গ্রামের কারণেই ফল ভালো হয়েছে: ফাহিমা খাতুন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

বুধবার প্রকাশিত এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল ভালো হওয়ার কারণ হিসেবে গ্রামের ভালেঅ ফলাফলকেই উল্লেখ করেছেন আন্তঃশিক্ষাবোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন।

ঢাকা: বুধবার প্রকাশিত এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল ভালো হওয়ার কারণ হিসেবে গ্রামের ভালেঅ ফলাফলকেই উল্লেখ করেছেন আন্তঃশিক্ষাবোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ফাহিমা খাতুন।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, “এবার সাফল্যের সবচেয়ে বড় কারণ হচ্ছে গ্রামের শিক্ষার্থীদের ভালো ফল।”

তিনি বলেন, “ঢাকা বোর্ডের অন্তর্ভুক্ত ১৭টি জেলার মধ্যে যেগুলোতে গ্রাম রয়েছে বেশি, এরকম ৫টি জেলায় আগে পাসের হার ছিল ৫০ থেকে ৫৮ শতাংশ। কিন্তু এবার সমান্তরালভাবে এসব জেলাতেও পাসের হার ৭০ শতাংশ হয়েছে। ভালো ফলাফলের এটা বড় কারণ।”

গ্রামের ফলাফল ভালো হয়েছে যুক্তি দেখিয়ে তিনি বলেন, “এবার মানবিকে পাসের হার বেড়েছে। ঢাকায় বা অন্য শহরগুলোতে এখন এমন শিক্ষার্থী পাওয়া যাবে না, যারা মানবিক বিভাগে পড়তে চায়। এখন গ্রামের শিক্ষার্থীই বেশি। যেহেতু মানবিকের ফল গতবারের তুলনায় ৬ শতাংশ বেড়েছে, তাই বলতে হবে গ্রামের পরীক্ষার্থীরা এবার ভালো ফল করেছে।”

তবে বাংলা প্রথম পত্র পরীক্ষা সৃজনশীল পদ্ধতিতে হলেও, ভালো ফলাফলে তা তেমন কোনো ভূমিকা রাখেনি বলে জানান ফাহিমা খাতুন।

তিনি বলেন, “বাংলা ১ম পত্রের ফল কোথাও ভালো হয়েছে আবার কোথাও খারাপ হয়েছে। তাই বলা যায় না সৃজনশীল পরীক্ষার কারণেই ফল ভালো হয়েছে।”

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৮ ঘণ্টা, জুলাই ১৮, ২০১২
এমএন/সম্পাদনা: আহমেদ জুয়েল, অ্যাসিসট্যান্ট আউটপুট এডিটর

আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে টাইগাররা
করোনা ও দুর্যোগে গণমাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক মতবিনিময়
একদিনে রেকর্ড ৩২৪ পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত
লালমনিরহাটে মানবিক সহায়তা কার্ডে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ
রোগী ভর্তি নিতে ক্লিনিক মালিকদের অনুরোধ ছাত্রলীগের


সিএমপির কনস্টেবল মামুন করোনা পজিটিভ ছিলেন
বরিশালে বাসে দ্বিগুণ ভাড়া আদায়ে জরিমানা
করোনা উপসর্গ নিয়ে ভৈরবে ৩ জনের মৃত্যু
সরকারি চাকুরেদের নমুনা সংগ্রহ-চিকিৎসা ফুলবাড়িয়া হাসপাতালে
শ্রবণ প্রতিবন্ধীদের মধ্যে যুবলীগের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ