পুঁজিবাজারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী নেই

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

পুঁজিবাজারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী নেই। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের দিয়েই হাঁটি হাঁটি পা করে প্রতিদিনের লেনদেন হচ্ছে। ফলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেনের অঙ্ক আগের তুলনায় অনেক কমে গেছে।

ঢাকা: পুঁজিবাজারে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী নেই। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের দিয়েই হাঁটি হাঁটি পা করে প্রতিদিনের লেনদেন হচ্ছে। ফলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেনের অঙ্ক আগের তুলনায় অনেক কমে গেছে।

সোমবার দ্বিতীয় কার্যদিনে ডিএসইর লেনদেন হয়েছে মাত্র ৪৯৫ কোটি টাকা, যা আগের দিনের তুলনায় ৬৫ কোটি টাকা কম। এর আগে গত ১ জুন সর্বনিম্ন লেনদেন হয়েছিল ৪৬১ কোটি ৫২ লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, শেয়ারবাজারের ওপর বিনিয়োগকারীদের আস্থা আবারও উঠে যাচ্ছে। এ ছাড়া দেশের গুরুত্বপূর্ণ এক মন্ত্রী বাজার নিয়ে যে মন্তব্য করছেন তাতেও বাজারে অনেকখানি প্রভাব পড়ছে। তারা বলেন, এসইসির ভূমিকা নিয়েও অনেকটা প্রশ্ন হচ্ছে।

এছাড়া বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা এবং বিশ্ব পুঁজিবাজারে ব্যাপক ধসের কিছুটা প্রভাবের কথাও বলেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পুঁজিবাজারে মোটা অঙ্ক টাকা লেনদেন হয়ে থাকে প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের মধ্য থেকে। তবে তারা এখন আর বিনিয়োগ করছেন না। মার্চেন্ট ব্যাংক ও প্রতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা মার্কেট পর্যবেক্ষণ করছে। এ ছাড়া তারা দেখছে এসইসি তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে কাদের বিরুদ্ধে আগে পদক্ষেপ নেয়।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের পুঁজিবাজারে দরপতনের পর এশিয়ার বাজারেও গত শনিবার ব্যাপক ধসের ঘটনা ঘটেছে। পশ্চিমের ধনী দেশগুলোতে ধসের খবরে বিশ্ব অর্থনীতি নতুন সঙ্কটের দিকে ধাবিত হচ্ছে।

মার্কিন অর্থনীতিতে চলমান সঙ্কট এবং ইউরো জোনের ঋণসঙ্কট আরও বিস্তৃত আকার লাভ করতে পারে বলে ইউরোপীয় কমিশন প্রধানের হুঁশিয়ারির পর বিনিয়োগকারীদের আত্মবিশ্বাস ভেঙে গেছে। আর এ কারণেই বিশ্ব পুঁজিবাজারে একযোগে দরপতন ঘটছে বলে বিশ্লেষকদের মত।

ইউরোপের পুঁজবাজারে গত শনিবার লেনদেন অনেক কমেছে। এ দিন লন্ডন ও প্যারিসের বাজারে সূচক কমেছে তিন শতাংশ। জার্মানির ফ্রাঙ্কফুর্টে পড়েছে চার শতাংশ, ইতালির মিলানে ৩ দশমিক ৫ শতাংশ ও স্পেনের মাদ্রিদে সূচক পতন ঘটেছে ২ দশমিক ৪ শতাংশ আর রোববার বাংলাদেশে ২ দশমিক ৪৯ শতাংশ।


সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে মোট ২৫৬ টি কোম্পানির ছয় কোটি ৭৯ লাখ ৯ হাজার ৪১৬টি শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে।

ডিএসইতে মোট লেনদেনের পরিমাণ ৪৯৫ কোটি ২৮ লাখ ৮১ হাজার ২৫টাকা। যা আগের দিনের চেয়ে ৬৫ কোটি ৩৮ লাখ টাকা কম।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সাধারণ মূল্য সূচক আগের দিনের চেয়ে ১০৩ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট বেড়ে ৬২২৩ দশমিক ৯৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

অন্যদিকে, ডিএসই ২০ মূল্যসূচক আগের দিনের চেয়ে ৫৮ দশমিক ৫৯ পয়েন্ট বেড়ে ৪১৭৪ দশমিক ৩২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে।

সোমবার লেনদেন হওয়া ২৫৬টি কো¤পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ২২৭টির, কমেছে ২৪টি কো¤পানির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫টি কো¤পানির শেয়ারের দাম।

লেনদেনের ভিত্তিতে (টাকায়) প্রধান ১০টি কো¤পানি হলো, কেয়া কসমেটিকস্, বেক্সিমকো লি., মালেক স্পিনিং, লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট, আরএন স্পিনিং, এইমস ১ম মিউচুয়াল ফান্ড, গ্রামীণফোন, মবিল যমুনা লুব্রিকেন্টস, তিতাস গ্যাস ও এমআই সিমেন্ট।

দর বৃদ্ধির শীর্ষে সোমবারের ৯টি কো¤পানি হলো, এএমবি ফার্মা, ন্যাশনাল পলিমার, সাউথইস্ট ব্যাংক লি. ১ম মিউঃ ফান্ড, ডাচ বাংলা ব্যাংক লি., ইস্টার্ণ ব্যাংক লি. ১ম মিউঃ ফান্ড, বিচ হ্যাচারি, অ্যাক্টিভ ফাইন, সিটি ব্যাংক লি., আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক লি. ও পূবালী ব্যাংক লি.।

অন্যদিকে, দাম কমার শীর্ষে প্রধান ১০ টি কো¤পানি হলো,   নাভানা সিএনজি, ৭ম আইসিবি, স্টাইল ক্র্যাফট, বঙ্গজ লি., প্রগ্রেসিভ লাইফ ইন্সুরেন্স, মুন্নু স্টাফলার, সন্ধানী ইন্সুরেন্স, রিলায়েন্স ১ম মিউঃ ফান্ড, ইস্টার্ন লুব্রিকেন্টস ও ফিনিক্স ফাইন্যান্স ১ম মিউঃ ফান্ড।

বাংরাদেশ সময়: ১৭.১৫ ঘণ্টা আগস্ট ০৮, ২০১১

সিলেটে রাস্তায় পড়ে থাকা বিদেশি নাগরিক আইসোলেশনে
বশেফমুবিপ্রবিতে প্রস্তুত হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ 
নওগাঁয় মেয়েকে হত্যার অভিযোগে মা আটক
করোনা আতঙ্কে কষ্টে দিন কাটছে ছিন্নমূল মানুষের
ট্রাকে যাত্রী বহন করায় ১১ চালককে জরিমানা


করোনা: ডেমরায় পুলিশের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ
হাসপাতালে রাধিকা আপ্তে!
সাবেক ক্রিকেটার দুর্জয়ের পিপিই-মাস্ক-হ্যান্ডগ্লাভস বিতরণ
‌পোশাক খাতের শীর্ষ দুই সংগঠনকে ধন্যবাদ দিল ইউএফজিডব্লিউ
ভোলায় কোয়ারেন্টিনে নতুন ১১ জন, ছাড়পত্র ১৮৭ জনকে