ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ মাঘ ১৪২৭, ২৮ জানুয়ারি ২০২১, ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

বিনোদন

পিপলি লাইভ: আমির খানের নতুন মিশন

জাবেদ ইকবাল | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৩৪০ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০১০
পিপলি লাইভ: আমির খানের নতুন মিশন

২০১০ সালে তার কোনো নতুন ছবি মুক্তি পাবে না । কিন্তু তাই বলে কি বসে থাকবেন ! নাহ, তা হয় না।

বসে থাকার লোক তিনি নন। পুনরায় নেমে পড়েছেন যুদ্ধে। হ্যাঁ, বলিউডের পারফেকশনিস্ট খ্যাত আমির খানের কথা বলছিলাম। চলতি সময়টা বেশ ভালোই যাচ্ছে তার। তাইতো একের পর এক ভিন্ন স্বাদের ছবি উপহার দিচ্ছেন। সেই ধারাবাহিকতার এবারও ব্যতিক্রম হয় নি।

এবারও আরেকটা বড় চমক নিয়ে দর্শকদের সামনে এসেছেন আমির খান। তবে অভিনয়ের মাধ্যমে নয়, প্রযোজক হিসেবেই চমক সৃষ্টি করেছেন তিনি। ‘থ্রি ইডিয়টস’ এর দুনিয়াজোড়া সাফল্যের পর আমির খান এবার নিজে অভিনয় না করে দণি ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে শুরু হয়ে উত্তর ভারতের কয়েকটি রাজ্যে মনোবল হারানো কৃষকদের আত্মহত্যার পেছনে ছুটেছেন। এই গণ আত্মহত্যাকে কেন্দ্র করে প্রশাসন আর মিডিয়ার কারসাজির গল্পগুলো তুলে ধরতে ক্যামেরার পিছনে বিনিয়োগ করেছেন। বিষয়বস্তুই বলে দেয়, এ ছবির অচিরেই মাইলস্টোন হয়ে থাকার সম্ভাবনা প্রায় শতভাগ। ছবিটির নাম ‘পিপলি লাইভ’।

আমির খান প্রযোজিত এ ছবির কাহিনীটা সত্যিই অসাধারণ । ছোট একটি গ্রামের নাম পিপলি,  আর সেখান থেকেই ছবির গল্প শুরু। এ গ্রামের দুই গরীব কৃষক প্রবল খরার কবলে পড়লে ঋণ নিতে বাধ্য হয়। তারপর সেই ঋণ শোধ করার উপায় না পেয়ে তারা যখন হাবুডুবু খাচ্ছে, তখন এক রাজনৈতিক নেতা তাদের আত্মহত্যা করতে বুদ্ধি দেন। আত্মহত্যা করলে তাদের পরিবার যে তিপূরণ পাবে তাতেই শোধ হয়ে যাবে ঋণ, বাড়তি টাকাও থাকবে পরিবারের হাতে। দিশেহারা দুই কৃষক ঐ নেতার পরামর্শ অনুসরণ করা ছাড়া উপায় খুঁজে পায় না। এদিকে এক সাংবাদিক পুরো ব্যাপারটা জেনে যায়।   এ বিষয়ে গণমত গড়ে তোলার দায়িত্ব কাঁধে নেয়। এই ঘটনা নিয়ে প্রশাসন আর মিডিয়ায় ঘটতে থাকে নানা কারসাজি। ছবির গল্প শুনে মনে হতেই পারে, না জানি কতো গুরুগম্ভীর ছবি। কিন্তু ছবিতে গুরুতর এইসব  মানবিক বিষয় তুলে ধরা হয়েছে হাস্যরসের মধ্যে দিয়ে।

ছবিটি সম্পর্কে আমির খান বলেন, পরিচালক আনুশা রিজভি একতিন আমার কাছে এসে কথায় কথায় কৃষকদের আতœহত্যার পশ্চাদপটটি ব্যাখ্যা করে। পুরো বিষয়টা জানার পর ভীষণ আগ্রহ জাগে আমার। তারপরেই এই ছবির কথা ভাবি। আসলে শহরে বসে গ্রামের মানুষদের জীবন, তাদের সমস্যার কথা আমরা কিছুই বুঝতে পারি না, জানিও না। সেই গ্রাম শহরের পার্থক্যের ছবিই এই ‘পিপলি লাইভ’।

‘পিপলি লাইভ’-এর পরিচালক আনুশা রিজভির জন্য এটিই হবে প্রথম ছবি পরিচালনা। ভদ্রমহিলা আগে পেশায় ছিলেন এনডিটিভির সাংবাদিক । তুখোড় টিভি রিপোর্টার হিসেবে তার পরিচিতি ও খ্যাতি ছড়িয়ে আছে সারা ভারতে। সাংবাদিকতা জীবনের বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকেই তিনি ‘পিপলি লাইভ’ ছবিটির চিত্রনাট্য রচনা করেন। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রদর্শিত হয়েছে এ ছবিটি। তারমধ্যে ডারবান আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে পুরোপুরি সাড়া ফেলে দেয় ‘পিপলি লাইভ’ , আর তাই জীবনের প্রথম ছবিটি করেই পরিচালক পেয়ে  গেলেন ‘শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র’এর পুরস্কার। উৎসবের জুরিমন্ডলির মন্তব্য, বর্তমান ভারতের সামাজিক ও রাজনৈতিক ঘটনাকে যেন বিদ্রুপ করা হয়েছে এ ছবিতে। তাছাড়া বাহারি চরিত্র, বৈচিত্রময় সংগীত এবং বুদ্ধিমত্তার মিশ্রণে তৈরি করা হয়েছে এক অসাধারণ ছবি বলে দর্শকরা জানিয়েছেন। তারই পরিপ্রেেিত আসন্ন অস্কারে জমা দেওয়ার ল্েয যুক্তরাষ্ট্রেও মুক্তি দেওয়া হচ্ছে।

ছবিতে অভিনয়ে করেছেন ওমাকার দাস মানিকপুরি, রাঘুবীর যাদব, মালাইকা সিনয়, নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী ও মধ্যপ্রদেশের অনেক আদিবাসী।

বিখ্যাত ইকনমিক টাইমস এর চলচ্চিত্র সমালোচক মীনাী শেডের মতে - শ্রেণী, জাতপাত, মিডিয়া আর রাজনীতির সমন্বয়ে এক বিস্ফোরক ককটেল তৈরি করছেন আমির। যার নাম ‘পিপলি লাইভ’।

উল্লেখ্য, ‘পিপলি লাইভ’ আমির খানের প্রযোজনায় চতুর্থ ছবি। তার প্রযোজিত আগের ছবি ‘লগান’, ‘তারে জমিন পার’ এবং ‘জানে তু ইয়া জানে না’। তিনটি ছবিই দর্শক-সমালোচকদের কাছে প্রশংসা, পুরস্কার লাভের পাশাপাশি বক্স অফিসেও ভাল ব্যবসা করেছে। আর তাই স্বাভাবিকভাবেই আমির খান প্রযোজিত এই ছবি দর্শক-সমালোচক সবার মাঝে কৌতুহল সৃষ্টি করেছে।

১৩ আগস্ট ইউটিভি মোশন পিকচার্স এবং আমির খান প্রোডাকশনস ব্যানারে যৌথভাবে মুক্তি  পেয়েছে ‘পিপলি লাইভ’। দেখা যাক প্রযোজক আমির খানের এই নতুন মিশন কতোটা সাফল্য পায়।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময় ১৪৪০, আগস্ট ১৩, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa