পদত্যাগ না করা পর্যন্ত উপাচার্য অবরোধ: শিক্ষক সমাজ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবির পদত্যাগ না করা পর্যন্ত তাকে তার বাসভবনে অবরোধ করে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষক সমাজ ব্যানারের আন্দোলনরত শিক্ষকরা।



জাবি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবির পদত্যাগ না করা পর্যন্ত তাকে তার বাসভবনে অবরোধ করে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষক সমাজ ব্যানারের আন্দোলনরত শিক্ষকরা।

বৃহস্পতিবার রাত সোয়া এগারটায় বাংলানিউজের সঙ্গে আলাপকালে শিক্ষক সমাজ ব্যানারের সমন্বয় কমিটির সদস্য সহযোগী অধ্যাপক রায়হান রাইন এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ‘এই উপাচার্য শিক্ষকবিরোধী উপাচার্য। তাই তিনি গভীর রাতে মহড়া দিয়ে দুই শিক্ষককে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন। যা এর আগে কখনও ঘটে নি।’

তিনি বলেন, ‘উপাচার্যের বিভিন্ন অনিয়মের প্রতিবাদ করে গত প্রায় চার মাস ধরে আমরা আন্দোলন করে যাচ্ছি।’

এদিকে উপাচর্যের বাসভবনের সামনে গিয়ে দেখা যায়, শিক্ষক সমাজ ব্যানারের শিক্ষকরা উপাচার্য বাসভবনের মূল ফটকের সামনে তাবু টানিয়ে, মাদুর বিছিয়ে শুয়ে পড়েছেন। আবার অনেকে টিভি দেখছেন।

এছাড়া উপাচার্য বাসভবনের সবকটি ফটকে শিক্ষকরা অবস্থান নিয়েছেন। এর আগে সন্ধা সাতটায় তারা একই স্থানে মশাল প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি পালন করেন।

গত বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী আকন্দের পদত্যাগের দাবিতে বিভাগের শিক্ষকরা তাকে অবরুদ্ধ রাখার সময়ে ড. নূহু আলম, অধ্যাপক তালিম হোসেন ও ছালেহ আহাম্মেদ খান তাকে মারধর করেন বলে অভিযোগ উঠে।

সেই ঘটনায় গত বুধবারই ৭ জন সহকর্মীর বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায় মামলা দায়ের করেন সভাপতি আলী আকন্দ। মামলা নং-৬৭। মামলার প্রেক্ষিতে বুধবার রাতে অধ্যাপক তালিম হোসেন ও সহযোগী অধ্যাপক  ড. নূহু আলমকে গ্রেফতার করে আশুলিয়া থানা পুলিশ এবং বৃহস্পতিবার সকালে তাদের মুক্তি দেওয়া হয়।

তবে ওই ৭ শিক্ষক দাবি করেছেন, ‘বিভাগীয় সভাপতি আমাদের অকথ্য ভাষায় বকাঝকা করতে করতে লাথি মারতে গিয়ে তিনি পড়ে যান। বিভাগীয় সভাপতির নানা অনিয়মের কারণে তার পদত্যাগের দাবিতে আমরা নিয়মতান্ত্রিকভাবে দীর্ঘদিন যাবৎ আন্দোলন করছি। কিন্তু প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না।’

এদিকে সহকর্মী গ্রেফতার হওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বুধবার রাত তিনটায় উপাচার্যকে তার বাসভবনে অবরোধ করেন। ভোরে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার আবু বকর সিদ্দিক উপাচার্যের বাসভবনে প্রবেশ করলে শিক্ষকরা তাকেও অবরোধ করেন।

উপাচার্য অবরোধ হওয়ার ২১ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও শিক্ষক সমাজ ব্যানারের শিক্ষকরা।

উপাচার্য পদত্যাগের দাবিবীতে তার বাসভবনের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষকদের মধ্যে রয়েছেন, শিক্ষক সমাজ ব্যানারের আহ্বায়ক অধ্যাপক নাসিম আখতার হোসাইন, শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সহযোগী অধ্যাপক মো: শরীফ উদ্দিন, অধ্যাপক শামছুল আলম সেলিম, অধ্যাপক এটিএম আতিকুর রহমান, অধ্যাপক সৈয়দ কামরুল আহসান, অধ্যাপক এনামুল্লা পারভেজ, অধ্যাপক নঈম সুলতান, সোমা মুমতাজ, সহযোগী অধ্যাপক রায়হান রাইন, সহযোগী অধ্যাপক এএসএম আনোয়ারুল্লাহ ভূইয়া, আনিছা পারভীন জলি প্রমুখ।

উপাচার্য পদত্যাগের দাবিতে চলমান শিক্ষকদের অবরোধ কর্মসূচির ফলে আহ্বানকৃত ২৭ এপ্রিল বেলা চারটায় সিনেট কক্ষে অনুষ্ঠেয় বিশেষ সিনেট অধিবেশন স্থগিত করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বাংলাদেশ সময়: ০১০৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ২৬, ২০১২

ওইউ/সম্পাদনা: রানা রায়হান, অ্যাসিসট্যান্ট আউটপুট এডিটর

অ্যাসাঞ্জকে ক্ষমা করে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন ট্রাম্প
উত্তরের ৩ জেলায় ইউরিয়া সার উত্তোলন বন্ধ
কেশবপুরবাসী রাতে দরজা খুলে ঘুমাবে: শাহীন চাকলাদার
চুড়িহাট্টা ট্র্যাজেডির বর্ষপূর্তি বৃহস্পতিবার
গ্রন্থমেলায় ‘মমতাজউদদীন আহমদ আমার শিক্ষক’


করোনা ভাইরাসে দুই ইরানি নাগরিকের মৃত্যু
সাংবাদিক ফয়েজ আহমেদের প্রয়াণ
এইচআরপিবি’র সাবেক সেক্রেটারির স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত
শহীদ দিবসে আওয়ামী লীগের কর্মসূচি
‘জুনে চালু হচ্ছে সিলেট-কক্সবাজার-চট্টগ্রাম ফ্লাইট’