ছাত্র ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠার ৬০ বছর পূর্তি বৃহস্পতিবার

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

দেশের প্রাচীনতম ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের ৬০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বৃহস্পতিবার। লড়াই-সংগ্রামের ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান ছাত্র ইউনিয়নের এ প্রতিষ্ঠাবাষির্কীতে ঢাকায় দিনভর সমাবেশ-র‌্যালি ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হবে।



ঢাকা: দেশের প্রাচীনতম ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের ৬০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী বৃহস্পতিবার।

লড়াই-সংগ্রামের ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান ছাত্র ইউনিয়নের এ প্রতিষ্ঠাবাষির্কীতে ঢাকায় দিনভর সমাবেশ-র‌্যালি ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রতিষ্ঠাবাষির্কীর এই কর্মসুচিতে মিলিত হবেন ঐতিহ্যবাহী এ ছাত্র সংগঠনের প্রাক্তন ও বর্তমান নেতাকর্মী, সমর্থক ও শুভানুধ্যায়ীরা।

মহান ভাষা আন্দোলনের পটভূমিতে ১৯৫২ সালের ২৬ এপ্রিল এ ভূখণ্ডের (পরাধীন বাংলাদেশে) প্রথম অসাম্প্রদায়িক ছাত্র সংগঠন হিসেবে ছাত্র ইউনিয়নের আত্মপ্রকাশ ঘটে।

প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই ছাত্র ইউনিয়ন মৌলবাদ, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে বাংলা ভাষার অধিকার, শিক্ষার অধিকার, অসাম্প্রদায়িক, প্রগতিশীল সমাজ প্রতিষ্ঠাসহ সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলন-সংগ্রামে গত ৬ দশক ধরে অগ্রণী ভুমিকা পালন করে চলেছে।

ভাষা আন্দোলনের অগ্নিগর্ভে জন্ম নেওয়া এ সংগঠনটি ৫৪’র যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ৬২’র শিক্ষা আন্দোলন, আইয়ুবের সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন, ১১ দফা আন্দোলন, ৬৯’র গণঅভ্যূত্থান এবং ৭১’ এর মহান মুক্তিযুদ্ধে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে।

ছাত্র ইউনিয়ন ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় কমিউনিস্ট পার্টি-ন্যাপের সঙ্গে যৌথভাবে বিশেষ গেরিলা বাহিনী গঠন করে।

স্বাধীনতার পর সামরিক শাসন ও স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে আন্দোলন, আধুনিক বিজ্ঞানভিত্তিক একমুখী শিক্ষানীতি প্রতিষ্ঠার আন্দোলনসহ সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে রাজপথে ভূমিকা রেখে চলেছে ছাত্র ইউনিয়ন।

সংগঠনটির গৌরবোজ্জ্বল ৬০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বছরব্যাপী কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। ঢাকা ও ঢাকার বাইরে ৫২টি সাংগঠনিক জেলা এবং দেশের বাইরে রাশিয়ার রাজধানী মস্কো, লন্ডনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও প্রতিষ্ঠাবাষির্কী পালিত হবে বলে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক এসএম শুভ বাংলানিউজকে জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু স্মারক ভাস্কর্যে ভাষা সংগ্রামী আব্দুল মতিন কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন।

সমাবেশ শেষে একটি সুসজ্জিত র‌্যালি টিএসসি, দোয়েল চত্ত্বর, হাইকোর্ট, প্রেসক্লাব, পল্টন, দৈনিক বাংলা, গুলিস্তান হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে শেষ হবে। বেলা ৩টায় খেলার মাঠে পুনর্মিলনী ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে। পুনর্মিলনীতে দেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত থাকবেন। সন্ধ্যায় আয়োজন করা হয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের।

প্রতিষ্ঠাবাষির্কীর এসব কর্মসূচি সম্পর্কে ছাত্র ইউনিয়নের প্রাক্তন সভাপতি ও ডাকসুর সাবেক ভিপি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বাংলানিউজকে বলেন, ছাত্র ইউনিয়নের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যে মিলনমেলা বসবে তাতে সংগঠনের প্রাক্তন ও বর্তমান হাজার হাজার নেতাকর্মী, সমর্থক ও শুভানুধ্যায়ী অংশ নেবেন বলে আশা করা হচ্ছে। উদ্বোধনী পর্বসহ একদিনের এ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হবে বছরব্যাপী অনুষ্ঠানমালা। দেশের সকল সাংগঠনিক জেলা ও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পর্যায়ক্রমে ৬০তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপিত হবে।

ছাত্র ইউনিয়নের ৬০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপন জাতীয় কমিটির চেয়ারম্যান গোলাম আরিফ টিপু ও সদস্য সচিব এস এম শুভ এক বিবৃতিতে সকল বাধা-বিপত্তি অতিক্রম করে কর্মসূচি সফল করতে সারা দেশের নেতাকর্মীদের সর্বশক্তি নিয়ে উপস্থিত থাকার আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ সময় : ২০১৭ ঘন্টা, এপ্রিল ২৫, ২০১২
এসকে
সম্পাদনা : অশোকেশ রায়, অ্যাসিসট্যান্ট আউটপুট এডিটর

কুমিল্লায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই ডাকাত নিহত
শরীয়তপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেলো ২ কলেজছাত্রের
আড়াইহাজারে যুবলীগ নেতাসহ ৫ জনের জেল
ভাষাশহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে জ্বলে উঠলো ৫২শ' মোমবাতি
সারাদেশে একুশের প্রথম প্রহরে ভাষাশহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা


গর্বের সঙ্গে বাংলার ব্যবহার চায় ভারতের নদীয়ার প্রতিনিধিদল
ভেঙে পড়লো রাসিক মেয়র লিটনের সংবর্ধনা মঞ্চ
রামুতে বর্ণমালা হাতে হাজারো শিক্ষার্থীর কন্ঠে একুশের গান
ভাষাশহীদদের প্রতি বিরোধী দলীয়নেতা রওশনের শ্রদ্ধা
মাতৃভাষার জন্য ভালোবাসা