দেশের অর্থনীতির সার্বিক অবস্থা ভালো: অর্থমন্ত্রী

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

সার্বিকভাবে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো বলে দাবি করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবুল মাল আবদুল মুহিত। বুধবার দুপুরে অর্থমন্ত্রণালয়ে এক প্রেসব্রিফিংয়ে তিনি এ দাবি করেন।

ঢাকা: সার্বিকভাবে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ভালো বলে দাবি করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবুল মাল আবদুল মুহিত।  

বুধবার দুপুরে অর্থমন্ত্রণালয়ে এক প্রেসব্রিফিংয়ে তিনি এ দাবি করেন।
 
অর্থমন্ত্রী বলেন, তবে আমাদের কিছু ঝুঁকি আছে। এসব ঝুঁকির কথা বাজেটেও বলা বলা হয়েছে।

এ সময় তিনি অর্থনৈতিক অবস্থা নিয়ে সংবাদ মাধ্যম ও সুশীল সমাজের দৃষ্টিভঙ্গির সমালোচনা করেন।

মুহিত বলেন, সংবাদ মাধ্যমে ও সুশীল সমাজের আলোচনায় দেশের অর্থনীতি নিয়ে যা বলা হয় সেগুলো কিছুটা নেতিবাচক ও হতাশাজনক। এটা নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। আমরা আমাদের মূল লক্ষ্য থেকে বিচ্যুত হইনি।

চলতি অর্থবছর শেষে জিডিপির প্রবৃদ্ধির হার ৭ শতাংশে গিয়ে দাঁড়াবে বলে আশা ব্যক্ত করেন অর্থমন্ত্রী।

তিনি বলেন, গত বছর সাড়ে ৬ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির হার অর্জিত হয়েছে। এটা ৭ শতাংশে উন্নীত হওয়া তেমন কঠিন কিছু নয়।
 
মুদ্রাস্ফীতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেল ও ভোগ্য পণ্যের মূল্য বৃদ্ধির কারণে মুদ্রাস্ফীতির হার বেড়েছে। তবে আগামীতে মুদ্রাস্ফীতির হার কমে আসবে।

এর কারণ ব্যাখ্যায় তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেল ও ভোজ্য তেলের মূল্য কমেছে।

তিনি আরও বলেন, এছাড়া আমদানি ব্যয় বেড়ে যাওয়ার কারণে লেনদেন ভারসাম্যের ওপর কিছুটা চাপ বেড়েছে। তবে এটা নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার তেমন কারণ নেই।

এ সময় তিনি সরকারের ভর্তুকি কমানোর ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, ‘আমাদের ভর্তুকি আরও কমাতে হবে। এরই মধ্যে ভর্তুকি কমাতে জ্বালানি তেল ও বিদ্যুতের মূল্য সমন্বয় করা হয়েছে।

ভর্তুকি কীভাবে আরও কমিয়ে আনা যায় সে ব্যাপারে চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘২০১৪ সাল থেকে বিদ্যুৎ খাতে কোনও ভর্তুকি দেওয়া হবে না।’

দেশের অবকাঠামো খাতে বিনিয়োগে বড় ধরনের ঘাটতি রয়েছে উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘অবকাঠামো খাতে বিনিয়োগ বাড়ানোর জন্য ‘বাংলাদেশ অবকাঠামো উন্নয়ন তহবিল’ (বিআইডিএফ)-এর আকার কীভাবে বাড়ানো যায় এবং এর ব্যবহার সম্পর্কে একটি নীতিমালা প্রণয়ের জন্য সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন।’

এ তহবিল গঠনে বন্ড ছাড়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘দেশি-বিদেশি ও প্রবাসীরা এ খাতে বিনিয়োগ করতে পারবে।’
   
প্রসঙ্গক্রমে অর্থমন্ত্রী আরও জানান, বর্তমানে পিপিপির আওতায় ফ্লাইওভার ও বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণসহ বেশ সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। আগামীতে এ খাতে বরাদ্দ তিন হাজার কোটি টাকা থেকে আরও বাড়াতে হবে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৯ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৯, ২০১১

এটিএম বুথগুলোর সামনে ‘সামাজিক দূরত্ব’ মানা হচ্ছে না!
ফেনীতে করোনা উপসর্গ নিয়ে একজনের মৃত্যু
বগুড়ায় হতদরিদ্রদের ৫০ বস্তা চালসহ কৃষক লীগ নেতা আটক
সাহায্যের জন্য নগদ অর্থ সংগ্রহ করবেন না: মুখ্যমন্ত্রী
সিলেটে প্রবাস ফেরত যুবককে কুপিয়ে খুন


নারায়ণগঞ্জে বিভিন্ন বাসার ছাদে সারারাত জামাতে নামাজ আদায়
রাজশাহীতে ৩৩৭ জনের নমুনা সংগ্রহ
করোনা মোকাবিলায় ফেনীর প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগের সহায়তা
আশুলিয়ায় কলোনিতে আগুন, ৮ কক্ষ পুড়ে ছাই
বরিশালে চার বাড়ির লকডাউন প্রত্যাহার