বসুন্ধরা পেপারের ২০ শতাংশ লভ্যাংশ অনুমোদন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বসুন্ধরা পেপার মিলসের বার্ষিক সাধারণ সভা | ছবি: জিএম মুজিবুর

walton

ঢাকা: ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ অনুমোদন করেছেন পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের শেয়ারহোল্ডাররা।

বুধবার (১৯ ডিসেম্বর) ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার ‘রাজদর্শন’ হলে কোম্পানিটির ২৫তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) শেয়ারহোল্ডাররা এ প্রস্তাব অনুমোদন করেন।

কোম্পানির উপদেষ্টা এ আর রশিদীর সভাপতিত্বে এজিএমে উপস্থিত ছিলেন- স্বতন্ত্র পরিচালক খাজা আহমেদুর রহমান, কোম্পানির পরিচালক মো. ইমরুল হাসান, নাজমুল আলম ভূইয়া ও মো. আবু তাইয়েব, উপদেষ্টা ময়নাল হোসেন চৌধুরী ও মেজর জেনারেল (অব.) মাহবুব হায়দার খান, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুস্তাফিজুর রহমান এফসিএ, প্রধান অর্থ কর্মকর্তা মির্জা মুজাহিদুল ইসলাম এবং কোম্পানি সচিব এম নাসিমুল হাই এফসিএস-সহ কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও বিধিবদ্ধ নিরীক্ষকরা।

সভাপতির বক্তব্যে এ আর রশিদী বলেন, বসুন্ধরা পেপারের কাগজ আন্তর্জাতিকমানের। বসুন্ধরা পেপার মিলের উৎপাদিত কাগজ ও কাগজ জাতীয় সামগ্রী গুণগতমানের হওয়ায় এসব পণ্যের চাহিদা স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে বাড়ছে। দেশের পাশাপাশি ২৩টির বেশি দেশে তা রফতানি হচ্ছে। আর আইপিওর টাকায় মেশিনারিজ আমদানি করে কারখানা স্থাপন করা হচ্ছে। এ মেশিনারিজ দিয়ে উৎপাদন শুরু হলে আরো বেশি কাগজ ও সামগ্রী বাজারে সরবরাহ করতে পারবে বসুন্ধরা পেপার মিলস।

এ আর রশীদি আরো বলেন, কাগজশিল্প দেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ ও স্বয়ংসম্পূর্ণ শিল্পখাত। দেশে এখন ছোট-বড় মিলিয়ে ১০০টির বেশি পেপার মিলস রয়েছে। এসব মিলের বাৎসরিক উৎপাদন ক্ষমতা প্রায় ১৫ লাখ টন। প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে এই খাতে প্রায় ১০ লাখ লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। প্রায় ৬০ লাখ মানুষের জীবিকা দেশি কাগজশিল্পের ওপর নির্ভরশীল। এ শিল্পে বর্তমানে প্রায় ৭০ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ রয়েছে যা দেশের অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ।

সভাপতি বলেন, কাগজ উৎপাদনের ক্ষেত্রে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি ব্যয় বাড়ার পাশাপাশি শ্রমের মজুরি বৃদ্ধি, আন্তর্জাতিক বাজারে পাল্পের মূল্য ক্রমাগত বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন কারণে কাগজ ও কাগজ সামগ্রীর উৎপাদন ব্যয় বাড়ছে। এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেও বসুন্ধরা পেপার মিল প্রবৃদ্ধি অর্জন করে চলেছে।

সভায় কোম্পানির ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বার্ষিক বিবরণী, নিরীক্ষিত আর্থিক হিসাব বিবরণী ও প্রতিবেদন অনুমোদন হয়। প্রতিবেদন অনুসারে কোম্পানির আর্নিং পার শেয়ার (ইপিএস) দাঁড়িয়েছে ৪ দশমিক ৬৩ পয়সা। নেট অ্যাসেট ভ্যালু (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৪৯ দশমকি ১৮ পয়সা।

বার্ষিক সাধারণ সভায় ভালো লভ্যাংশ দেওয়ায় শেয়ারহোল্ডাররা সন্তোষ প্রকাশ করেন। পাশাপাশি উৎপাদন বৃদ্ধির পদক্ষেপ, ধারাবাহিক মুনাফা অর্জন ও কোম্পানির উৎপাদন সক্ষমতা বৃদ্ধির পদক্ষেপ এবং রফতানি বৃদ্ধির উদ্যোগকে শেয়ারহোল্ডাররা স্বাগত জানান।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৪ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৮/আপডেট: ২০২০ ঘণ্টা
এমএফআই/এমজেএফ

বেওয়ারিশ কুকুরের খাবার দিচ্ছেন পটুয়াখালীর মেয়র
করোনা: আইনজীবীদের প্রণোদনা দেওয়ার দাবি
মোবাইল কলে জানালে পৌঁছে যা‌বে সহায়তা
ক্ষুদ্র-মাঝারি উদ্যোক্তাদের জন্য তহবিল গঠনের আহ্বান 
বরিশাল বিভাগে ২৪৬৪ জনের হোম কোয়ারেন্টিন সম্পন্ন


যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় বিএনপি নেতার মৃত্যু, ফখরুলের শোক
সুন্দরগঞ্জে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটরসাইকেল আরোহী নিহত
লোহাগাড়ায় আমিনুল ইসলামের ত্রাণ পেলো ১৮শ কর্মহীন শ্রমজীবী 
ফেনীতে মারা যাওয়া সেই যুবকের করোনা নেগেটিভ
মিরপুর থানার ‘করোনা প্রতিরোধ প্লাটুন’