রাজধানীর ফুটপাতে বাহারি ইফতার

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ইফতার সামগ্রী বিক্রিতে ব্যস্ত বিক্রেতারা। ছবি: বাংলানিউজ

walton

ঢাকা: রাজধানীর মতিঝিলের অফিসপাড়ার ফুটপাতে স্বল্প মূল্যে বিক্রি হচ্ছে বাহারি ইফতার। রমজান উপলক্ষে স্থাপিত বিভিন্ন দোকানে বিকেল থেকে এসব দোকানে ইফতার কিনতে দেখা গেছে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে। 

php glass

বুধবার (০৭ মে) রাজধানীর পল্টন, দিলকুশা ও মতিঝিল এলাকা ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে।

দোকানিরা বলছেন, তীব্র যানজটের কারণে অনেকেই ইফতার মতিঝিল পাড়ায় সেরে বাড়ি ফেরেন। তাই নিম্ন আয় ও কর্মব্যস্ত মানুষের ইফতারির বড় ভরসা ফুটপাতের এসব দোকান। অভিজাত হোটেলের মতো দামি ইফতার সামগ্রী না থাকলেও ফুটপাতের এসব দোকানে বাহারি পদের অভাব নেই।

বেগুনি, পেঁয়াজু, ছোলার ঘুগনি, মুড়ি, জিলাপি, জালি কাবাব, চিকেন হালিম, গরু ও খাসির হালিম, আলু সমুচা, বিফ সমুচা, আলুর চপ, শাকের চপ, ভেজিটেবল রোলসহ বাহারি ইফতারি অল্প দামেই কিনছেন কর্মব্যস্ত ও নিম্ন আয়ের মানুষেরা।

দোকানিরা জানান, বেগুনি, পেঁয়াজু, সমুচা, আলুর চপ প্রতি পিস বিক্রি হচ্ছে ৫ টাকা করে। ডিমের আলুর চপ ১০ টাকা, জালি কাবাব ১৫ টাকা, ভেজিটেবল রোল ১৫টাকা, জিলাপি প্রতি কেজি ১২০ টাকা, বুন্দিয়া কেজি ১২০ টাকা, চিকেন ললি পোপ ৩০ টাকা পিস, চিকেন বল ১৫ টাকা পিস, হালিম ছোট বাটি ৬০ টাকা মাঝারি ১২০ টাকা, লুচি ১০ টাকা পিস, চিকেন পেটিস ৩০ টাকা পিস বিক্রি হচ্ছে।

মতিঝিলের ব্যাংক পাড়ায় ইফতারির পসরা নিয়ে বসেছেন মো. শফি। তিনি বাংলানিউজকে বলেন,  দুই যুগের বেশি সময় ধরে এখানে ইফতার সামগ্রী বিক্রি করছি। আমাদের কাছ থেকে সাধারণত বিভিন্ন অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ইফতারি কিনে নিয়ে যান। 

ছোলা, মুড়ি, বেগুনি, পেঁয়াজু, আলুর চপ, জিলাপি স্বল্প মূল্যে বিক্রি করেন বলে জানান শফি। 

তার ভাষ্য, কেউ চাইলে এখানে বসেও ইফতারি সেড়ে নিতে পারেন। একজন চাইলে ২৫ থেকে ৩০ টাকার মাধ্যমে ভালো ইফতারি পারবেন। 

তিনি বলেন, জিনিসের দাম বেশি থাকার কারণে দাম একটু বেশি পড়ছে। গত বছরও এখানে ২০ টাকার মধ্যে একজন রোজাদার ইফতার করেছেন।

দৈনিক বাংলার মোড়ে ইফতার বিক্রি করছেন মো. ফারুক। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, বেচাকেনা কম। দুই চারদিন গেলে বোঝা যাবে। আমরা রোজাদারদের চাহিদা ও পছন্দ অনুযায়ী ইফতারি বানাই। বেগুনি, পেঁয়াজু, আলুর চপ, হালিম, জিলাপি, সমুচা, ভেজিটেবল রোল, ভেজিটেবল চপ, ঘুগনিসহ ইফতারির প্রায়সব আইটেমই আমাদের কাছে আছে। হোটেলে এসব আইটেমের যে দাম আমরা তা থেকে অনেক কম রাখি।

ইফতার কিনতে আসা বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানের অফিস সহকারী মো. সাইফুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, অনেক স্যারই ইফতার অফিসে করেন তাদের জন্য ইফতারের আয়োজন করতে হয়। তাই প্রতিবছরই এখান থেকে ইফতার কিনি। 
 
মতিঝিল দিলকুশার ইফতারি বিক্রেতা রফিক বলেন, একজন রোজাদার অল্প টাকায় ইফতারি করতে পারেন এই চিন্তা করেই আমরা ইফতারির খাবার তৈরি করি। 

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৩ ঘণ্টা, মে ০৮, ২০১৯
এসএমএকে/এমএ 

ব্যবসায়ীর ২০ লাখ টাকা ছিনতাইকালে আটক ২
রাস্তা কাটা বাবদ চসিককে ১০ কোটি টাকা দিলো ওয়াসা
পৃথিবীর মতো পানিপূর্ণ ছিল ৩টি গ্রহ!
পলিটেকনিকে ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক স্থাপনা
বুধবার থেকে পাটকল শ্রমিকদের ৬ ঘণ্টা সড়ক-রেলপথ অবরোধ


ক্রিকেটের লড়াইয়ে আর্টসেল বনাম চিরকুট
বগুড়া-৬ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেলেন নিকেতা
কালোবাজারে টিকিট মেলে, যাত্রীরা পায় না: সুজন
মেয়াদোত্তীর্ণ ভেটেরিনারি ওষুধ বিক্রির দায়ে জরিমানা
ফেনীতে পোল্ট্রি ব্যবসায়ীর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার