php glass

আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক মেলা উদ্বোধন করলেন শিল্পমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

প্লাস্টিক মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রীসহ অতিথিরা, ছবি: জিএম মুজিবুর

walton

ঢাকা: ১৪তম বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক, প্যাকেজিং এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল মেলার উদ্বোধন করেছেন শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন।

বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে চার দিনব্যাপী এই মেলার উদ্বোধন করেন তিনি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাতের উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, বাংলাদেশ প্লাস্টিক পণ্য উৎপাদক এবং রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের (বিজিএমইএ) সভাপতি মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি মোহাম্মদ শফিউল ইসলাম মহিউদ্দীন ও ইয়র্কারস ট্রেড অ্যান্ড মার্কেটিং কোম্পানি লিমিটেডের প্রেসিডেন্ট মিস জুডি ওয়াং।

উদ্বোধনের আগে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেন, প্লাস্টিক বাংলাদেশের অর্থনীতির একটি বিকাশমান শিল্পখাত। ইতোমধ্যে ছোট বড় মিলিয়ে পাঁচ হাজার ৩০টি ইন্ডাস্ট্রি গড়ে উঠেছে। এই খাতের উন্নয়নের জন্য জাতীয় শিল্পনীতি-২০১৬ তে আমরা প্লাস্টিক শিল্পকে অগ্রাধিকার তালিকার শীর্ষস্থানে রেখেছি। ইতোমধ্যে মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে ৫০ একর জমির ওপর একটি প্লাস্টিক শিল্পনগরী গড়ে তোলার কাজ চলছে।

এ খাতের নানা সমস্যা সমাধানের কথা জানিয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, এই সরকার ব্যবসা করে না, তবে ব্যবসাবান্ধব সরকার। প্লাস্টিকসহ সব ধরনের খাতেই যেসব সমস্যা আছে, সেগুলো সমাধানে আমরা কাজ করছি। একটা টিম হয়ে কাজ করলে এসব সমাধান দ্রুত আসবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সালমান এফ রহমান বলেন, নির্বাচনের আগে এফবিসিসিআই’র আয়োজনে এক ব্যবসায়ী সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে আপনারা (ব্যবসায়ীরা) আমাদের সমর্থন দিয়েছিলেন। এখন আমাদের দায়িত্ব আপনাদের সব সমস্যার সমাধান করা।

এসময় প্লাস্টিক শিল্পের আরও অগ্রগতি কামনা করে তিনি বলেন, ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তুলতে পারলে এই শিল্প অন্য স্তরে চলে যাবে। তবে রিসাইকেল ইন্ডাস্ট্রির মাধ্যমে প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ভূমিকা রাখা এই খাতের ব্যবসায়ী আমাদের দরকার।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে মোহাম্মদ জসিম উদ্দীন বলেন, প্লাস্টিক শিল্প দেশিয় অর্থনীতিতে যে অবদান রাখছে এবং সাফল্যের সঙ্গে এগিয়ে চলেছে, ১৪তম আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক ফেয়ার ২০১৯ তার প্রমাণ। এবার ১৯টি দেশ থেকে ৪৬০টি প্রতিষ্ঠান ৭৮০টি স্টল বা বুথ নিয়ে অংশ নিচ্ছে।

প্লাস্টিক খাতে কমপ্লায়েন্স ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তোলার তাগিদ দিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ব্যবসা এখন চীন থেকে সরে যাচ্ছে। তাই আমরা যদি আমাদের দেশে প্লাস্টিক খাতের কমপ্লায়েন্স ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তুলতে পারি, তাহলে এই খাতে বিশ্ব বাজারে আমরা ভালো অবস্থান নিতে পারবো। বর্তমানে বাংলাদেশে আভ্যন্তরীণভাবে ২৫ হাজার কোটি টাকার পণ্য উৎপাদন ও বিপণন হচ্ছে। এর থেকে সরকারি কোষাগারে প্রতি বছর ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা রাজস্ব জমা হয়। আর ৫৪৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের অর্জন ০.৬%।

এছাড়াও শিল্পমন্ত্রী, সরকার এবং ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর কাছে প্লাস্টিক ব্যবসা সংক্রান্ত নানাবিধ দাবি-দাওয়া তুলে ধরেন বিজিএমইএ সভাপতি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- এফবিসিসিআই সভাপতি মোহাম্মদ শফিউল ইসলাম মহিউদ্দীন ও ইয়র্কারস ট্রেড অ্যান্ড মার্কেটিং কোম্পানি লিমিটেডের প্রেসিডেন্ট মিস জুডি ওয়াং।

রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া এই মেলা চলবে রোববার (২০ জানুয়ারি) পর্যন্ত।

বাংলাদেশ সময়: ১৫২৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৭, ২০১৯
এসএইচএস/টিএ

কসবায় আহতদের উদ্ধারে হেলিকপ্টার ব্যবহারের দাবি
মোরালেসকে রাজনৈতিক আশ্রয় দেবে মেক্সিকো
মিষ্টি দিয়েই দিন শুরু, তবে
রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক
ট্রেন দুর্ঘটনায় আহত শিশুটি খুঁজছে স্বজনদের


পাকিস্তান সফরে আগ্রহী নন ডি ভিলিয়ার্স!
কসবায় ট্রেন দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে অর্থ সহায়তা
হৃত্বিকে ‘আসক্ত’ স্ত্রীকে হত্যার পর স্বামীর আত্মহত্যা
খুবিতে চান্স পেয়েও অর্থাভাবে ভর্তি হতে পারছে না ফারুক
দুর্নীতি প্রতিরোধে কঠোর হতে হবে: দুদক কমিশনার