ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

পাওনা টাকা চেয়ে খুন হন বিকাশ ব্যবসায়ী বিজয়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৪, ২০২০
পাওনা টাকা চেয়ে খুন হন বিকাশ ব্যবসায়ী বিজয় গ্রেফতার আবদুর রহমান

চট্টগ্রাম: নয় মাস আগে বিজয় কুমার বিশ্বাসের কাছ থেকে মুনাফার ভিত্তিতে দেড় লাখ টাকা ধার নিয়েছিলেন আবদুর রহমান। মুনাফাসহ সেই টাকা ফেরত দিচ্ছিলেন না আবদুর রহমান।

এ টাকার জন্য আবদুর রহমানের উপর চাপ সৃষ্টি করেন বিজয় কুমার বিশ্বাস। আর এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিজয় কুমার বিশ্বাসকে গলায় ইন্টারনেটের তার পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করেন আবদুর রহমান। পরে বিজয়ের মরদেহ গুম করে অপহরণের নাটক সাজান।  

হত্যাকাণ্ডের ঘটনার ১০ দিনের মাথায় বিকাশ ব্যবসায়ী বিজয় কুমার বিশ্বাস খুনে জড়িত একজনকে গ্রেফতারের পর এসব তথ্য জানিয়েছে ক্রিমিনাল ইনভেস্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট (সিআইডি) চট্টগ্রাম।  

গ্রেফতার আবদুর রহমান (৪০) গোপালগঞ্জ জেলার মুকসুদপুর উপজেলার গোলাবাড়িয়া গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে। নগরের ইপিজেড থানার নেভি ওয়েলফেয়ার মার্কেটের দোতলায় আবদুর রহমানের রাইড এন্টারপ্রাইজ ও মেসার্স হাওলাদার বিল্ডার্স নামে দুটি দোকান আছে বলে জানিয়েছে সিআইডি।  

শনিবার (২৪ অক্টোবর) ব্রিফিংয়ে আবদুর রহমানকে গ্রেফতারের বিষয়টি জানান সিআইডির চট্টগ্রাম অঞ্চলের বিশেষ ‍পুলিশ সুপার মুহাম্মদ শাহনেওয়াজ খালেদ।  

মুহাম্মদ শাহনেওয়াজ খালেদ জানান, ১৫ অক্টোবর সকালে পাহাড়তলী থানার সাগরিকায় আলিফ গলি থেকে বিজয় কুমার বিশ্বাসের (৩২) মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর সিআইডি ছায়া তদন্ত অব্যাহত রেখেছিল। ২০ অক্টোবর মামলাটির তদন্তভার পায় সিআইডি। এ মামলার তদন্ত করতে গিয়ে আবদুর রহমানের সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়। পরে তাকে গ্রেফতারের পর এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন হয়।  

তিনি জানান, আবদুর রহমান ও বিজয় কুমার বিশ্বাসের মধ্যে বন্ধুত্ব ছিল। পরিচয়ের সুবাদে ৯ মাস আগে বিজয়ের কাছ থেকে আবদুর রহমান মুনাফার ভিত্তিতে দেড় লাখ টাকা ঋণ নেন। মুনাফাসহ সেই টাকা ফেরত দিচ্ছিলেন না আবদুর রহমান। এ টাকার জন্য আবদুর রহমানের উপর চাপ সৃষ্টি করেন বিজয় কুমার বিশ্বাস। আর এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিজয় কুমার বিশ্বাসকে গলায় ইন্টারনেটের তার পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করেন আবদুর রহমান। পরে বিজয়ের মরদেহ গুম করে অপহরণের নাটক সাজান। আবদুর রহমানকে এ হত্যাকাণ্ডে সহযোগিতা করেন তার কর্মচারি নাছির উদ্দিন।  

মুহাম্মদ শাহনেওয়াজ খালেদ জানান, হত্যাকাণ্ডের পর আবদুর রহমান ও নাছির মিলে বিজয়ের মরদেহ গুমের উদ্দেশে বস্তায় ভরে পেপার ও ককশিট দিয়ে মুড়িয়ে প্রথমে রিকশা এবং পরে সিএনজি অটোরিকশায় করে নিয়ে পাহাড়তলী থানাধীন অলংকার মোড় আলিফ গলিতে ফেলে দিয়ে আসেন। পরে আবদুর রহমান ও নাছির দু্ইজনই পালিয়ে যান। আবদুর রহমান নীলফামারির সৈয়দপুরে আত্মগোপনে থেকে অপহরণ নাটক সাজান।  

নিহত বিজয় কুমার বিশ্বাস কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার সন্তোষ কুমার দাশের ছেলে। নেভী ওয়েলফেয়ার মার্কেটের নিচতলায় চাঁদনী এন্টারপ্রাইজ এন্ড গিফট শপ ও বিকাশ এজেন্টের প্রতিষ্ঠান ছিল তার।  

বাংলাদেশ সময়: ২০২৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৪, ২০২০
এসকে/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa