রাবি প্রশাসনের দুর্নীতির অভিযোগপত্র প্রধানমন্ত্রীর দফতরে

রাবি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

walton

রাবি: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) প্রশাসনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি, নিয়োগ বাণিজ্য, স্বজনপ্রীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ এনে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দুর্নীতির বিরুদ্ধে ‘দুর্নীতি বিরোধী শিক্ষক সমাজ’ ব্যানারে আন্দোলনকারী আওয়ামীপন্থি শিক্ষকদের সংগঠন ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের একাংশ এ অভিযোগপত্র জমা দেন। 



প্রায় ৩০০ পৃষ্ঠার এ বিশদ অভিযোগপত্র শিক্ষা মন্ত্রণালয়, দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনেও (ইউজিসি) জমা দেওয়া হয়েছে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান ও উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতির ১৭টি সুনির্দিষ্ট অভিযোগ আনা হয়েছে।

অভিযোগপত্রটি এসব দফতরে জমা দেওয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক সুলতানুল-উল ইসলাম।

অধ্যাপক সুলতানুল-উল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, ৩০০ পৃষ্ঠার এ অভিযোগপত্রে প্রশাসনের বিরুদ্ধে ১৭টি খাতে অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ আনা হয়েছে। এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন প্রমাণও এতে সংযুক্ত করা হয়েছে।

অভিযোগপত্রে রয়েছে, উদ্দেশ্যমূলকভাবে শিক্ষক নিয়োগ নীতিমালার অস্বাভাবিক পরিবর্তন এবং দুর্নীতি করে নিজ কন্যা ও জামাতাসহ বিভিন্ন বিভাগ এবং ইনস্টিটিউটে কম যোগ্যদের শিক্ষক নিয়োগ, উপাচার্যের বাড়ি ভাড়া নিয়ে দুর্নীতি, রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যকে অসত্য তথ্য দিয়ে অবৈধভাবে অবসরগ্রহণ ও পুনরায় দায়িত্ব পালন।

উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়াকে উপ-উপাচার্য নিয়োগ এবং তার নিয়োগ বাণিজ্য, নিয়োগে স্বজনপ্রীতি ও দুর্নীতি, বিভিন্ন বিভাগে সভাপতি নিয়োগে অনিয়ম, উদ্দেশ্যমূলকভাবে অফিসার, সহায়ক ও সাধারণ কর্মচারীদের নিয়োগ নীতিমালার পরিবর্তন এবং গণহারে অযোগ্যদের এডহক নিয়োগদান, উন্নয়নে সমন্বয়হীনতা ও অর্থের অপচয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌন নিপীড়কদের দায়মুক্তি এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ইংরেজি বিভাগে মাস্টার্স পরীক্ষার ফল পরিবর্তন।

এছাড়া মুক্তিযুদ্ধের প্রকল্প বাস্তবায়নে অনীহা ও বাধা, দুষ্কর্মে সহযোগী না হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রকৌশলী সিরাজুম মুনিরকে নিপীড়ন ও বেআইনিভাবে প্রধান প্রকৌশলীর দায়িত্ব হতে অব্যাহতি, মাস্টার প্ল্যান তৈরি প্রকল্পে দুর্নীতি, শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের নিপীড়ন ও অত্যাচারসহ দুর্নীতির বিভিন্ন অভিযোগ আনা হয়েছে।

জানতে চাইলে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক এসএম একরাম উল্লাহ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগের তথ্য-উপাত্ত আমরা জমা দিয়েছি। আমাদের তৈরি তালিকায় এসব অভিযোগ ছাড়াও উপাচার্যের বর্তমান ও অতীতের বেশ কিছু অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার তথ্য-উপাত্ত রয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৭, ২০২০
এসএইচ

কাশিয়ানীতে বালুবাহী ট্রাকচাপায় স্কুল শিক্ষিকার মৃত্যু
অ্যাসাঞ্জকে ক্ষমা করে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন ট্রাম্প
উত্তরের ৩ জেলায় ইউরিয়া সার উত্তোলন বন্ধ
কেশবপুরবাসী রাতে দরজা খুলে ঘুমাবে: শাহীন চাকলাদার
চুড়িহাট্টা ট্র্যাজেডির বর্ষপূর্তি বৃহস্পতিবার


গ্রন্থমেলায় ‘মমতাজউদদীন আহমদ আমার শিক্ষক’
করোনা ভাইরাসে দুই ইরানি নাগরিকের মৃত্যু
সাংবাদিক ফয়েজ আহমেদের প্রয়াণ
এইচআরপিবি’র সাবেক সেক্রেটারির স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত
শহীদ দিবসে আওয়ামী লীগের কর্মসূচি