শব্দ দূষণ: বাংলালিংকসহ চার প্রতিষ্ঠানকে সাড়ে ৬ লাখ টাকা জরিমানা

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

শব্দ দূষণের অভিযোগে পরিবেশ অধিদপ্তর গুলশানে বাংলা লিংকসহ চার প্রতিষ্ঠানকে সাড়ে ৬ লাখ টাকা জরিমানা করেছে। সোমবার পরিবেশ অধিদপ্তরের এনফোর্সমেন্ট টিম ১০৬ নং গুলশান এভিনিউতে হোসনা সেন্টার নামক ভবনের প্রতিষ্ঠানগুলির ব্যবহৃত...

ঢাকা: শব্দ দূষণের অভিযোগে পরিবেশ অধিদপ্তর গুলশানে বাংলা লিংকসহ চার প্রতিষ্ঠানকে সাড়ে ৬ লাখ টাকা জরিমানা করেছে।

সোমবার পরিবেশ অধিদপ্তরের এনফোর্সমেন্ট টিম ১০৬ নং গুলশান এভিনিউতে হোসনা সেন্টার নামক ভবনের প্রতিষ্ঠানগুলির ব্যবহৃত জেনারেটরসমূহের শব্দ দূষণের মাত্রা পরিমাপ করে জনদুর্ভোগের প্রমাণ পায়। একইদিন অধিদপ্তরের পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) মোহাম্মদ মুনীর চৌধুরী সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের তলব করে এ দণ্ডাদেশ প্রদান করেন।

দ-িত প্রতিষ্ঠানগুলো হলো যথাক্রমে বাংলালিংক, হোসনা সেন্টার, আইপিডিসি অব বাংলাদেশ এবং নন্দন মেগাশপ।

এগুলোর মধ্যে হোসনা সেন্টারকে ৩ লাখ টাকা, বাংলালিংককে ২ লাখ টাকা, আইপিডিসি অব বাংলাদেশকে ৫০ হাজার টাকা এবং নন্দন মেগাশপকে ১ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অধিদপ্তরের পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট) মোহাম্মদ মুনীর চৌধুরী স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, প্রতিষ্ঠানগুলো পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়াই জেনারেটর স্থাপন করে স্বাভাবিক মাত্রার চেয়ে অধিক মাত্রায় শব্দ দূষণ করছিল।
পরিবেশ অধিদপ্তরের সরেজমিন পরীক্ষায় এ ৪টি প্রতিষ্ঠানের জেনারেটরের শব্দ দূষণের মাত্রা পরীক্ষা করে হোসনা টাওয়ারের জেনারেটরের শব্দের মাত্রা পাওয়া যায় ১০১ ডেসিবেল, বাংলালিংকের দুটি জেনারেটরের শব্দের মাত্রা পাওয়া যায় যথাক্রমে ৮৪ ও ৯০ ডেসিবেল, আইপিডিসি’র জেনারেটরের শব্দের মাত্রা পাওয়া যায় ৮১ ডেসিবেল এবং নন্দন মেগাশপের জেনারেটরের শব্দের মাত্রা পাওয়া যায় ৮৯ ডেসিবেল।

গুলশানের ঐ এলাকাটি মিশ্র এলাকা বিধায় শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা, ২০০৫ অনুযায়ী উক্ত এলাকায় শব্দ দূষণের আদর্শ মাত্রা হলো ৬০ ডেসিবেল। ফলে অতিরিক্ত এ শব্দ দূষণ জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাতœক ক্ষতিকর।

উলে¬খ্য, শব্দ দূষণে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার নাগরিকরা জানায়, জেনারেটরের বিকট শব্দের কারণে ঐ এলাকায় বসবাসরত একজন অসুস্থ বৃদ্ধাকে গুলশান ছেড়ে গ্রামের বাড়িতে চলে যেতে হয়েছে। অভিযোগে আরও জানা যায়, বাসিন্দারা অনিদ্রাসহ বিভিন্ন অসুখে ভুগছেন। দ-াদেশ প্রদানের পর সংশি¬ষ্ট প্রতিষ্ঠানকে আগামী ১৪/৮/২০১১ তারিখের মধ্যে শব্দ দূষণ বন্ধে সকল প্রকার প্রতিকার মূলক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

অন্যথায় জেনারেটর জব্দ ও মামলা দায়েরসহ আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার হুশিয়ারি জানানো হয়েছে।

দ-িত প্রতিষ্ঠান সমূহ অবিলম্বে জেনারেটরের ত্রুটি দূরীকরণ, ক্যানোপিসহ প্রয়োজনীয় প্রযুক্তি সংস্থাপন এবং নতুন জেনারেটর প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে শব্দ দূষণ নিয়ন্ত্রণের অঙ্গীকার করেছে।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৫ ঘণ্টা, আগস্ট ০৮, ২০১১

নওগাঁয় মেয়েকে হত্যার অভিযোগে মা আটক
করোনা আতঙ্কে কষ্টে দিন কাটছে ছিন্নমূল মানুষের
ট্রাকে যাত্রী বহন করায় ১১ চালককে জরিমানা
করোনা: ডেমরায় পুলিশের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ
হাসপাতালে রাধিকা আপ্তে!


সাবেক ক্রিকেটার দুর্জয়ের পিপিই-মাস্ক-হ্যান্ডগ্লাভস বিতরণ
‌পোশাক খাতের শীর্ষ দুই সংগঠনকে ধন্যবাদ দিল ইউএফজিডব্লিউ
ভোলায় কোয়ারেন্টিনে নতুন ১১ জন, ছাড়পত্র ১৮৭ জনকে
লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনা স্ত্রীকেও জানাননি সেই ৩ প্রবীণ
সুনসান নগরীতে হঠাৎ দেখা মেলে যানবাহনের