অর্থমন্ত্রীর কাছে ২০০ কোটি টাকা চাইলেন আলমগীর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

‘নতুন মুখের সন্ধানে’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন অর্থমন্ত্রী ও আলমগীর। ছবি: রাজীন চৌধুরী

অর্থমন্ত্রীর কাছে আমার ছোট একটি অনুরোধ আছে। তার কাছ থেকে জানতে পেরেছি, এবার বাজেট হয়েছে চার লাখ পঁয়ষট্টি হাজার কোটি টাকা। এদেশের প্রেক্ষাগৃহগুলোকে ডিজিটাল করতে এবং আমাদের চলচ্চিত্রকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরতে সেখান থেকে মাত্র ২০০ কোটি টাকা দেওয়া হোক। আমরা জানি, তিনি উদার। 

রোববার (১৬ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ পরিচালক সমিতি আয়োজিত ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ শীর্ষক অনুষ্ঠানের উদ্বোধনীর সময় এ দাবির কথা জানান প্রখ্যাত চিত্রনায়ক আলমগীর।

এই অভিনেতা এসময় আরও বলেন, আমাদের চলচ্চিত্রে অনেক সমস্যা রয়েছে। আমরা চলচ্চিত্র নির্মাণ করছি ডিজিটাল পদ্ধতিতে। কিন্তু এখনও শতভাগ ডিজিটাল হতে পারিনি। আমাদের অনেক অত্যাধুনিক মেশিন থাকার পরও দুর্ভাগ্যবশত এখনও অনেক মেশিন ইন্সটলই করতে পারিনি।

রাজধানীর একটি পাঁচ তারকা হোটেলে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, তথ্য প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট তারানা হালিম, তথ্য সচিব আবদুল মালেক, সংস্কৃতি সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ, পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজারসহ চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট অনেকে।

‘নতুন মুখের সন্ধানে’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। ছবি: রাজীন চৌধুরী

অতিথির বক্তব্যে অর্থমন্ত্রী বলেন, ২৮ বছর পর ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ অনুষ্ঠানটি হচ্ছে। সবাই এর অনেক প্রশংসা করেছেন। এর আগে তিনবার এই কার্যক্রম হয়েছে বলে আমি জানতে পেরেছি। এবারও এটা বেশ ভালো ভূমিকা রাখবে বলে আমি মনে করি।

চলচ্চিত্রের বর্তমান অবস্থান সম্পর্কে অর্থমন্ত্রী বলেন,  আমাদের চলচ্চিত্র এখনও তেমন একটা অবস্থান তৈরি করতে পারেনি। এদেশের সাংস্কৃতিক ও সাহিত্যিক কর্মকাণ্ডের তুলনায় আমাদের চলচ্চিত্র অনেক পেছনে পড়ে আছে।

প্রেক্ষাগৃহ ডিজিটাল করা ও চলচ্চিত্রের উন্নয়নের জন্য অর্থ চাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সাধারণত কোনো অনুষ্ঠানে আমি এসব বিষয় সরাসরি কোনো ঘোষণা করি না। পরে একসময় হয়তো সেগুলোর একটা কিছু ব্যবস্থা হয়। কিন্তু আমি নিশ্চিত অর্থের অভাবে কখনও এরকম উদ্যোগ ব্যর্থ হয়নি।

অনুষ্ঠান শেষে ‘নতুন মুখের সন্ধানে’র ওয়েবসাইটে প্রতীকী রেজিস্ট্রেশনের মধ্য দিয়ে কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী।

‘নতুন মুখের সন্ধানে’র ৪তম আসর উৎসর্গ করা হয়েছে প্রয়াত চিত্রনায়ক মান্নাকে। এর আগে ১৯৮৪ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএফডিসি) তিনবার এ কার্যক্রম চালিয়েছে। এর মাধ্যমেই পর্দায় এসে জনপ্রিয় হয়েছিলেন প্রয়াত নায়ক মান্না, প্রয়াত চিত্রনায়িকা দিতি, সোহেল চৌধুরী, খল-অভিনেতা মিশা সওদাগর, অমিত হাসান ও আমিন খানের মতো তারকারা।

বাংলাদেশে সময়: ০১১২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৮
জেআইএম/এনএইচটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চলচ্চিত্র
ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়লেন মেসি
রোনালদোর ৪০০ গোলের মাইলফলকেও জয়বঞ্চিত জুভেন্টাস
ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেনকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান
৭ প্রকল্পে মিলেছে সৌদি ঋণ, পাইপ লাইনে ৪ প্রকল্প
আলফ্রেড নোবেলের জন্ম
ইতিহাসের এই দিনে

আলফ্রেড নোবেলের জন্ম

শেষ মুহূর্তে ম্যানইউ’র হোঁচট, কোচের ধ্বস্তাধস্তি 
হেড-নেক ক্যান্সার প্রতিরোধে তামাক দ্রব্য পরিহার
গণতন্ত্র রক্ষায় সবকিছু করতে প্রস্তুত আ.লীগ
রাবিতে মাথাচাড়া দিয়েছে ভর্তি জালিয়াত চক্র
দুর্বল বার্নলিকে উড়িয়ে দিয়ে শীর্ষে গার্দিওলার সিটি