php glass

সুযোগ দিলে ৩৫০ টাকায় গরুর মাংস বিক্রি সম্ভব: বিডিএফএ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ফাইল ফটো

walton

ঢাকা: গো-খাদ্যের শুল্কমুক্ত আমদানি, বন্দর থেকে দ্রুত খালাস, ভর্তুকিসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দিলে প্রতিকেজি গরুর মাংস সাড়ে তিনশ’ টাকায় বিক্রি সম্ভব বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ডেইরি ফারমার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিডিএফএ) সভাপতি ইমরান হোসেন।

শনিবার (৭ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর মোহাম্মদপুরের নবোদয় কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত খামারি সম্মেলনে এ দাবি করেন তিনি। 

বিডিএফএ সভাপতি বলেন, খামারিদের বাঁচাতে মাংস আমদানি সম্পূর্ণ বন্ধ করতে হবে। গো-খাদ্যের ক্ষেত্রে নানা সুযোগ-সুবিধা দিতে হবে। এগুলো না করে মাংস আমদানির সুযোগ দেওয়া হলে সেটি দেশের জন্য আত্মঘাতী হবে। এর ফলে দেশের খামারিরা শেষ হয়ে যাবে। খামারের সঙ্গে কোটি কোটি মানুষের জীবন-জীবিকা নির্ভরশীল। তাছাড়া, বাংলাদেশ বর্তমানে মাংস উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণ। ২০০৯-১০ অর্থবছরে দেশে জনপ্রতি মাংস উৎপাদন ছিল ১১ দশমিক ৬০ গ্রাম, যা ২০১৮-১৯ অর্থবছরে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৫ দশমিক ১৪ গ্রাম।

গো-খাদ্য সরবরাহ সিন্ডিকেটের কবলে পড়েছে দাবি করে ইমরান হোসেন বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারের চেয়ে বাংলাদেশে মাংসের দাম কিছুটা বেশি। তবে, এর জন্য খামারিরা দায়ী নয়, দায়ী যারা গো-খাদ্য বিক্রি করেন। তারা সিন্ডিকেট করে গবাদিপশুর খাবারের দাম যেন না বাড়াতে পারে, সেদিকে নজরদারি বাড়াতে হবে। ভর্তুকি দিয়ে গো-খাদ্য বিতরণ, গো-খাদ্য আমদানি শুল্কমুক্ত করা, বন্দর থেকে দ্রুত খালাসের ব্যবস্থা করতে হবে। এ ধরনের সুযোগ দিলে সাড়ে তিনশ’ টাকা কেজি দরে গরুর মাংস বিক্রি সম্ভব হবে।

বিডিএফএ’র এ সম্মেলনে দেশের বিভিন্ন এলাকার প্রায় এক হাজার খামারি অংশ নেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০৭, ২০১৯
এমআইএস/একে

ksrm
শনিবার জিয়ার সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাবে ছাত্রদল
ভবন থেকে পড়ে উপ-সচিবের গাড়ি চালকের মৃত্যু
কোম্পানীগঞ্জে অপহৃত স্কুলছাত্রী খাগড়াছড়ি থেকে উদ্ধার
আইজিসিসির আয়োজনে গাইলেন অদিতি মহসিন
রাস্তা খালি করতে দুই মোটরসাইকেল এসকর্ট রেখেছিলেন শামীম


‘ক্ষেপ’ বন্ধ করতে পয়েন্ট আনলো পাঠাও
আবুধাবি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী
ভুটানকে হারালো বাংলাদেশের কিশোররা
বিখ্যাত লেখক স্টিফেন কিংয়ের জন্ম
বসুন্ধরা কিংস একাডেমি কাপ ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন যশোর