইয়াসমীন আপাকে দিয়ে গাওয়াতে চেয়েছিলেন। কিন্তু গানটার প্রতি আমার ভালোলাগা প্রকাশের পর তিনি আর আমাকে না করতে পারেননি। বলা যায়, গানটা আমি বিনয়ের সঙ্গে উনার কাছ থেকে চেয়ে নিয়েছি। স্যারের প্রতি অনেক কৃতজ্ঞতা- এমন একটি গান আমার কণ্ঠে তুলে দেওয়ার জন্য। আর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে শ্রদ্ধেয় আবু হেনা মোস্তফা কামাল স্যারের প্রতি আমার বিনম্র শ্রদ্ধা। ’

১৯৩৬ সালে ১৩ তৎকালীন পাবনা জেলার (বর্তমানে সিরাজগঞ্জ) গোবিন্দা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন গীতিকবি আবু হেনা মোস্তফা কামাল। তার লেখা জনপ্রিয় গানের মধ্যে রয়েছে- ‘তুমি যে আমার কবিতা’, ‘অনেক বৃষ্টি ঝরে’, ‘নদীর মাঝি বলে’, ‘অপমানে তুমি জ্বলে উঠেছিলে সেদিন’, ‘এই বাংলার হিজল তমালে’, ‘আমি সাগরের নীল’, ‘তোমার কাজল কেশ’ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।  

 ১৯৮৭ সালে গীতিকবিতা তথা সাহিত্যকর্মে বিশেষ অবদানের জন্য একুশে পদক লাভ করেন আবু হেনা মোস্তফা কামাল। ১৯৮৯ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন গুণী এই গীতিকবি।

বাংলাদেশ সময়: ১১১১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০
ওএফবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa