হুমায়ূন আহমেদের ঈদের নাটক পরিচালনা করছেন জুয়েল রানা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

নুহাশ চলচ্চিত্রের প্রাণপুরুষ নন্দিত কথাশিল্পী হুমায়ূন আহমেদ কোলন ক্যানসারের চিকিৎসা নিতে এ মুহূর্তে অবস্থান করছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়ার্কে। তার সঙ্গে রয়েছেন দুই শিশু পুত্র সন্তানসহ স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন। তাদের অবর্তমানে এ মুহূর্তে নুহাশ চলচ্চিত্রের কর্মকান্ড পরিচালনা করছেন জুয়েল রানা।

নুহাশ চলচ্চিত্রের প্রাণপুরুষ নন্দিত কথাশিল্পী হুমায়ূন আহমেদ কোলন ক্যানসারের চিকিৎসা নিতে এ মুহূর্তে অবস্থান করছেন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়ার্কে। তার সঙ্গে রয়েছেন দুই শিশু পুত্র সন্তানসহ স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন। তাদের অবর্তমানে এ মুহূর্তে নুহাশ চলচ্চিত্রের কর্মকান্ড পরিচালনা করছেন জুয়েল রানা। দীর্ঘদিন ধরে তিনি হুমায়ূন আহমেদের বিভিন্ন নাটকের প্রধান সহকারী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

সম্প্রতি চ্যানেল আইয়ের যুগপূর্তিতে প্রচারিত হয়েছে জুয়েল রানার পরিচালনায় হুমায়ূন আহমেদ রচিত নাটক ‘আংটি’। আসছে ঈদে প্রচারের জন্য হুমায়ূন আহমেদ অসুস্থ অবস্থার মধ্যে অন্যসব লেখার পাশাপাশি লিখেছেন নাটক। যার পরিচালনায় থাকছেন জুয়েল রানা।

সম্প্রতি জুয়েল রানা বাংলানিউজ অফিসে এসেছিলেন। জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের সর্বশেষ অবস্থাসহ মিডিয়া নিজের বিভিন্ন কর্মকান্ড সম্পর্কে তিনি জানান বাংলানিউজকে।

জুয়েল রানা জানান, হুমায়ূন আহমেদের সঙ্গে তিনি নিয়মিতই যোগাযোগ রাখছেন ফোনে এবং এসএমএসের মাধ্যমে। নিউইয়ার্কের বিশ্বখ্যাত ক্যান্সার চিকিৎসা কেন্দ্র মেমোরিয়াল স্লোয়ান কেটারিং সেন্টারে চিকিৎসাধীন হুমায়ূন আহমেদের সঙ্গে সর্বশেষ জুয়েল রানার কথা হয় দুদিন আগে। প্রথমবার কেমোথেরাপি নেওয়ার পর লেখকের শারীরিক অবস্থা বেশ ভালোই আছে। তবে খাওয়া দাওয়া তার বেশ সমস্যা হচ্ছে। তরল জাতীয় খাবার ছাড়া কিছুই খেতে পারছেন না। বিশ্রাম নেওয়ার ফাঁকেই হুমায়ূন আহমেদ এখন লিখে চলেছেন। শিগগিরই তাকে দ্বিতীয় কেমোথেরাপি দেওয়া হবে। কোরবানীর ঈদের জন্য নাটক নির্মাণের প্রস্তুতি নিতে জুয়েল রানাকে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

চ্যানেল আইয়ের যুগপূর্তিতে প্রচার হওয়া হুমায়ূন আহমেদ রচিত ‘আংটি’ নাটকটি প্রশংসিত হয়েছে দর্শকদের কাছে। সেই সঙ্গে জুয়েল রানা উঠে এসেছেন আলোচনায়। অবশ্য এটিই জুয়েল রানা পরিচালিত প্রথম নাটক নয়। এর আগে হুমায়ূন আহমেদ রচিত আরো ৫টি নাটক তার পরিচালনায় বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচারিত হয়েছে। নাটক ৫টি হলো ‘হাবিবের সংসার’, ‘এনায়েত আলীর ছাগল’, ‘আজ দুপুরে তোমার নিমন্ত্রণ’ ও ‘রেলগাড়ি ঝমাঝম’।

হুমায়ূন আহমেদের জন্মস্থান নেত্রকোনার জুয়েল রানা। বাবার নাম নিজাম উদ্দিন, মা বেগম রোকেয়া। স্কুল জীবনেই জারিগান আর পালাগান গেয়ে স্থানীয়ভাবে সুপরিচিত হয়ে উঠেন। নেত্রকোনা আঞ্জুমান সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি পাশ করে ঢাকায় আসেন।

ভর্তি হন সরকারী কলেজে। ঢাকায় থিয়েটার স্কুল আর শিল্পকলা একাডেমীতে নাটকের উপর ওয়ার্কশপ করেন। হুমায়ূন আহমেদের বড় বোন সুফিয়া হায়দার ছিলেন জুয়েল রানার শিক্ষক। তিনিই হুমায়ূন আহমেদের সঙ্গে জুয়েলের পরিচয় করিয়ে দেন। সেই থেকে সহকারী হিসেবে কাজ করা শুরু। কাজ দিয়েই সহকারী থেকে হয়ে উঠেছেন প্রধান সহকারী পরিচালক। এ পর্যন্ত হুমায়ূন আহমেদের সঙ্গে প্রায় একশ’র কাছাকাছি নাটকে জুয়েল রানা কাজ করেছেন। শুধু তাই নয়, হুমায়ূন আহমেদের বহু নাটকেই বিভিন্ন চরিত্রে তাকে অভিনয় করতে দেখা গেছে।

এ প্রসঙ্গে জুয়েল রানা বাংলানিউজকে বলেন, লোকসঙ্গীত আর মঞ্চের সঙ্গে জড়িত ছিলাম বহুদিন। তবে মিডিয়ায় যা কিছু শিখেছি সবই হুমায়ূন আহমেদের সংস্পর্শে এসে। মিডিয়ায় আমার জন্ম নুহাশ চলচ্চিত্রেই। আগামী দিনেও স্যারের পাশে থেকে নুহাশ চলচ্চিত্রের হয়ে কাজ করতে চাই।

হুমায়ূন আহমেদের স্বঘোষিত শেষ ছবি ‘ঘেটুপুত্র কমলা’-তেও জুয়েল রানা প্রধান সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন। ছবিটি সম্পর্কে তিনি বললেন , চমৎকার একটি ছবি হয়েছে ‘ঘেটুপুত্র কমলা’। একটি গানের রেকর্ডিং ছাড়া ছবিটির সব কাজই শেষ। গানটি হয়ে গেলে প্রিন্টের জন্য ব্যাংকক যাবো। তারপর এটি সেন্সর বোর্ডে যাবে। তবে সবই হবে স্যার সুস্থ হয়ে দেশে ফিরে আসার পর।
‘ঘেটুপুত্র কমলা’ কী হুমায়ূন আহমেদের শেষ ছবি? জানতে চাইলে জুয়েল রানা বললেন, এখন পর্যন্ত স্যার তার সিদ্ধান্ত বদলান নি। আমরা তাকে বহুবার সিদ্ধান্ত বদলাবার অনুরোধ করেছি। কিন্তু তিনি তাতে সম্মতি দেন নি। উল্টো বরং তিনি আমাকে তার উপন্যাসের চলচ্চিত্ররূপ দেওয়ার জন্য উৎসাহ দিচ্ছেন।

জুয়েল রানা জানালেন, হুমায়ূন আহমেদের প্রেমের উপন্যাস ‘কৃষ্ণপক্ষ’-কে তিনি চলচ্চিত্ররূপ দিতে চান। এ বিষয়ে হুমায়ুন আহমেদও সম্মতি জানিয়েছেন। তিনি নিজে এই জনপ্রিয় উপন্যাসটির চিত্রনাট্য লিখে দেবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন দীর্ঘদিনের সহকারীকে।

জুয়েল রানা আরো জানালেন, যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসাধীন থাকলেও আসছে কোরবানীর ঈদে হুমায়ূন আহমেদের একাধিক নাটক বিভিন্ন চ্যানেলে দেখা যাবে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় হুমায়ূন আহমেদ ঈদের জন্য লিখছেন একাধিক নাটক। লেখা শেষ হওয়অ মাত্রই নাটকের স্ক্রিপ্ট তিনি জুয়েল রানাকে পাঠাবেন বলে জানিয়েছেন। জুয়েল রানার পরিচালনায় এবারের ঈদে টিভিপর্দায় প্রচারিত হবে অসুস্থ অবস্থায় লেখা হুমায়ূন আহমেদের একাধিক নাটক।

বাংলাদেশ সময় ০০৩৫, অক্টোবর ০৪, ২০১১

লেবার পার্টির শ্যাডো কেবিনেটে টিউলিপ
ফায়ার সার্ভিসের ল্যান্ড ফোন বিকল
মিরপুর ও নারায়ণগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি ভয়ংকর
ঢাকার বাইরে করোনা রোগী বেড়েছে
এটিএম বুথগুলোর সামনে ‘সামাজিক দূরত্ব’ মানা হচ্ছে না!


ফেনীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু
বগুড়ায় হতদরিদ্রদের ৫০ বস্তা চালসহ কৃষক লীগ নেতা আটক
সাহায্যের জন্য নগদ অর্থ সংগ্রহ করবেন না: মুখ্যমন্ত্রী
সিলেটে প্রবাস ফেরত যুবককে কুপিয়ে খুন
নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন বাসার ছাদে সারারাত জামাতে নামাজ আদায়