সক্রিয় হচ্ছে সার্বক্ষণিক যৌথ ইন্সপেকশন দল

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

পুঁজিবাজারে সক্রিয়ভাবে কাজ শুরু করতে যাচ্ছে  যৌথ ইন্সপেকশন দল। কোনো প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তি বা ব্যক্তি বিশেষ,  শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্ট মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক কোনোভাবে নিয়মবহির্ভূতভাবে বাজারকে প্রভাবিত করার কাজে লিপ্ত কি না পর্যবেক্ষক দল তা পর্যবেক্ষণ করবে।

ঢাকা: পুঁজিবাজারে সক্রিয়ভাবে কাজ শুরু করতে যাচ্ছে  যৌথ ইন্সপেকশন দল। কোনো প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তি বা ব্যক্তি বিশেষ,  শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্ট মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান কর্তৃক কোনোভাবে নিয়মবহির্ভূতভাবে বাজারকে প্রভাবিত করার কাজে লিপ্ত কি না পর্যবেক্ষক দল তা পর্যবেক্ষণ করবে।

নিয়ন্ত্রক সংস্থা সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (এসইসি) সূত্রে জানা যায়, ২০১০ সালের ডিসেম্বরে পুজিবাজারের অস্বাভাবিক ধসের পর ২০১১  সালের ১৬ নভেম্বর অর্থমন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে পুজিবাজার সংক্রান্ত যৌথ ইন্সপেকশন টিম গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। অনেক জটিলতা পেছনে ফেলে গত ৩ জানুয়ারি এ বিষয়ে গেজেট প্রকাশিত হয়েছে। গেজেট অনুযায়ী, পর্যবেক্ষক দলের সদস্যরা হলেন এসইসি নির্বাহী পরিচালক (চেয়ারম্যান মনোনীত), বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক (গভর্নর মনোনীত), ডিএসই প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এবং সিএসই’র সিইও।

এরই মধ্যে এসইসির পক্ষ থেকে নির্বাহী পরিচালক মো. সাইফুর রহামানকে কমিটির সদস্য হিসেবে মনোনীত করা হয়েছে।

এবিষয়ে কমিটির এক সদস্য বলেন, নানা কারণে কামিটি এতদিন তাদের কাজ শুরু করতে পারেনি। দ্রুত সময়ের মধ্যে কমিটি তাদের কাজ শুরু করবে। এ বিষয়ে বৈঠকে বসার জন্য শিগগিরই দিন ধার্য করবে কিমিটি। কমিটির এক সদস্য ডিএসইর সিইও সদ্য নিয়োগ পেয়েছেন। এতে করে কমিটির কাজ শুরু করতে কোনও বাধা রইল না।

গত ১৬ নভেম্বর-২০১১ অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের মূলধন মার্কেট অধিশাখার উপসচিব মো. নাসির উদ্দিন আহমেদ স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে বাজার পর্যবেক্ষক কমিটি গঠন করা হয়। এ সংক্রান্ত ছাপানো গেজেট রোববার এসইসিতে  পৌঁছেছে বলে জানা গেছে। ৩ জানুয়ারি থেকে এ গেজেট কার্যকর হয়েছে।

পর্যবেক্ষক দল এসইসি ও স্টক এক্সচেঞ্জের সার্ভেইল্যান্স বিভাগের তদন্ত প্রতিবেদন, বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ার লেনদেনের তথ্য, বিভিন্ন পেপার কাটিং, ভিডিও ফুটেজ প্রভৃতি সংগ্রহ ও পর্যালোচনা করবে। একই সঙ্গে পুঁজিবাজার-সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছ থেকে সাপ্তাহিক, মাসিক, ত্রৈমাসিক ও বাৎসরিক ভিত্তিতে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করতে ‘রিপোর্ট ফরম্যাট’ তৈরি করে প্রতিষ্ঠানের কাছে পরিপালনের জন্য তা প্রদান করবে। প্রতি মাসে একবার পরিদর্শক দল তাদের কর্মপরিকল্পনা, অগ্রগতি ও অন্যান্য সংশ্লিষ্ট বিষয় পর্যালোচনা করার জন্য বৈঠক করবে। পরিদর্শক দল তাদের পরিদর্শন প্রতিবেদন এসইসির চেয়ারম্যানের কাছে জমা দিবেন।

কোনো বিষয় সম্পর্কে জরুরি তদন্তের ক্ষেত্রে এসইসির চেয়ারম্যানের অনুমোদনক্রমে স্টক এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে অথবা এসইসি ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সমন্বয়ে তাৎক্ষণিক তদন্ত করার ক্ষমতা থাকবে এ কমিটির।

বাংলাদেশ সময়: ১০৫১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৯,২০১২

করোনার ঝুঁকি নিয়ে সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তারা
নোয়াখালীতে মৃত যুবকের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ
মোদীর করোনা তহবিলে ২৫ কোটি রুপি দিচ্ছেন অক্ষয় কুমার
কোভিড-১৯ সনাক্তকরণ কিট উদ্ভাবনে উদ্যোগ ঢাবির
করোনা: অতিরিক্ত সাড়ে ৬ কোটি টাকা, ১৩ হাজার টন চাল বরাদ্দ 


শ্বাসকষ্টে রোগীর মৃত্যু, করোনা আতঙ্কে বাড়ি ছাড়া প্রতিবেশীরা
সাগরপাড়ে রাত কাটানো সেই শিশুটির নতুন ঠিকানা ডিসি বাংলো
মানিকগঞ্জে ছিটানো হচ্ছে জীবাণুনাশক
করোনা: গুজব নিয়ে সতর্ক করেছে সরকার
করোনা: জিডিপির ১০ শতাংশ তহবিল গঠনের তাগিদ টিআইবির