বিব্রত ও বিস্মিত বিপাশা হায়াত

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

নন্দিত অভিনেত্রী বিপাশা হায়াত আজকাল অভিনয় করছেন খুব কমই। নাটক লেখার প্রতিই জোর দিচ্ছেন বেশি। হালে তাতে দেখা যাচ্ছে উপস্থাপনায়। উপস্থাপনার কাজটি করতে গিয়ে সম্প্রতি বিব্রতকর অবস্থা মধ্যে পড়ে গেছেন।

নন্দিত অভিনেত্রী বিপাশা হায়াত আজকাল অভিনয় করছেন খুব কমই। নাটক লেখার প্রতিই জোর দিচ্ছেন বেশি। হালে তাতে দেখা যাচ্ছে উপস্থাপনায়। উপস্থাপনার কাজটি করতে গিয়ে সম্প্রতি বিব্রতকর অবস্থা মধ্যে পড়ে গেছেন। বিপাশা হায়াতের গ্রন্থনা ও উপস্থাপনায় প্রচারিত একটি অনুষ্ঠানকে নিয়ে স্যাটেলাইট চ্যানেল আরটিভি আর বাংলাভিশনের মধ্যে তৈরি হয়েছে টানাপোড়েন।

চলতি বছরের ৫ এপ্রিল থেকে আরটিভিতে বিপাশা হায়াতের পরিকল্পনা ও সঞ্চালনায় প্রতি মঙ্গলবার রাত ৯টা ৫০ মিনিটে প্রচার শুরু হয়  বিপাশা হায়াতের উপস্থাপনায় শিল্প-সংস্কৃতি  ভিত্তিক অনুষ্ঠান ‘বিপাশার সঙ্গে’। এতে দেশীয় শিল্প-সংস্কৃতি ও মিডিয়ার নানাদিক নিয়ে সেলিব্রিটি অতিথিরা আলোচনা করেন। পাশাপাশি আলোচিত বিষয়ের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ কিছু ক্লিপিংস এবং বিশ্বের খ্যাতিমান শিল্পীদের অনুষ্ঠানটিতে তুলে ধরা হয়। অনুষ্ঠানটির নির্বাহী প্রযোজক ও প্রযোজক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন যথাক্রমে রবিশঙ্কর মৈত্রী ও কমল সরকার। অনুষ্ঠানটির ১৮টি পর্ব আরটিভিতে প্রচারিত হওয়ার পর হঠাৎ করেই তা বন্ধ হয়ে যায়।

এবারের রোজার ঈদে বাংলাভিশনে একই বিষয় ও কাঠামো নিয়ে বিপাশা হায়াতেরই উপস্থাপনায় প্রচার শুরু হয় ‘বিপাশার অতিথি’ নামে একটি অনুষ্ঠান। এটি নিয়মিতভাবে বাংলাভিশন চ্যানেলে প্রচার শুরু হয় ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে।  অনুষ্ঠানটি প্রতি বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ০৫ মিনিটে বর্তমানে তারেক আখন্দের প্রযোজনায় বাংলাভিশনে প্রচার হচ্ছে।

এভাবে একটি জনপ্রিয় অনুষ্ঠান হঠাৎ করেই কিছু না জানিয়ে অন্য চ্যানেলে নিয়ে যাওয়ায় আরটিভি কর্তৃপক্ষের তোপের মুখে পড়েছে বাংলাভিশন ও বিপাশা হায়াত।

সম্প্রতি আরটিভি অফিসে এক প্রেস কনফারেন্সে অনুষ্ঠানটি প্রসঙ্গে আরটিভির গবেষণা ও উন্নয়ন ব্যবস্থাপক রবিশঙ্কর মৈত্রী বলেন, এই অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা আমারই ছিল। আমি আগে বাংলাভিশনে কাজ করতাম। সেটি ছেড়ে আরটিভিতে যোগ দেওয়ার প্রায় ৬ মাস পরে আমি বিপাশা হায়াতের সঙ্গে কথা বলে অনুষ্ঠানটির কাঠামো দাঁড় করায়। বিপাশা হায়াত নিজেও তার একান্ত ভালোলাগার জায়গা থেকে এ অনুষ্ঠানটি নিয়ে আরটিভির সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী হয়ে উঠেন এবং তার উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানটির ১৮টি পর্ব আরটিভিতে প্রচারিত হয়। তারপর হঠাৎ করেই দেখি একই বিষয়-কাঠামো নিয়ে গত ঈদে ‘বিপাশার অতিথি’ নামে অনুষ্ঠানটির বিশেষ পর্ব বাংলাভিশনে প্রচার হচ্ছে। পরে আমাদের কিছু না জানিয়েই অনুষ্ঠানটি বাংলাভিশনে নিয়মিতভাবে প্রচার শুরু হয়।

এ বিষয়ে বিস্ময় ও ক্ষোভ প্রকাশ করে রবিশঙ্কর মৈত্রী আরো বলেন, একজন শিল্পীর কাছে একাধিক চ্যানেল থেকে অনুষ্ঠানের প্রস্তাব আসতেই পারে। একই ভাবনায় নির্মিত একটি শৈল্পিক অনুষ্ঠান একাধিক চ্যানেলে বিক্রি করা, কোন ধরনের শৈল্পিকতার মধ্যে পড়ে আমার জানা নেই।  পারিশ্রমিক নিয়েও আমাদের সঙ্গে কোনো কথা বা দরকষাকষি হয়নি। পুরো বিষয়টি আমাদের কাছে বিস্ময়কর।

বিষয়টি প্রসঙ্গে বাংলাভিশনের প্রোগ্রাম হেড শামীম শাহেদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, বিপাশা হায়াতকে নিয়ে বাংলাভিশন একটি সেলিব্রিটি শোর পরিকল্পনা করে বছর দেড়েক আগে। বাংলাভিশনে সে সময় কাজ করতেন রবিশঙ্কর মৈত্রী। প্রযোজক হিসেবে তাকে বিপাশা হায়াতের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা অনুষ্ঠানটি দাঁড় করানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়। । এমনকি অনুষ্ঠানটির নামও ঠিক করা হয় `বিপাশার অতিথি`।  পরে বাংলাভিশন ছেড়ে রবিশঙ্কর মৈত্রী আরটিভিতে যোগ দেন। কিন্তু বিপাশা হায়াতের কাছে এটি প্রকাশ না করে অনুষ্ঠানটি নিয়ে আলোচনা চালিয়ে যান । চুড়ান্ত পর্যায়ে গিয়ে জানান তিনি আরটিভির জন্য কথা বলছেন।

শামীম শাহেদ আরো বলেন, বিপাশা হায়াত পরবর্তীতে তার এই না-জানার বিষয়টি আমাকে জানিয়েছিলেন। সিদ্ধান্ত নেওয়ার দায়িত্বটা আমি তাকেই গ্রহণ করতে অনুরোধ জানাই। একই সঙ্গে জানিয়ে দেই, তিনি যদি বাংলাভিশনে অনুষ্ঠানটি করতে চান, সেই দরোজাও খোলা আছে। রবিশঙ্কর মৈত্রীর সঙ্গে শুরু থেকে অনুষ্ঠানটি নিয়ে আলাপ-আলোচনা হওয়ায় বিপাশা হায়াত আরিটিভিতেই অনুষ্ঠানটি করার সিদ্ধান নেন। পরবর্তীতে তার অনুষ্ঠানটি নিয়ে আরটিভির উদাসিনতায় তিনি বাংলাভিশনে অনুষ্ঠানটি করতে আগ্রহী হন। আমরা তাকে স্বাগত জানাই এবং ‘বিপাশার অতিথি’ নামে বাংলাভিশনে অনুষ্ঠানটি প্রচার শুরু হয়।
Bipasha_haiat_3
আরটিভি বিপাশা হায়াতকে যে পরিমাণ সম্মানী দিয়েছে, বাংলাভিশন একই অনুষ্ঠানের জন্য তাকে দ্বিগুণ সম্মানী দিচ্ছে। এটাকে শামীম শাহেদ পুরোপুরোই ভিত্তিহীন বলে উল্লেখ করেন। তিনি জানান, বিপাশা হায়াত এ অনুষ্ঠানটির জন্য দুই চ্যানেলেই সমান সম্মানী নিচ্ছেন। সম্মানীর অংক বাড়াতে চ্যানেল পরিবর্তনের অভিযোগটি মোটেও সত্য নয়।

এক চ্যানেল থেকে অন্য চ্যানেলে অনুষ্ঠানটি নিয়ে যাওয়া প্রসঙ্গে বিপাশা হায়াতের কাছে জানতে চায় বাংলানিউজ। তিনি বলেন, অনুষ্ঠানটি আমি শুধু উপস্থাপনা করছি তা নয়। পরিকল্পনা এবং  গ্রন্থনাও আমার করা। এমনকি অতিথিদেরও অনেক সময় ফোন করে অনুষ্ঠানে আনতে হয়। কিন্তু অনেক উৎসাহ নিয়ে কাজ শুরুর পর অনুষ্ঠানটি নিয়ে আরটিভির উদাসিনতা আমার চোখে পড়ে। অনুষ্ঠানটি আরো আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য আরটিভি থেকে আমি প্রয়োজনীয় সহযোগিতা পাই নি। উল্টো বরং আমাকে জানানো হয় অনুষ্ঠানটি  আমি যেভাবে করতে চাচ্ছি, তারা সেভাবে ভাবছেন না। এমনকি প্রযোজক অনুষ্ঠানটির প্রচার বন্ধের ব্যাপারেও আমাকে ইঙ্গিত দেন।

বিপাশা হায়াত আরো বলেন, নিজের নামে ব্যান্ডিং করা জনপ্রিয় অনুষ্ঠানটির অপমৃত্যু আমি চাই নি। আরটিভির অসহযোগিতার মুখেই আমি বাংলাভিশনে অনুষ্ঠানটি করা শুরু করি। একটি প্রেস কনফারেন্সে তাকে দোষারোপ করার বিষয়টি সম্পর্কে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে বিপাশা হায়াত জানান, আরটিভি কর্তৃপক্ষেও এ ধরনের অসৌজন্যমূলক আচরণে তিনি বিব্রত ও বিস্মিত ।

বাংলাদেশ সময় ০১১৫, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০১১

লেবার পার্টির শ্যাডো কেবিনেটে টিউলিপ
ফায়ার সার্ভিসের ল্যান্ড ফোন বিকল
মিরপুর ও নারায়ণগঞ্জে করোনা পরিস্থিতি ভয়ংকর
ঢাকার বাইরে করোনা রোগী বেড়েছে
এটিএম বুথগুলোর সামনে ‘সামাজিক দূরত্ব’ মানা হচ্ছে না!


ফেনীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু
বগুড়ায় হতদরিদ্রদের ৫০ বস্তা চালসহ কৃষক লীগ নেতা আটক
সাহায্যের জন্য নগদ অর্থ সংগ্রহ করবেন না: মুখ্যমন্ত্রী
সিলেটে প্রবাস ফেরত যুবককে কুপিয়ে খুন
নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন বাসার ছাদে সারারাত জামাতে নামাজ আদায়