বিশেষজ্ঞদের পরামর্শে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত হবে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

কথা বলছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। ছবি- বাংলানিউজ

walton

ঢাকা: দেশে করোনা প্রতিরোধের অংশ হিসেবে প্রয়োজন হলে বিশেষজ্ঞদের মতামতের পরিপ্রেক্ষিতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। 

সোমবার (৯ মার্চ) রাজধানীর জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমিতে (নায়েম) ১৫৮তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী।

দীপু মনি বলেন, করোনাভাইরাস সম্পর্কিত জাতীয় পর্যায়ের বিশেষজ্ঞ প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর'র মতামত অনুযায়ী দেশে এখনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করার মতো পরিস্থিত হয়নি। শিক্ষা মন্ত্রণালয় বিষেশজ্ঞদের মতামতের ভিত্তিতে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা নেবে। 

এরই মাঝে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে করোনা ইস্যুতে সচেতনতামূলক প্রযোজনীয় নির্দেশনা পাঠানো হচ্ছে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী। 

এর আগে গতকাল রোববার (৮ মার্চ) আইইডিসিআর'র জানায়, প্রথমবার দেশে তিনজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ইতালি ফেরত দুইজনের মধ্যে একজনের মাধ্যমে তৃতীয়জনের মধ্যে এই ভাইরাস ছড়ায়।

সোমবার বিকালে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে ‘করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও মোকাবেলা সংক্রান্ত জাতীয় কমিটির সভা’ শেষে প্রয়োজনীয় প্রম্তুতির কথা জানায় সরকার।
 
সভা শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, আমরা চাচ্ছি স্কুল ও কলেজে যাতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার দেওয়া হয়, ছেলেমেয়েরা যাতে ব্যবহার করে। সাবান দিয়ে হোক বা অন্য কেমিকেল দিয়ে হোক হাত পরিষ্কার করুক, এ বার্তাটিও তাদের পরিবারের কাছে যাবে।
 
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, স্কুল এখন স্বাভাবিকভাবে চলবে। যদি পরবর্তী নির্দেশনা অন্য রকম আসে, তাহলে আমরা পরামর্শ দেবো, শিক্ষা মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নেবে।
 
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদিন মন্ত্রিসভার বৈঠকে নির্দেশনা দেন, করোনা ভাইরাস সংক্রামণ রোধে দেশের মানুষকে বড় ধরনের গণজমায়েত এড়িয়ে চলুক।
 
মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে প্রধানমন্ত্রীর এ আহ্বানের কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এবং স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম।
 
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, জেনারেল যে ইনস্ট্রাকশন, সেটা হলো অযথা গ্যাদারিং যেগুলো, অ্যাভয়েড করতে হবে। যে কারণে রিসিডিউল করতে হচ্ছে মুজিববর্ষেরও অনেক প্রোগ্রাম।
 
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনেক গ্যাদারিং হয় এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, কালকে (রোববার) শিক্ষামন্ত্রীও ছিলেন, ওনাকেও ইনস্ট্রাকশন দেওয়া হয়েছে যে, কোনোভাবেই যেন মাস গ্যাদারিং না হয়।
 
মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, করোনা যাতে কোনোভাবে আর স্প্রেড করতে না পারে, সরকার সে দিকে খুব শক্তভাবে নজর দিচ্ছে।
 
স্কুল-কলেজ বন্ধ করা হবে কিনা প্রশ্নে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব বলেন, না, সেই রকম পরিস্থিতি হয়নি। আমার আবেদন এরকমভাবে আতঙ্ক ছড়ানোর কোনো যুক্তি বা ভিত্তি নেই। 

বাংলাদেশ সময়: ১৭১৭ ঘণ্টা, মার্চ ০৯, ২০২০ 
এইচজে

করোনা ইউনিটে নেয়ার পরেই রোগীর মৃত্যু
করোনা: একদিনের বেতন দান করল আইইউবিএটি
স্বাস্থ্যকর্মী-সাংবাদিকদের পিপিই দিবে ‘স্নোটেক্স’
আজমিরীগঞ্জে ৭ খুনের পর ফের সংঘর্ষ
ফেনী শহর জীবাণুমুক্ত করতে মাঠে ফায়ার ব্রিগেড


খাদ্য সহায়তা নিয়ে মধ্যরাতে দরিদ্রদের দরজায় কড়া নাড়ছেন এসপি
বরিশালের বিভিন্ন উপজেলায় ত্রাণ বিতরণ
ফেনীতে নিম্ন আয়ের মানুষের পাশে থাকবে জেলা প্রশাসন
সরকারি কর্মচারীদের দায়িত্ব পালনে মানবিক হওয়ার আহ্বান
ফতুল্লার গার্মেন্টসে শ্রমিক অসন্তোষ