পুঁজিবাজারে কারসাজি: ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা, সমন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

পুঁজিবাজারে কারসাজির অভিযোগে পাঁচ জনের বিরুদ্ধে আদালতে পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। শুনানি শেষে বিচারক আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন।

ঢাকা: পুঁজিবাজারে কারসাজির অভিযোগে পাঁচ জনের বিরুদ্ধে আদালতে পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। শুনানি শেষে বিচারক আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছেন।

আসামিরা হলেন- সৈয়দ সিরাজ উদ দৌলা, তার স্ত্রী রাশেদা আক্তার মায়া, হাবিবুর রহমান মোড়ল, আবু সাদাত মো. সায়েম ও মোবিন মোল্লা।

আগামী ১৭ অক্টোবরের মধ্যে আসামিদের আদালতে উপস্থিত হতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  

রোববার দুপুরে ঢাকা মহানগর হাকিম এজিএম আল মাসুদ বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ শেষে এ আদেশ দেন।

এর আগে আসামিদের বিরুদ্ধে এ মামলা দুটি মামলা দায়ের করেন সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (এসইসি) পক্ষে পরিচালক মাহবুবের রহমান চৌধুরী।

সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন অর্ডিন্যান্স ১৯৬৯ এর ১৭ (ই)(৫) ধারায় অভিযোগ এনে এ মামলা দুটি দায়ের করা হয়।

পিপলস লিজিংয়ের শেয়ার ক্রয়-বিক্রয়ে কারসাজির অভিযোগ এনে সৈয়দ সিরাজ উদ দৌলা, তার স্ত্রী রাশেদা আক্তার মায়া ও হাবিবুর রহমান মোড়লের বিরুদ্ধে এবং ইস্টার্ন হাউজিং লিমিটেডের শেয়ার ক্রয়-বিক্রয়ে কারসাজির অভিযোগ এনে আবু সাদাত মো. সায়েম ও মোবিন মোল্লার বিরুদ্ধে এ মামলা দুটি করা হয়।

মামলার বাদী তার জবানবন্দীতে বলেন, সৈয়দ সিরাজ উদ দৌলা, তার স্ত্রী রাশেদা আক্তার মায়া ও হাবিবুর রহমান মোড়ল পিএফআই সিকিউরিটি হাউজের মাধ্যমে শেয়ার ট্রেডিং করতেন। তারা গত বছরের ৩০ জুন থেকে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত সময়ে পরস্পর একই উদ্দেশ্য সাধনের জন্য পিপলস লিজিংয়ের শেয়ার বড় ধরনের লেনদেনের মাধ্যমে একটি সক্রিয় পুঁজিবাজার লেনদেনের পরিবেশ (অৎঃরভরপরধষ অপঃরাব ঞৎধফব ঊহারৎড়হসবহঃ) সৃষ্টি করে কৃত্রিমভাবে শেয়ারের দাম বাড়িয়ে রক্ষিত শেয়ার বিক্রি করে অবৈধভাবে লাভবান হন।

আবু সাদাত মো. সায়েম ও মোবিন মোল্লার বিরুদ্ধেও গত বছরের ২৭ জুলাই থেকে ১৯ আগস্ট পর্যন্ত সময়ে অবৈধভাবে শেয়ার লেনদেনের অভিযোগ আনা হয়।

তারা সালতা ক্যাপিটাল লিমিটেড, আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড, আইআইডিএফসি ক্যাপিট্যাল লিমিটেড ও আইআইডিএফসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের মাধ্যমে বেআইনিভাবে ইস্টার্ন হাউজিংয়ের শেয়ার ক্রয়-বিক্রয়ের অভিযোগ আনা হয়।
উল্লেখ্য, শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারী তদন্তে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের চেয়ারম্যান খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদকে চেয়ারম্যান করে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর ড. তৌফিক আহমেদ চৌধুরী ও মোহাম্মদ আব্দুল বারীকে সদস্য করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

তদন্ত কমিটি গত ৩১ মার্চ সরকারের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে উক্ত পাঁচ জনের বিরুদ্ধে শেয়ার কারসাজির অভিযোগ করা হয়।

বাদীপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম রেজা, তরিকুল ইসলাম ও কামরুল ইসলাম শিকদার।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫০ ঘণ্টা, আগস্ট ২১, ২০১১

ছুটি বাড়ানোর গুঞ্জন
ভোমরা বন্দর দিয়ে প্রবেশ করছে শত শত যাত্রী, বাড়ছে আতঙ্ক
করোনা: জয়পুরহাটে এমপি দুদুর অনুদান
এবার আক্রান্তের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে স্পেন, মৃত্যু ৭৩৪০
সঙ্কটকালে নার্সের পেশা বেছে নিলেন অভিনেত্রী


লিভারপুলের হাতে শিরোপা দেখতে চায় সিটির মিডফিল্ডার
নবাবগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক বৃদ্ধ আইসোলেশনে 
অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছে কমলনগর থানা পুলিশ
কোয়ারেন্টিন না মানার দাবিকে উড়িয়ে দিলেন নেইমার
বিপন্ন মানুষের পাশে দাঁড়াতে সংস্কৃতিকর্মীদের প্রতি আহ্বান