ঢাকা, বুধবার, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৫ রবিউস সানি ১৪৪২

শিক্ষা

বরিশাল বোর্ডে এবারও বরিশাল প্রথম

জেলা প্রতিনিধি | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪১ ঘণ্টা, জুলাই ১৮, ২০১২

বরিশাল: এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ২০১২ সালের ফলাফলে বরিশাল বোর্ডে জেলাভিত্তিক ফলাফলের দিক থেকে এ বছরও প্রথম স্থান ধরে রেখেছে বরিশাল জেলা।

বুধবার প্রকাশিত ফলাফলে বরিশাল শিক্ষা বোর্ডের জেলাভিত্তিক ফলাফলের দিক দিয়ে ৭২ দশমিক ২৩ শতাংশ পাস নিয়ে শীর্ষ স্থানেই রয়েছে এ জেলা।



অন্যদিকে, ৭১ দশমিক ৮০ শতাংশ পাস নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে পিরোজপুর জেলা।

গত বছর ২০১১ সালে সবশেষে থাকা ভোলা জেলা ৬৫ দশমিক ০৪ শতাংশ পাস নিয়ে উঠে এসেছে ৩য় অবস্থানে।

এছাড়া ৬৪ দশমিক ৫৪ শতাংশ পাস নিয়ে ৪র্থ স্থানে ঝালকাঠি জেলা।

৫ম স্থানে রয়েছে পটুয়াখালী জেলা। এ জেলার পাসের হার ৬০ দশমিক ৫৯ শতাংশ এবং

৫৮ দশমিক ২৯ শতাংশ পাস নিয়ে সর্বশেষে রয়েছে বরগুনা জেলা।


বরিশাল: এ জেলায় ৮৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে পরীক্ষায় ১৫ হাজার ২শ ২২ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। এর মধ্যে ছেলে ৭ হাজার ৭শ ৩৩ জন ও মেয়ে ৭ হাজার ৪শ ৮৯ জন।

অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীদের মধ্যে পাস করেছেন ১০ হাজার ৮শ ৪৪ জন। পাসের হার ৭২ দশমিক ২৩ শতাংশ । এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১ হাজার ৪০ জন। এর মধ্যে ছেলেদের পাসের সংখ্যা ৫ হাজার ৫শ ৮১ এবং জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫শ ১৯ জন।

পাস করা ৫ হাজার ২শ ৬৩ জন মেয়ের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৫শ ২১ জন।

পিরোজপুর: ৩৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৬ হাজার ৪০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছেন ৪ হাজার ২শ ৬০ জন। পাসের হার ৭১ দশমিক ৮০ শতাংশ। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২শ ৭৬ জন।

২ হাজার ৮শ ৩৪ জন ছেলে পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ১ হাজার ৯শ ৬৯ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১শ ১৫ জন।

অপরদিকে, ৩ হাজার ২শ ৬ জন মেয়ে পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ২ হাজার ২শ ৯১ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১শ ৬১ জন।

ভোলা:  ভোলার ৩৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৫ হাজার ৬শ ১২ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছেন ৩ হাজার ৫শ ৮২ জন। পাসের হার ৬৫ দশমিক ০৪ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১শ ৭০ জন।

৩ হাজার ২শ ১৯ জন ছেলে পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ২ হাজার ৭৩ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৮৯ জন।

অপরদিকে, ২ হাজার ৩শ ৯৩ জন মেয়ে পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন এক হাজার ৫শ ৯ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৮১ জন।

ঝালকাঠী: এ জেলায় ২০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৩ হাজার ৪শ ৩৭ জন পরীক্ষায় অংশ নেন। এর মধ্যে ছেলে ১ হাজার ৬শ ১৫ জন ও মেয়ে ১ হাজার ৮শ ২২ জন।

অংশগ্রহণকারী পরীক্ষার্থীদের মধ্যে পাস করেছেন ২ হাজার ১শ ৮০ জন। পাসের হার ৬৪ দশমিক ৫৪ শতাংশ। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৬৮ জন।

এদের মধ্যে ছেলেদের পাসের সংখ্যা ১ হাজার ২৬ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২০ জন।

পাস করা ১ হাজার ১শ ৫৪ জন মেয়ের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৪৮ জন।

পটুয়াখালী: এ জেলায় পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল  ৭ হাজার ৭শ ৮৬ জন। ৫৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পাস করেছেন ৪ হাজার ৬শ ৩৯ জন। পাসের হার ৬০ দশমিক ৫৯ শতাংশ। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২শ জন।

৩ হাজার ৯শ ১৮ জন ছেলে পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ২ হাজার ৩শ ৭৫ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৯০ জন শিক্ষার্থী।

অপরদিকে, ৩ হাজার ৮শ ৬৮ জন মেয়ে পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ২ হাজার ৬শ ৪৯ জন। এর মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১শ ১০ জন।

বরগুনা: ২৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৪ হাজার ৬শ ১৩ জন পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাস করেছেন ২ হাজার ৬শ ৩৯ জন। পাসের হার ৫৮ দশমিক ২৯ শতাংশ । এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ১শ ৪১ জন।

২ হাজার ৪শ ১২ জন ছেলে পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ১ হাজার ৩শ ৩০ জন। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৬০ জন।

অপরদিকে, ২ হাজার ২শ ১ জন মেয়ে পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছেন ১ হাজার ৩শ ৯ জন। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ৮১ জন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২০ ঘণ্টা, জুলাই ১৮, ২০১২
সম্পাদনা: শামীম হোসেন, নিউজরুম এডিটর, আশিস বিশ্বাস, অ্যাসিস্ট্যান্ট আউটপুট এডিটর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa