php glass

চট্টগ্রাম চেম্বারের নির্বাচন স্থগিত

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

চট্টগ্রাম চেম্বারের নির্বাচন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত ঘোষণা করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। ৭ ডিসেম্বর এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম চেম্বারের নির্বাচন অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত ঘোষণা করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। ৭ ডিসেম্বর এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

নমিনি ভোটারের নামে ব্যাপকভাবে ভুয়া ভোটার তৈরি নিয়ে কয়েকজন প্রার্থীর পক্ষ থেকে অনিয়মের অভিযোগের পরিপ্রেেিত বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এছাড়া চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনারকে অভিযোগ তদন্ত করে ১৫ দিনের মধ্যে রিপোর্ট দেয়ারও নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রণালয়।

ভুয়া ভোটার নিয়ে ব্যবসায়ীদের বিভিন্ন মহলের আপত্তির পরিপ্রেেিত বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পরিচালক (ট্রেড অ্যান্ড অর্গানাইজেশন) মো. আবুল কালামের স্বার করা এক আদেশে বাণিজ্য সংগঠন অধ্যাদেশ ১৯৬১ এর ধারা ৯ (চ) এবং ৮ (ক)-এর আওতায় নির্বাচন স্থগিত করার কথা বলা হয়েছে।

বাংলানিউজকে নির্বাচন স্থগিত করার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন নির্বাচন কমিশনার নাজমুল হক চৌধুরী।

তিনি জানান, অফিস বন্ধ থাকায় এখনো চেম্বারের হাতে চিঠি পৌঁছেনি। রোববার চিঠি পাওয়ার পর নির্বাচন স্থগিতে আদেশ জারি করা হবে।
 
এদিকে চট্টগ্রাম চেম্বারের নির্বাচন স্থগিত করার প্রতিবাদ জানিয়েছেন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতাকারী চেম্বার পরিষদের প্যানেল লিডার মোহাম্মদ আব্দুস সালাম। অন্যদিকে স্থগিতের বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছেন প্রতিদ্বন্দ্বী ব্যবসায়ী পরিষদের প্যানেল-লিডার মো. এরশাদউল্লাহ।

ব্যবসায়ী আব্দুস সালাম বাংলানিউজকে জানান, নিশ্চিত পরাজয় জেনে বিপ শক্তি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে ব্যবহার করে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে নির্বাচন স্থগিত করেছে। অসৎ উদ্দেশ্যে মন্ত্রণালয় নিজেদের পছন্দের কাউকে নেতৃত্বে বসাতে ষড়যন্ত্রে অংশী হয়েছে।

অন্যদিকে এরশাদউল্লাহ বলেন, ‘আমাদের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারীরা নমিনি ভোটারের নামে ভুয়া ভোটার বানিয়ে ষড়যন্ত্রের নির্বাচন করতে চেয়েছিল। আমরা চাই স্বচ্ছ একটি ভোটার তালিকার মাধ্যমে নির্বাচন হোক।’

গত ৩০ নভেম্বর ব্যবসায়ী পরিষদ ২৫ জন ব্যবসায়ীর নামে ৭শ’ ৮৯ ভুয়া ভোটার সৃষ্টির অভিযোগ এনে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয়।

উল্লেখ্য, নির্বাচনে চেম্বার পরিষদকে চট্টগ্রাম চেম্বারের বর্তমান সভাপতি ও সরকার দলীয় সাংসদ এম এ লতিফ এবং অপর গ্রুপ ব্যবসায়ী পরিষদকে আওয়ামী লীগ নেতা ও সাংসদ আক্তারুজ্জামান চৌধুরী বাবুর ছেলে চট্টগ্রাম চেম্বারের সাবেক সভাপতি সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ পৃষ্ঠপোষকতা দিচ্ছেন।

চেম্বার নির্বাচন নিয়ে সম্প্রতি নগর আওয়ামী লীগেও মেরুকরণ ঘটে। নির্বাচনে এমএ লতিফের নেতৃত্বাধীন পরিষদকে সমর্থন দিয়েছেন সাবেক মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী।

অন্যদিকে এর বিরোধিতা করছেন নগর আওয়ামী লীগের বিবদমান অপর গ্রুপের নেতা ও সাংসদ নুরুল ইসলাম বিএসসি। তার সঙ্গে আছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী ডা. আফছারুল আমিন এবং সিডিএ’র চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৪, ২০১০

ksrm
দশজন নিয়ে অ্যাস্টোন ভিলাকে হারালো আর্সেনাল
বরিশালে জুয়ার আসর থেকে আটক ৮
রেকর্ড গড়ার ম্যাচে চেলসিকে হারালো লিভারপুল
ফতুল্লায় বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার
নানিয়ারচরে ইউপিডিএফ’র কালেক্টর আটক


চাঁপাইনবাবগঞ্জে নকল পরিচয়পত্র তৈরির দায়ে একজনের দণ্ড
ঈশ্বরদীতে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বহিষ্কার
শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার একদিন পর ভিসির নিন্দা
৫০ হাজার পিস ইয়াবাসহ মাদকবিক্রেতা আটক
বাংলাদেশ ইয়ুথ জার্নালিস্ট ইউনিটির কমিটি গঠন