ঢাকা, শুক্রবার, ৭ কার্তিক ১৪২৭, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

ট্রেড লাইসেন্স না থাকলে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান সিলগালা: সুজন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০
ট্রেড লাইসেন্স না থাকলে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান সিলগালা: সুজন বক্তব্য দেন চসিক প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন

চট্টগ্রাম: ট্রেড লাইসেন্স ছাড়া নগরে কেউ ব্যবসা পরিচালনা করতে পারবেন না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন।  

সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে চসিক সম্মেলন কক্ষে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রশাসক এ হুঁশিয়ারি দেন।

 

তিনি বলেন, এ শহরে ব্যবসা করতে হলে সরকারি নিয়মানুযায়ী ট্রেড লাইসেন্স থাকা আবশ্যক। অন্যথায় পরিকল্পিত নগরায়ণের অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবে। এখনো লাইসেন্স করেননি এমন ব্যবসায়ীদের জন্য চসিকের পক্ষ থেকে সময় দেওয়া হয়েছে। আগামী ১২ অক্টোবরে মধ্যে ট্রেড লাইসেন্স করতে হবে। ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে ট্রেড লাইসেন্স নবায়নে সারচার্জ মওকুফ করা হবে। অন্যথায় ১৫ অক্টোবরের পর ট্রেড লাইসেন্সবিহীন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান সিলগালা করা হবে।

চট্টগ্রামকে দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রাণকেন্দ্র উল্লেখ করে সুজন বলেন, এখানে যুগে যুগে বিদেশি বণিকেরা ব্যবসার প্রসার ঘটিয়েছেন। প্রাকৃতিক পরিবেশের ভারসাম্য ও নদীমাতৃক বন্দরের কারণে চট্টগ্রাম ব্যবসার উর্বর ভূমি। কালের বিবর্তনে এখানে ব্যবসার ধরন ও নিয়মনীতির পরিবর্তন হয়েছে।  

তিনি রাস্তায় বা রাস্তার পাশে দীর্ঘক্ষণ পণ্যসামগ্রী লোড-আনলোড করা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, সর্বোচ্চ ২০ মিনিটের মধ্যে পণ্য লোড-আনলোড করতে হবে। ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে আমি রাতদিন পরিশ্রম করে সড়ক উন্নয়নের কাজ করে যাচ্ছি। রাস্তা ভালো থাকলে এর সুফল ব্যবসায়ীরাই ভোগ করবেন।  
প্রশাসক অবৈধ রাস্তা দখলদারদের উদ্দেশে বলেন, ‘দখলদার তুই রাস্তা ছাড়-রাস্তা কি তোর বাপ দাদার। ’ এ স্লোগান সামনে রেখে নগরবাসীকে সুন্দর-সুশৃঙ্খল চট্টগ্রাম নগর গড়ার কাজে অবদান রাখতে হবে।

কথায় কথায় পরিবহন ব্যবসায়ীদের ধর্মঘট করা প্রসঙ্গে প্রশাসক বলেন, ধর্মঘট দিয়ে আমাদের ভয় দেখাবেন না। জিম্মি করার দিন শেষ। রাস্তায় গাড়ি চালানোর বিকল্প ব্যবস্থা আমাদের আছে। আপনারা এ শহরে বসবাস করেন এ শহর আপনাদের। এ শহরকে নিরাপদ ও বাসযোগ্য নগরে পরিণত করার দায়িত্ব আমাদের। আপনাদের যা যা সমস্যা ও প্রয়োজন আছে আমাকে বললে আমি তা অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করে দেব। আপনারা আমাকে সহযোগিতা করেন আমিও আপনাদের সব ধরনের সহযোগিতা প্রদান করব।  

এ সময় উপস্থিত ছিলেন চসিক সচিব মোহাম্মদ আবু সাহেদ চৌধুরী, প্রশাসকের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, রাজস্ব কর্মকর্তা শাহেদা ফাতেমা, এস্টেট অফিসার মো. কামরুল ইসলাম চৌধুরী, বাংলাদেশ ট্রাক কভার্ডভ্যান ও পণ্য পরিবহন মালিক ফেডারেশনের মহাসচিব মো. আবু মোজাফফর, সহ সভাপতি এম কিবরিয়া দোভাষ, সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী জাফর আহমদ, ডিসি রোড ট্রাক মিনিট্রাক পিকআপ মালিক সমিতির সভাপতি মো. ইসলাম ইভান, মো. জামাল, মো. তৌহিদুল আলম, মুফিজুর রহমান টিপু, মুফিজুর রহমান মুন্না, মনিরুল ইসলাম, মো. খলিল, মো. এমরান, এস এহছানুল করিম, মো. ফাহিম হোসেন বাবু, মো. আবু বকর সিদ্দিক, মো. মিজানুর রহমান, মো. রাসেল প্রমুখ।  

>> ‘বাসে ইভটিজিং করলে যাত্রীদের ভূমিকা রাখতে হবে’ 

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa