ঢাকা, শনিবার, ৩ মাঘ ১৪২৭, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

নির্বাচন ও ইসি

কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচন বুধবার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৩৬ ঘণ্টা, জুলাই ২৪, ২০১৮
কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচন বুধবার

কক্সবাজার:  দীর্ঘ সাড়ে ৭ বছর পর বুধবার (২৫ জুলাই) কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সোমবার (২৩ জুলাই) শেষ হয়েছে প্রচার-প্রচারণা। এখন শুধু সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দেওয়ার জন্য রাত পোহানোর অপেক্ষা।

নিরপেক্ষভাবে ভোটগ্রহণের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে প্রশাসন। ইতোমধ্যেই কক্সবাজার পৌরসভা এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

 

এ বিষয়ে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মোজাম্মেল হোসেন বলেন, পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ডের ৩৯টি কেন্দ্রের স্থায়ী ২২৪টি ও অস্থায়ী ১১টি কক্ষে ৮৩ হাজার ৭২৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে পুরুষ  ৪৪ হাজার ৩৭৩ জন ও নারী ৩৯ হাজার ৩৫৫ জন।  

এবারের নির্বাচনে ৩৯ জন প্রিসাইডিং অফিসারের তত্ত্বাবধানে ২২৪ জন সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার ও ৪৪৮ জন পোলিং এজেন্ট দায়িত্ব পালন করবেন। পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে পাঁচজন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৭ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৬৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

 তিনি আরো বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ২৪ জুলাই (মঙ্গলবার) মধ্যরাত ১২টা থেকে ২৬ জুলাই (বৃহস্পতিবার) সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় বেবী টেক্সি/অটোরিক্সা, ট্যাক্সি ক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, পিকআপ ভ্যান, কার, বাস-ট্রাক ও টেম্পো চলাচল করতে পারবে না। তবে এ নিষেধজ্ঞার বাইরে থাকবে নির্বাচনের সংবাদ সংগ্রহের কাজে নিয়োজিত দেশি/বিদেশি সাংবাদিক (পরিচয়পত্র থাকতে হবে), নির্বাচনের কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য, নির্বাচনের বৈধ পরিদর্শক এবং জরুরি কাজে নিয়োজিত কিছু পরিবহন।

নির্বাচন কর্মকর্তা আরো বলেন, পৌরসভার ৩৯টি কেন্দ্রকেই  গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সেইভাবেই আমরা নির্বাচনের ছক একেছি। এবারের নির্বাচনে ১২ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবে। প্রত্যেক ওয়ার্ডের জন্য ১ জন করে ম্যাজিস্ট্রেট থাকবে। তাদের সঙ্গে থাকবে একজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর মধ্যে ২ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এর ৬টি টহলদল এবং প্রত্যেক কেন্দ্রে ১২ থেকে ১৪ জন করে পুলিশ। প্রতি দুইটি কেন্দ্রের জন্য একটি করে স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে।

এছাড়াও আমর্ড পুলিশ ও আনসার বাহিনীসহ সব মিলে প্রায় এক হাজার আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য নিরাপত্তায় নিয়োজিত থাকবে। পাশাপাশি পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর আরো সদস্য প্রস্তুত থাকবে।

জেলা পুলিশ সুপার ড. ইকবাল হোসেন বলেন, নির্বাচনে প্রায় এক হাজার জন নিরাপত্তা কর্মী মোতায়েন থাকবে। এখানে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে চার স্তুরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে।
 
বাংলাদেশ সময়: ২১২৯ ঘণ্টা, জুলাই ২৪, ২০১৮
টিটি/আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa