৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন জি-সিরিজের

নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

অনুষ্ঠানে কেক কাটছেন অতিথিরা।

walton

প্রতিষ্ঠার ৩৭ বছর পূর্তি উদযাপন করা হলো দেশের শীর্ষস্থানীয় অডিও-ভিডিও প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জি-সিরিজের। সেইসঙ্গে ৩৮ বছরে পা দিয়েছে খ্যাতনামা এ প্রতিষ্ঠানটি।

মঙ্গলবার (০৩ মার্চ) জি-সিরিজের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। দীর্ঘ দিনের সাফল্যমণ্ডিত পথচলা উদযাপন করে নিতে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ে আয়োজন করা হয় বিশেষ অনুষ্ঠানের। যেখানে জি-সিরিজ এবং এর অঙ্গ-প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মকর্তা-কর্মচারী, সংগীত জগতের শিল্পী, কলাকুশলী ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা অংশ নেন। 
 
প্রতিষ্ঠানটিকে শুভেচ্ছা জানাতে উপস্থিত হন- কিংবদন্তি সংগীত তারকা প্রিন্স মাহমুদ, সংগীতশিল্পী তপু, বেলাল খান, শেখ শাহেদ, ব্ল্যাক ব্যান্ডের সদস্য ও জি-সিরিজের সিইও খাদেমুল জাহান, সংগীত পরিচালক নমন, মেহেদী, হাবলু, কিশোর পলাশ, সংগীত পরিচালক রাজন সাহা, সচী শামস প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন জি-সিরিজের কর্ণধার নাজমুল হক ভূঁইয়া খালেদ।

এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে তারকা কিংবা অতিথিদের বক্তব্য নয়, অনুষ্ঠানে প্রাধান্য পেয়েছে জি-সিরিজের সঙ্গে বহু দিন ধরে যারা যুক্ত, সেই সব কর্মকর্তাদের কথা। যারা নিজেদের জীবনের স্বর্ণালী সময় জি-সিরিজকে দিয়ে আজকের অবস্থানে নিয়ে এসেছেন।

এর ফাঁকেও কয়েকজন তারকা জি-সিরিজকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। সংগীতশিল্পী তপু বলেন, জি-সিরিজ আসলে আমারই পরিবার। এ জি-সিরিজের অঙ্গ-প্রতিষ্ঠান জি টেকনোলজির সঙ্গে আমি অনেক বছর ধরে যুক্ত। জি-সিরিজ আরও অনেক দূর এগিয়ে যাক, এ শুভকামনা থাকলো।অনুষ্ঠানে অতিথিরা।শেখ শাহেদ বলেছেন, আমাদের একটা নিঃশ্বাস ফেলার জায়গা আছে। সেটা হচ্ছে জি-সিরিজ। যেখানে এসে আমরা আনন্দ-আড্ডায় নিজেদের সুন্দর সময়গুলো কাটাতে পারি। আমি জি-সিরিজের কর্ণধার নাজমুল হক ভূঁইয়া খালেদের কাছে অনুরোধ করবো, এ ব্রিথিং স্পেসটা যেন সবসময় থাকে।

প্রতিষ্ঠানটির ভবিষ্যৎ কাণ্ডারি সরোজ বলেছেন, আপনারা সবসময় আমাদের যেই ভালোবাসা ও সহযোগিতা দিয়ে এসেছেন, সেটা আগামীতেও অব্যাহত থাকবে বলে আমার বিশ্বাস। অনুষ্ঠানে উপস্থিত সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা।

তাদের বক্তব্যের পরে কেক কেটে উদযাপন করা হয় জি-সিরিজের ৩৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর। কেক কাটেন প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার নাজমুল হক ভূঁইয়া খালেদ ও প্রিন্স মাহমুদসহ প্রমুখ। পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন মোরসালিন আলিফ জিয়ন। 

শিল্প অনুরাগী নাজমুল হক ভূঁইয়া খালেদ ১৯৮৩ সালে এ প্রতিষ্ঠানের যাত্রা শুরু করেন। তার মেধা, মনন এবং বলিষ্ঠ নেতৃত্বে জি-সিরিজ এখন দেশের প্রথম সারির একটি প্রযোজনা সংস্থা হিসেবে সুনামের সঙ্গে এগিয়ে চলছে। শুরু থেকেই দেশজ শিল্প-সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে গুরুত্ব দেওয়ার পাশাপাশি দেশসেরা নন্দিত সংগীতশিল্পীসহ নতুন প্রজন্মের প্রতিভা বিকাশেও অনন্য অবদান রেখে চলেছে জি-সিরিজ।

বাংলাদেশ সময়: ০০৫০ ঘণ্টা, মার্চ ০৪, ২০২০
ওএফবি/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: বিনোদন
রাতের আঁধারে বাড়ি বাড়ি খাবার নিয়ে সাংবাদিক ইদ্রিস
বগুড়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুবককে পিটিয়ে হত্যা
একা প্লেনে করে মায়ের কাছে ফিরলো পাঁচ বছরের বিহান
২০০ এতিম শিশুদের নিয়ে ঈদ উদযাপন
নজরুলজয়ন্তীতে ছায়ানটের নিবেদন


মঈনুল আহসান সাবেরের জন্ম
ইতিহাসের এই দিনে

মঈনুল আহসান সাবেরের জন্ম

চট্টগ্রামে ঈদের দিন করোনায় আক্রান্ত ১৭৯ জন
গান-আড্ডায় করোনা রোগীদের ঈদ উদযাপন ফিল্ড হাসপাতালে
প্লেন চালুর শুরুতেই ধাক্কা ভারতে, একের পর এক ফ্লাইট বাতিল
দেশবাসীকে ঘরে থাকার আহবান খালেদা জিয়ার