ভালো সমাজ গঠনে ‘বলাকার’ মতো সংগঠন প্রয়োজন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

র‌্যালি, ছবি: বাংলানিউজ

walton

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি): ভালো সমাজ গঠনে ‘বলাকার’ মতো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খান।

শুক্রবার (১ মার্চ) বিকেলে ঢাবির কলা ভবন সংলগ্ন আমতলায় সংগঠনটির দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

সংগঠনটির সভাপতি আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে এতে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের  সহকারী রেজিস্টার  ডা. আ ন ম নূরে আজম(নাসের)।

বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের চেয়ারম্যান ড. এম বদরুজ্জামান ভূঁইয়া, বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক  শেখ মো. আসলাম, মুক্তবাংলা কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ হাওলাদার।

অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম খান বলেন, আমরা জীবনে একটা জায়গায় বারবার ভুল করি। জীবনযাপনের জন্য কি প্রয়োজন আর কি লক্ষ্য তা আমরা বুঝি না। আর আমাদের লক্ষ্য হলো ভালো মানুষ হওয়া। ‘বলাকার’ মতো সংগঠন সমাজে যতো বেশি গড়ে উঠবে ততো সমাজ ভালো হবে। তাই তরুণ প্রজন্মকে ত্যাগ শিক্ষা দিতে হবে।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাবির কলাভবন থেকে সংগঠনের স্বেচ্ছাসেবী ও আমন্ত্রিত অতিথিরা একটি বণার্ঢ্য র‌্যালি বের করেন। র‌্যালিটি টিএসসি, বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ, ডাকসু হয়ে কলাভবনে শেষ হয়। এছাড়া বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কার্যক্রমও চালায় স্বেচ্ছাসেবীরা।  

ঢাকার বাইরে সংগঠনটির প্রায় ৪৫টি শাখাও প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করে।

অনুষ্ঠানের মিডিয়া পার্টনার ছিল দেশের শীর্ষস্থানীয় নিউজ পোর্টাল বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম।

বাংলদেশ সময়: ১৯৪৫ ঘণ্টা, মার্চ ০১, ২০১৯
এসকেবি/এএটি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
Nagad
করোনা: বগুড়ায় একদিনে সুস্থ ৮২, শনাক্ত ৪৮
ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযান, ৮৬ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা
বাগাতিপাড়ায় ট্রেনের ধাক্কায় এক ব্যক্তির মৃত্যু
ইমরান খানের দলের সামনে ‘অসন্তোষের গ্রীষ্ম’
কারখানায় বৈদ্যুতিক ফাঁদ, সংস্পর্শে একজনের মৃত্যু


অক্টোবরে শুরু মেসি-নেইমারদের বিশ্বকাপ বাছাই
বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা ও উদ্ভাবন বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে
পর্যায়ক্রমে দেশের সব জেলায় বসবে পিসিআর ল্যাব 
এশিয়ার সর্ববৃহৎ সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র উদ্বোধন করলেন মোদী
লকডাউন বাস্তবায়ন না হওয়ায় পরিস্থিতি অবনতি হচ্ছে