পেট্রাপোলে আন্দোলন: বেনাপোলে কাজ বন্ধ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

ভারতের পেট্রাপোল কাস্টমস কর্মকর্তাদের হয়রানির প্রতিবাদে পেট্রাপোল ক্লিয়ারিং এজেন্ট স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন সোমবার থেকে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানির কাজ বন্ধ করে দিয়েছে।

বেনাপোল: ভারতের পেট্রাপোল কাস্টমস কর্মকর্তাদের হয়রানির প্রতিবাদে পেট্রাপোল ক্লিয়ারিং এজেন্ট স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন সোমবার থেকে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানির কাজ বন্ধ করে দিয়েছে।

এর ফলে সোমবার দেশের বৃহত্তম সøবন্দর বেনাপোল দিয়ে ভারতে কোনও পণ্য আমদানি-রপ্তানি হয়নি। পেট্রাপোল বন্দর কর্তৃপক্ষ ভারতীয়ইক্লয়ারিং এজেন্ট স্টাফদের দাবি মেনে না নিলে তারা অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটে যাবেন বলে ঘোষণা করেছেন।

এদিকে, আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকায় বেনাপোল বন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় পচনশীল পণ্যসহ শত শত পণ্য বোঝাই ট্রাক আটকে আছে ভারতীয় পেট্রাপোল বন্দর এলাকায়। অন্যদিকে রপ্তানি পণ্য নিয়ে শত শত বাংলাদেশি ট্রাকও দাঁড়িয়ে আছে বেনাপোল চেকপোস্ট থেকে বন্দর এলাকায়।

পেট্রাপোল ক্লিয়ারিং এজেন্ট স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী বাংলানিউজকে জানান, পেট্রাপোল কাস্টম্স অফিসে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সোমবার বেলা ১১টায় অফিসে আসেন এবং পণ্য আমদানি-রপ্তানিতে নানানভাবে হয়রানি করে থাকেন। ১১ টার পর শুরু হয় দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম। অথচ বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টম্স কার্গো শাখার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সকাল ৭টায় অফিসে আসেন। কাস্টম্স কর্মকর্তারা দেরিতে অফিসে আসায় এবং কাস্টম্স কর্তৃপক্ষ নানাভাবে হয়রানি করায় দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে বলে তারা জানান।
 
তিনি আরো জানান, এছাড়া বাংলাদেশ থেকে পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে পেট্রাপোল বন্দরে নির্দিষ্ট কোনও পণ্যাগার নেই। এছাড়া কাস্টমস ও বন্দর কর্মকর্তারা আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যের ক্ষেত্রে বাড়তি টাকার (ঘুষের) জন্য দিনের পর দিন চাপ বাড়িয়ে দিচ্ছে। এসব অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবাদে তারা পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্য বন্ধ করে দিয়েছে।

আন্দোলনরত ভঅরতীয় ক্লিয়ারিং এজন্ট কর্মীরা বলেন, বাংলাদেশ কাস্টম্সের অফিসারদের মত আমাদের দেশের কাস্টমস অফিসারদেরকেও সকাল ৭টায় অফিসে এসে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম পরিচালনার জন্য অনুরোধ করে আমরা অনেক বার মৌখিক ও লিখিতভাবে জানিয়েছি। কিন্তু তারা আমাদের দাবিতে কোনও কর্ণপাত করছে না।

জানান গেছে, দাবি আদায়ের জন্য পেট্রারেপাল বন্দর কর্তৃপক্ষকে তারা গত সপ্তাহে ১৬ অক্টোবর সময়সীমা বেঁধে দেন। তারপরও দাবি না মানায় তারা সোমবার সকালে ধর্মঘট কর্মসূচি ঘোষণা করে বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে সকল প্রকার পণ্য আমদানি-রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। সকাল ৭ টা থেকে অফিস চালু না হলে এ অবরোধ কর্মসূচী চলতে থাকবে বলে তারা জানান।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি সিরাজুল ইসলাম সিরাজ বাংলানিউজকে জানান, গত ৯ অক্টোবর পেট্রাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের এক বৈঠকে ভারতীয় কাস্টম্স কর্মকর্তারা বেলা১১টায় অফিসে আসেন বলে আলোচনা হয়। দেরিতে অফিসে আসায় আমদানি-রপ্তানি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। সকাল ৭টা থেকে অফিস চালুর দাবিতে পেট্রাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট স্টাফ ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের কর্মকর্তা কর্মচারীরা অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন। এ কারণে সোমবার সকাল থেকে এ পথে কোনও আমদানি-রপ্তানি হয়নি।

এদিকে, বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টম্স কার্গো শাখার ইন্সেপেক্টর হাসেম আলী জানান, ওপারের সিএন্ডএফ ব্যবসায়ীদের অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে সকাল থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বানিজ্য বন্ধ রয়েছে।

বেনাপোল চেকপোস্ট পুলিশ ইমিগ্রেশনের এসআই তাজুল ইসলাম জানান, আমদানি-রপ্তানি বন্ধ থাকলেও এ চেকপোস্ট দিয়ে দু’দেশের মধ্যে পাসপোর্টধারী যাত্রী পারাপার স্বাভাবিক রয়েছে।

অপরদিকে, এ রিপোট লেখা পর্যন্ত (সন্ধ্যা ৬টা) পেট্রাপোল বন্দরের প্রশাসনিক কর্মকর্তারা সমস্যা সমাধানের জন্য ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক করছিলেন। তবে কোনও সমাধান এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে বৈঠক সূত্রে জানা গেছে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩২ ঘণ্টা, ১৭ অক্টোবর, ২০১১

করোনা প্রতিরোধ: স্বস্তির নিশ্বাস রাতের নগরে
ময়মনসিংহে কর্মহীনদের পাশে মহানগর যুবলীগ
করোনো: সাতক্ষীরায় মানুষকে ঘরে ফেরাতে কঠোর হচ্ছে পুলিশ
কোয়ারেন্টিন না মানায় সিলেটে প্রবাসীকে জরিমানা
শিগগিরই প্রস্তুত হচ্ছে বসুন্ধরার হাসপাতাল 


করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে থাকবে চীন
করপোরেট কর হার ১০ শতাংশ চায় বিসিআই 
গজারিয়ায় শিশুর মৃত্যুতে করোনা আতঙ্ক
অজ্ঞাত রোগে দীঘিনালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আরো ৮ শিশু
করোনা: টোকিও অলিম্পিকের নতুন সূচি ঘোষণা